STE 2019 (summer) in news page

রেল যাত্রীদের গলার কাঁটা সিএনএসবিডি!

train-techshohor
Laptop fair 2019 (in page)

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : রেল যাত্রীদের গলার কাঁটা হয়ে দাঁড়িয়েছে বাংলাদেশ রেলওয়ের কম্পিউটার নেটওয়ার্ক সিস্টেম (সিএনএস)।  

অনলাইনে রেলের টিকিট কেনার জন্য সিএনএস ওয়েবসাইট ব্যবহার করেন যাত্রীরা। সম্প্রতি যে নতুন মোবাইল অ্যাপ আনা হয়েছে সেটিরও দেখভাল করে সিএনএসবিডি। কিন্তু সেসব সেবা নিয়ে অভিযোগের শেষ নেই যাত্রীদের। 

সোমবার সকাল থেকেই সিএনএসবিডিওর ওয়েবসাইটে কেউ প্রবেশ করতে পারছে না। আবার অনেকেই টিকিট কাটতে গেলে সার্ভার আন্ডার মেইনটেন্যান্স দেখতে পান।  

সিএনএস চুক্তিভিত্তিক বাংলাদেশ রেলওয়ের সবধরনের প্রযুক্তিগত সমাধান দিয়ে আসছে।

রেল ভক্তদের অন্যতম বড় গ্রুপ বাংলাদেশ রেলওয়েতে গিয়ে দেখা যায় অনেক যাত্রী সকাল থেকেই গ্রুপটিতে সিএনএসের বিরুদ্ধে অভিযোগ করেছেন। 

মোহাম্মদ আসিফ নামের একজন ১২টা ৩৫ মিনিটে গ্রুপটিতে পোস্ট করছেন, প্রতি ঈদের আগে সার্ভার মেইনটেন্যান্স করা লাগে কেন? আর বাকি ১২ মাস ঘাষ কাটে সিএনএসবিডি। এই সার্ভার মেইনটেন্যান্স নামের ভোগান্তি কবে শেষ হবে? টিকিট শেষ হবার পর মেইনটেন্যান্স কমপ্লিট হবে মনে হচ্ছে। এসব দেখার কেউ নাই…। 

সাদ্দাম বিন ওমন সৈকত লিখেছেন, সিএনএসকে যেন স্থায়ীভাবে মৃত ঘোষণা করা হয়। সৎকার এবং মৃত্যুপরবর্তী ভোজসভার আয়োজন আমরা যাত্রীরা নিজ দায়িত্বে করবো। সিএনএস-এর আপাদমস্তক গলদ। অবিলম্বে সিএনএসকে ঝেঁটিয়ে বিদায় করা দরকার। তাই বলে এই কাজ যেন আবার টাইগার আইটিকে না দেয়া হয় , তাহলে কুকুরের কাছে থেকে মুরগি নিয়ে শিয়ালের কাছে দেয়ার মত হয়ে যাবে।

গ্রুপে ‘SERVER UNDER MAINTENANCE’ এসব ফাজলামি আর ইতরামি কবে বন্ধ হবে? লিখেছেন আবদুল্লাহ আল মাসউদ। 

রাশেদুল হক নামের এক ব্যক্তি গ্রুপে সার্ভার মেইনটেন্যান্সের কথা জানিয়ে লিখেছেন, সার্ভার মেইনটেন্যান্সের সময়ও অনলাইনের টিকিটগুলো কে কাটছে, কই যাচ্ছে?

 

রিমা ইসলাম গ্রুপে পোস্ট করে জানতে চেয়েছেন, রেল সেবা অ্যাপ এবং ওয়েবসাইট দুটোতেই টিকিট কাটা যাচ্ছে না। সার্ভার আন্ডার মেইনটেন্যান্স এই দেখাচ্ছে দুটোতেই সকাল থেকে। তাহলে কি অনলাইনে টিকিট কাটা যাবে না? এই দুটি ছাড়া অন্য কোন পদ্ধতি আছে টিকিট কাটার?

সকাল থেকেই সিএনএসবিডির ওয়েবসাইটে প্রবেশের চেষ্টা করেও প্রবেশ করা যায়নি। 

তবে সিএনএসবিডি নিয়ে এমন অভিযোগ নতুন নয়। দীর্ঘদিন থেকেই তাদের বিরুদ্ধে অনলাইনে টিকিট কাটা নিয়ে অভিযোগ ছিল। সর্বশেষ গত মাসের ২৮ তারিখ রেলসেবা নামের অ্যাপটি লঞ্চ করে বাংলাদেশ রেলওয়ে। কিন্তু সেই অ্যাপে নিবন্ধন করা, নিবন্ধনের পরও অনেকেই প্রবেশ করতে না পারা এবং এক দিনের টিকিট কাটার পর সেই টিকিটের কনফারমেশন যাত্রার তারিখের পর আসাসহ অনেক ধরনের অভিযোগ আসতে থাকে। 

অনেক গ্রাহক অভিযোগ জানাতে জাতীয় কল সেন্টারে কল করলেও কোন সমাধান পাননি। আর সার্ভার মেইনটেন্যান্সের মতো বিষয় নিয়ে কল সেন্টার থেকে সেটি সাময়িক বলেও জানানো হয়। 

ইএইচ/মে২০/২০১৯/ ১৪০০

*

*

আরও পড়ুন