গ্যালাক্সি এ১০ : বাজেট কম তাই ফিচারও কম

Evaly in News page (Banner-2)

রিয়াদ আরিফিন, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : চলতি বছর স্যামসাং দেশের বাজারে গ্যালাক্সি-এ সিরিজের বেশ কিছু চলনসই স্মার্টফোন এনেছে স্বল্প ও মাঝারি বাজেটের ক্রেতাদের কথা মাথায় রেখে।

এগুলোর মধ্যে একদম কম বাজেটের ফোন গ্যালাক্সি এ১০ পাওয়া যাচ্ছে ১১ হাজার ৯৯৯ টাকায়।

এমন বাজেটের ক্রেতারা মার্কেটে ঢুঁ মারার আগে দেখে নিতে পারেন এ ফোনের আদ্যোপান্ত।

শুরুতেই দেখা নেয়া যাক স্মার্টফোনটির ফিচারগুলো

এক নজরে স্যামসাং গ্যালাক্সি এ১০

  • ৬.২ ইঞ্চি ডিসপ্লে
  • পেছেনর ক্যামেরা ১৩ মেগাপিক্সেল
  • সামনের ক্যামেরা ৫ মেগাপিক্সেল
  • ২ গিগাবাইট র‍্যাম
  • ৩২ গিগাবাইট ইন্টারনাল স্টোরেজ
  • এক্সাইনোস ৭৮৮৪ প্রসেসর
  • ডুয়াল  সিম
  • ৩৪০০ মিলিঅ্যাম্পিয়ার ব্যাটারি 
  • ৫১২ গিগাবাইট পর্যন্ত মেমোরি কার্ড ব্যবহারের সুবিধা

ডিজাইন

প্লাস্টিক বডির ফোনটি লাল, নীল ও কালো তিনটি রঙে পাওয়া যাবে। ডানদিকে রয়েছে পাওয়ার বাটনসহ ভলিউম রকার। বামে থাকা সিম ট্রের দুটি স্লট রয়েছে। দুটি সিমের সঙ্গে একটি মেমরি কার্ড একসঙ্গে ব্যবহার করা যাবে। 

পেছনে থাকছে ব্যাক ক্যামেরা ও এলইডি ফ্ল্যাশ। নিচের দিকে মিলবে চার্জিং পোর্ট ও ৩.৫ মিমি হেডফোন জ্যাক। স্পিকার রয়েছে পেছনে নিচের দিকে। স্পিকারের এমন অবস্থানের কারণে টেবিলের উপর ফোন রাখলে সাউন্ড পেতে বিড়ম্বনা হতে পারে। 

ডিসপ্লে

ফোনটিতে ৬.২ ইঞ্চির ইনফিনিটি ভি টাইপ ডিসপ্লে ব্যবহার করা হয়েছে। এতে ইংরেজি ভি আকৃতির ছোট একটি নচ দেখা যাবে।

আইপিএস প্যানেলের এ ডিসপ্লের রেজুলেশন ৭২০*১৫২০। ফোনটির স্ক্রিন টু বডি রেশিও ৮১.৬ শতাংশ।

দাম অনুযায়ী ডিসপ্লের পারফরমেন্স সন্তোষজনক। তবে অটোমেটিক ব্রাইটনেস ফিচার ব্যবহারে খানিকটা বিড়ম্বনায় পড়তে হতে পারে। 

অপারেটিং সিস্টেম

স্যামসাংয়ের নিজস্ব ওয়ান ইউআইতে চলবে ফোনটি, যা অ্যান্ড্রয়েড পাই ৯.০-কে ভিত্তি করে গড়ে ওঠা একটি কাস্টম অপারেটিং সিস্টেম। এতে স্যামসাংয়ের নিজস্ব কিছু ফিচার পাওয়া যাবে। থাকছে ডার্ক মোড ব্যবহারের সুযোগ।

ফোনের মাধ্যমে দৈনন্দিন ছোটখাট কাজের জন্য এ অপারেটিং সিস্টেম চলনসই।

পারফরমেন্স

২ গিগাবাইট র‍্যামের এ মডেলে স্যামসাংয়ের নিজস্ব এক্সাইনোস ৭৮৮৪ মডেলের চিপসেট ব্যবহার করা হয়েছে । অক্টাকোর এ প্রসেসরের দুইটি কোর ১.৬ গিগাহার্জ গতির এবং বাকি ছয়টির কোর ১.৩৫ গিগাহার্জের। 

এ ফোনের পারফরমেন্স হালকা মানের কাজের ক্ষেত্রে সন্তোষজনক হলেও যারা স্মার্টফোনে মাল্টিটাস্কিং করেন কিংবা হাই রেজুলেশনের গেইম খেলেন তাদের এটি নয়।

অল্পসল্প ইন্টারনেট ব্যবহার কিংবা ছোটখাটো কাজ সেরে নিতে এ ফোনের পারফরমেন্সে বেগ পেতে হবে না। 

স্মার্টফোন পারফরমেন্স যাচাইয়ের অ্যাপ গিগবেঞ্চে এটির স্কোর সিংগেল ও মাল্টিকোরে যথাক্রমে ১০৫০ ও ৩৫০০।

ক্যামেরা

এ ফোনে ১৩ মেগাপিক্সলের ব্যাক ক্যামেরা ব্যবহার করা হয়েছে যার অ্যাপারচার এফ ১.৯।

৫ মেগাপিক্সেল ফ্রন্ট ক্যামেরার অ্যাপারচার এফ ২.০। ব্যাক ক্যামেরার ছবির মান বাজেট অনুযায়ী সন্তোষজনক। তবে স্বল্প আলো কিংবা রাতের ছবির মান কিছুটা খারাপ।

সেলফি ক্যামেরার পারফরমেন্স মোটামুটি। 

ব্যাটারি

স্মার্টফোনটিতে ৩ হাজার ৪০০ মিলিঅ্যাম্পিয়ার ক্ষমতার লিথিয়াম আয়ন ব্যাটারি ব্যবহার করা হয়েছে। এটির পারফমেন্স আপনাকে ভোগাবে না। একবার ফুল চার্জে সারাদিন ব্যবহার করা যাবে অনায়াসে। 

ওয়ারেন্টি

অফিশিয়াল যে কোনো চ্যানেল থেকে স্মার্টফোনটি কিনলে এক বছরের বিক্রয় পরবর্তী সেবা পাওয়া যাবে।

এক নজরে ভালো

  • ভালো মানের ব্যাটারি
  • হালকা গড়ন
  • চলনসই ডিসপ্লে

এক নজরে খারপ 

  • ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর নেই
  • মাঝারি মানের পারফরমেন্স

আরএ/আরআর/ ২৫ জুলাই/ ২০১৯/০২.৫০ 

আরও পড়ুন – 

গ্যালাক্সি এ৩০ : মিডরেঞ্জের অ্যাকশন ফোন কাজেও তাই

গ্যালাক্সি জে৬ : চার্জিংয়ে ধীরগতি ছাড়া পারফরমেন্স নজর কাড়বে

*

*

আরও পড়ুন