Techno Header Top and Before feature image

হুয়াওয়ের পাশে ওয়াইফাই, ব্লুটুথ, মাইক্রোএসডি

Evaly in News page (Banner-2)

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : যারা চীনা প্রযুক্তি জায়ান্ট হুয়াওয়ের পাশ থেকে সরে গিয়েছিল, তারা আবারও ফিরে আসতে শুরু করেছে।

হুয়াওয়ের ফোনে মাইক্রোএসডি কার্ড ব্যবহারের উপর নিষেধাজ্ঞা ছিল, পাশ থেকে সরে যাওয়ায় ব্যবহার করতে পারতো না ব্লুটুথ ও ওয়াইফাই নেটওয়ার্ক।

কিন্তু অনেকটা নীরবেই ওয়াইফাই অ্যালায়েন্স, এসডি অ্যাসোসিয়েশন এবং ব্লুটুথ এসআইজি ফিরে আসায় সেই নিষেধাজ্ঞা আর রইলো না হুয়াওয়ের ক্ষেত্রে।

এর আগে যুক্তরাষ্ট্রের বাণিজ্য বিভাগ হুয়াওয়েকে কালো তালিকাভুক্ত করে। দেশটির প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সিদ্ধান্তের পর মার্কিন জায়ান্ট গুগল হুয়াওয়ের সঙ্গে বাণিজ্য চুক্তি থেকে সরে যায়। ফলে কিছুটা বিপাকে পড়ে হুয়াওয়ে।

এর পর একে একে বেশ কিছু প্রতিষ্ঠান হুয়াওয়ের সঙ্গে চুক্তি বাতিল করতে থাকে। বিভিন্ন জোট বা অ্যালায়েন্স থেকে হুয়াওয়েক সরিয়ে দেওয়া হয়। কিন্তু গতকাল বুধবার ওই তিন নেটওয়ার্ক তাদের সিদ্ধান্ত থেকে সরে এসে আবারও হুয়াওয়ের পাশে থাকার ঘোষণা দেয়।

প্রতিষ্ঠানগুলো এখন চাইছে হুয়াওয়ের সঙ্গে তাদের চুক্তির মেয়াদ নবায়ন করবে। কার, বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম স্মার্টফোন তৈরি করে প্রতিষ্ঠানটি।

জনপ্রিয় প্রযুক্তি সাইট ফোনএরিনার প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, হুয়াওয়ে চাইলে এসব অ্যাসোসিয়েশনের সদস্য না হয়েও সুবিধা নিতে পারে। তবে সেটাও জন্য কিছুটা কাঠখড় পোড়াতে হতে পারে বলে এক এক্সিকিউটিভ বলেন।

তবে হুয়াওয়ে চাইলে নিজের মতো করেই মাইক্রোএসডির বিকল্প তৈরি করে ফেলতে পারে বলে জানানো হয়। কারণ, ইতোমধ্যে হুয়াওয়ে তাদের মেট ২০ এবং মেট ২০ প্রো ডিভাইসে ন্যানো এসডি কার্ডের প্রচলন করেছে।

হুয়াওয়ের যেহেতু ইতোমধ্যেই তাদের অ্যান্ড্রয়েডের বিকল্প আর্ক বা হংমেং নামে অপারেটিং সিস্টেম আনার ঘোষণা দিয়েছে, সেহেতু তারা চাইলে মাইক্রোএসডির বিকল্প কিছু তৈরি করতে পারে বলে প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে।

চলতি বছরেই নতুন ওই অপারেটিং সিস্টেম বাজারে ছাড়তে পারে হুয়াওয়ে। সেই অপারেটিং সিস্টেমে অ্যান্ড্রয়েড ও ওয়াপ উভয় অ্যাপ সাপোর্ট করবে বলে দাবি করছে কয়েকটি সংবাদ মাধ্যম।

গত বছরের শেষ দিক থেকেই যুক্তরাষ্ট্র ও চীনের মধ্যে একটি বাণিজ্য যুদ্ধাবস্থা শুরু হয়। যা চলতি বছরের মার্চ থেকে চূড়ান্ত আকার ধারণ করতে থাকে। দেশ দুটির এই বাণিজ্য যুদ্ধের বলি হয় চীনা ব্র্যান্ড হুয়াওয়ে।

হুয়াওয়ে যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় নিরাপত্তার জন্য হুমকী বিবেচনায় তাদের দেশটিতে গত ১৫ মে কালো তালিকাভুক্ত করা হয়।

ইএইচ/মে৩০/ ২০১৯/ ১৪৫৫

*

*

আরও পড়ুন