প্রথমবারের মতো বেসিক ফোনের আধিপত্যে বড় ধাক্কা

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : দেশে থ্রিজি চালুর প্রায় অর্ধযুগ পেরিয়ে ফোরজিরও এক বছর ছাড়িয়েছে। 

ইন্টারনেটের এই জয়রথের সময়ে স্মার্টফোনের ব্যবহারকারী যেমন দ্রুত বাড়বে তেমন বেসিক বা ফিচার ফোনের ব্যবহারও কমবে দ্রুত, সাধারণ হিসাব এমনটাই হওয়ার কথা।

অথচ  দেশে বেসিক বা ফিচার ফোনের আধিপত্য যেন কমছিলই না। উল্টো কোনো কোনো বছর তা বাড়ছিল।

এই প্রথম দেশে বেসিক ফোনের ব্যবহারের সংখ্যা বেশ বড় অংকে কমেছে। বিপরীতে এই জায়গার বেশিরভাগই দখল করেছে স্মার্টফোন।  

২০১৯ সালের প্রথম তিন মাসে দেশে ফিচার বা বেসিক ফোন এসেছে ৫০ লাখ ৫৮ হাজার ৭৪৯ টি। যা ২০১৮ সালের এই সময়ের চেয়ে ৩ লাখ ১১ হাজার ৩৯৭টি কম। ২০১৮ সালের প্রথম তিন মাসে ফিচার ফোন এসেছিল ৫৩ লাখ ৭০ হাজার ১৪৬ টি। 

আর ২০১৯ এর প্রথম তিন মাসে স্মার্টফোন এসেছে ১৮ লাখ ২৮ হাজার ১৭৩টি। ২০১৮ সালের একই সময়ে যা ছিল ১৫ লাখ ৮৭ হাজার ৬৩টি। দেখা যাচ্ছে  স্মার্টফোন বেড়েছে ২ লাখ ৪১ হাজার ১১০টি। 

২০১৯ সালের প্রথম প্রান্তিক দেশে সর্বমোট হ্যান্ডসেট এসেছে ৬৮ লাখ ৮৬ হাজার ৯২২ টি। ২০১৮ সালের প্রথম প্রান্তিকে যা ছিল ৬৯ লাখ ৫৭ হাজার ২০৭ টি। মোট হিসাবে অবশ্য চলতি বছরের শুরুতে দেশে হ্যান্ডসেট আমদানির সংখ্যা কমেছে। 

দেখা যাচ্ছে, ২০১৮ সালের প্রথম তিন মাসে ফিচার ফোন ছিল ৭৭ দশমিক ২ শতাংশ সেটা ২০১৯ সালের একই সময়ে হয়েছে ৭৩ দশমিক ৫ শতাংশ। আর স্মার্টফোন ছিল ২২ দশমিক ৮ যা হয়েছে ২৬ দশমিক ৫ শতাংশ।

২০১৮ সালে দেশে সর্বমোট হ্যান্ডসেট আমদানি হয়েছে ২ কোটি ৮৪ লাখ ৮৮ হাজার ৬০৪ টি। যেখানে ফিচার ফোন ছিল ৭৫ দশমিক ৯ শতাংশ আর স্মার্টফোন ছিল ২৪ দশমিক ১ শতাংশ। যদিও বছরটিতে তুলনামূলকভাবে হ্যান্ডসেট আমদানি বেশ কমেছে।

২০১৭ সালে সব মিলে হ্যান্ডসেট আমাদনি হয়েছে তিন কোটি ৪৪ লাখ ৭ হাজার। যেখানে দুই কোটি ৬৩ লাখ ৭ হাজার পিসই ছিল বার ফোন বা বেসিক ফোন। যা ২০১৬ সালের তুলনায় ৩৩ লাখের মতো বেশি ছিল। 

২০১৬ সালে মোট হ্যান্ডসেট আমদানির সংখ্যা ছিল তিন কোটি ১০ লাখ ২২ হাজার। এতে বেসিক বা ফিচার ফোনের পরিমাণ ছিল দুই কোটি ৩০ লাখ ১৭ হাজার পিস।

২০১৬ সালে স্মার্টফোন আমদানি হয়েছিল ৮০ লাখ ৪৪ হাজার। ২০১৭ সালে যা ছিল ৮০ লাখ ৯৯ হাজার।

সে হিসাবে ২০১৭ সালে স্মার্টফোনের ব্যবহার বাড়তে দেখা যায় মাত্র ১ দশমিক ১৯ শতাংশ। বিপরীতে ফিচার ফোন বৃদ্ধির হার অনেক বেশি। 

এডি/জুন২/২০১৯/১৫০০

*

*

আরও পড়ুন