রোগী বহনে এটুআই ল্যাবের উদ্ভাবনী অ্যাম্বুলেন্স

Evaly in News page (Banner-2)

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের অ্যাক্সেস টু ইনফরমেশ বা এটুআই ল্যাব থেকে উদ্ভাবিত স্বল্প মূল্যের দুটি অ্রাম্বুলেন্স রোগী পরিবহনে দেয়া হয়েছে। 

অ্যাম্বুলেন্স দুটি রোহিঙ্গা শরণার্থী ক্যাম্প থেকে জেলা ও উপজেলার বিভিন্ন হাসপাতালে রোগী পরিবহনের জন্য রিসার্চ ট্রেনিং এ্যান্ড ম্যানেজমেন্ট (আরটিএম) ইন্টারন্যাশনালের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার কক্সবাজারের সার্কিট হাউজ মিলনায়তনে আয়োজিত হস্তান্তর অনুষ্ঠানে অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন শরণার্থী ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশনার মোহাম্মদ আবুল কালাম, এটুআইয়ের পরিচালক মো. আব্দুস সবুর মন্ডল, ইউএনএফপি’র চিফ অফ হেলথ্ সত্যনারায়ণ ডোরাস্বামি এবং ইউএনএফপি’র সহযোগী সংস্থা আরটিএমআই এর নির্বাহী পরিচালক সায়েদ জগলুল পাশা।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন কক্সবাজার এর জেলা প্রশাসক জনাব মোঃ কামাল হোসেন।

শরণার্থী ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশনার মোহাম্মদ আবুল কালাম বলেন, অ্যাম্বুলেন্সটি শুধুমাত্র গর্ভবতী নারী কিংবা রোগী পরিবহনের ক্ষেত্রেই সাহায্য করবে না, বরং রোহিঙ্গা শরণার্থী ক্যাম্পের রোগীদের হাসপাতালে নিয়ে আসার ক্ষেত্রে অনেক অর্থ সাশ্রয় করবে।

জেলা প্রশাসক মো. কামাল হোসেন বলেন,  প্রান্তিক জনগোষ্ঠীকে সহযোগিতা করার জন্য আমাদের একটি জেলা ইনোভেশন দল রয়েছে এবং এর মাধ্যমে জনগণের সুযোগ সুবিধাগুলোকে আরও সহজ করার লক্ষ্যে কাজ করছে।

মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ, তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগ, ইউএসএইড ও ইউএনডিপি’র সহায়তায় পরিচালিত এটুআই-ইনোভেশন ল্যাব উদ্ভাবিত স্বল্পমূল্যের অ্যাম্বুলেন্সটি সম্পূর্ণ স্থানীয় প্রযুক্তি ব্যবহার করে তৈরি করা হয়েছে। অ্যাম্বুলেন্সটি প্রাথমিকভাবে উদ্ভাবন করেন যশোরের মিজানুর রহমান। এই অ্যাম্বুলেন্সে একজন রোগী এবং দুই’জন যাত্রী বহন করা সম্ভব এবং এটি প্রতি লিটার জ্বালানিতে ২৫ কিলোমিটার পথ পাড়ি দিতে সক্ষম।

অ্যাম্বুলেন্সটি তৈরিতে সর্বনিম্ন খরচ পড়ছে সাড়ে তিন লাখ টাকা। অ্যাম্বুলেন্সটিকে বিশেষায়িত করতে খরচ কিছুটা বৃদ্ধি পেতে পারে বলে জানায় এটুআই।

এটুআই ইনোভেশন ফান্ডের ১০টি রাউন্ডের মাধ্যমে মোট ২০৯টি প্রকল্পকে পুরস্কৃত করা হয়েছে, প্রকল্পগুলো বর্তমানে উন্নয়নের বিভিন্ন পর্যায়ে রয়েছে।

হস্তান্তর অনুষ্ঠানে সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠান ও সংস্থার কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

ইএইচ/ জুন ২৭/ ২০১৯/ ২০২০

*

*

আরও পড়ুন