কর্মীদের যে গুণে মুগ্ধ হন বেজস

Jeff+Bezos-techshohor

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : ই-কমার্স জায়ান্ট অ্যামাজন পরিচালনার ক্ষেত্রে প্রতিষ্ঠানটির সিইও জেফ বেজস ১৪টি নিয়ম মেনে চলেন।

এগুলোর মধ্যে কোনটি সবচেয়ে বেশি পছন্দের তা নিয়ে অ্যামাজনের রি-মার্স কনফারেন্সে প্রশ্ন করা হয় বেজসকে। তিনি জানান, প্রতিনিয়ত সঠিক বলে প্রমাণিত ব্যক্তিদেরকে নেতৃত্ব স্থানীয় পর্যায় রাখার নিয়মটি তার বেশ পছন্দের।

কনফারেন্সে এআই, রোবোটিক্স ও স্পেস প্রযুক্তি নিয়ে আলোচনার ফাঁকে সঠিক সিদ্ধান্ত নিতে সিদ্ধহস্ত কর্মীদের ব্যাপারে আরও কিছু তথ্য দেন তিনি।

তার মতো, ভালো নেতাদের সঠিক সিদ্ধান্ত নেওয়ার গুণ বিশেষ কোনো সুবিধা দেয় না। নেতৃত্ব স্থানীয়দের মধ্যে এই গুণ থাকবে বলেই ধরে নেওয়া হয়। ধারাবাহিকভাবে সঠিক সিদ্ধান্ত নেওয়াটা খুব গুরুত্বপূর্ণ। যাদের এই যোগ্যতা আছে তাদের সবার মধ্যে কিছু বিষয় মিলও রয়েছে।

সঠিক সিদ্ধান্ত নিতে পারা ব্যক্তিরা আসলে মনযোগী শ্রোতা। এছাড়াও, বার বার তারা মত পরিবর্তন করেন।

হঠাৎ হঠাৎ সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করা কোনো কাজের কথা নয়। রাজনীতির ক্ষেত্রে তো একেবারেই নয়। কিন্তু বেজসের কাছে এর মূল্য আছে। এ বিষয়ে তিনি একটি সূত্র মেনে চলেন। সূত্রটি হলো, প্রতিনিয়ত মত বদল না করলে ভুল করার আশংকা বেশি থাকে।

যদিও সবার ক্ষেত্রে এই সূত্র খাটে না। যারা নিজেদের অনুমান নিয়ে মনে মনে প্রশ্ন তোলেন তাদের কথাই বলেছেন বেজস। তার মতে, এই ধরণের মানুষেরা তাদের সিদ্ধান্তকে চূড়ান্ত বলে ধরে নেয় না।

বেশির ভাগ সাধারণ মানুষের মধ্যে এই গুণ নেই। কারণ তারা যা বিশ্বাস করে তা আরও পাকাপোক্ত করতেই তার স্বপক্ষে প্রমাণ খুঁজে বেড়ায়।

জেফ বেজস অ্যামাজন পরিচালনার জন্য আরও যে ১৩ নীতিমালা তৈরি করেছেন তার মধ্য আছে গ্রাহকদেরকে প্রাধান্য দেওয়া, মালিকানা, উদ্ভাবন ও সরলীকরণ, শেখার ইচ্ছা ও কৌতূহলী হওয়া, যোগ্য কর্মী নিয়োগ দেওয়া, মানদণ্ড বজায় রাখতে জোর দেওয়া, বৃহৎ কিছু নিয়ে ভাবনা, কাজের জন্য পক্ষপাত, কমের মধ্যেই সব পূরণ করা, আস্থা অর্জন, গভীরে ঝাঁপ দেওয়া, অমত থাকলে তা জানানো ও ডেলিভারি রেজাল্ট।

বিজনেস ইনসাইডার অবলম্বনে এজেড/ জুন ৯/২০১৯/১১৪৫

*

*

আরও পড়ুন