ডিজিটাল ডাক সেবার তাগিদ মোস্তাফা জব্বারের

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বলেছেন, ডিজিটাল যুগে প্রতিমূহুর্ত পরিবর্তনশীল। পৃথিবীতে কৃষি যুগ গেছে হাজার হাজার বছর কিন্তু ডিজিটাল যুগে রূপান্তর ঘটছে প্রতিমূহুর্তে।

তিনি ডাক সেবাকে ডিজিটাল যুগের উপযোগী করার প্রয়োজনীয়তার ওপর গুরুত্বারোপ করে বলেন, প্রযুক্তি নির্ভর ডাকঘরের জন্য উপযুক্ত মানব সম্পদ তৈরি অপরিহার্য।

তিনি বিদ্যমান ডাক সেবাকে ডিজিটাল রূপান্তরের মাধ্যমে জনগণের কাছে দ্রুত ডাক সেবা পৌঁছাতে করণীয় চিহ্নিত করে কার্যকর উদ্যোগ গ্রহণের জন্য সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দিয়েছেন।

মন্ত্রী মঙ্গলবার ঢাকায় ডাক অধিদপ্তরের প্রধান কার্যালয়ে অধিদপ্তরের পদস্থ কর্মকর্তাদের সাথে মতবিনিময় সভায় এই নির্দেশ দেন।

মন্ত্রী ডাক সেবার ক্রমবিবর্তনের ইতিহাস তুলে ধরে বলেন, ডাক সেবা ছিল এক সময় মানুষে মানুষে যোগাযোগ স্থাপনের একমাত্র উপায়। প্রযুক্তির উন্নয়নের ফলে মানুষের হাতে হাতে যোগাযোগের ডিভাইস চলে আসছে। সামনের দিনে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার সঙ্গে ফাইভজি প্রযুক্তি যুক্ত হওয়ার পর মানুষের জীবনের যে কী পরিবর্তন আসবে তা কেউ আন্দাজও করতে পারছেন না। প্রযুক্তির অভাবনীয় পরিবর্তনের সঙ্গে সংগতি রেখে ডাক বিভাগকে রূপান্তর ঘটাতে হবে।

ডাক বিভাগের উন্নয়নে সরকারের গৃহীত বিভিন্ন কর্মসূচি তুলে ধরে ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী বলেন, গত দশ বছরে দেশে সাড়ে ৮ হাজার ডাক ঘর ডিজিটাল ডাকঘরে রূপান্তরিত হয়েছে। প্রযুক্তিগত সমন্বয়ের মাধ্যমে ডাক সেবার ডিজিটাল রূপান্তরে সরকার বদ্ধপরিকর।

মন্ত্রী ডাক অধিদপ্তরের কর্মকর্তাদের উদ্দেশ্যে বলেন, সারা দেশের সকল ক্ষেত্রে যে ডিজিটাল রূপান্তর চলছে, এই ক্ষেত্রে ডাক বিভাগকে পিছিয়ে থাকলে চলবে না। ডাক বিভাগকে সেই প্রযুক্তি ব্যবহার করতে হবে যে প্রযুক্তি আমাদের ডিজিটাল হিসেবে প্রতিষ্ঠা করবে। গ্রাহক সেবার ক্ষেত্রে যাতে কোন ঘাটতি না থাকে সে বিষয়টির পাশাপাশি প্রযুক্তি ব্যবহারের জন্য উপযুক্ত মানব সম্পদ তৈরির প্রয়োজনীয়তার ওপর গুরুত্বারোপ করেন মোস্তাফা জব্বার।

অনুষ্ঠানে ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের সচিব অশোক কুমার বিশ্বাস এবং ডাক বিভাগের মহাপরিচালক এসএস ভদ্র এসময় উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানে ডাক অধিদপ্তরের বিভিন্ন কর্মকাণ্ড, ভবিষ্যত পরিকল্পনা এবং ডাক সার্ভিস ট্রাকিং চালু সংক্রান্ত বিষয় পাওয়ার পয়েন্ট উপস্থাপনার মাধ্যমে মন্ত্রীকে বিস্তারিত অভিহিত করা হয়।

ইএইচ/মে ২১/ ২০১৯/২৩১৭

*

*

আরও পড়ুন