২৪ ঘণ্টা অভিযোগ নেবে বিটিআরসি

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : শর্টকোড ১০০ এ ২৪ ঘন্টা অভিযোগ নেয়ার ব্যবস্থা চালু করতে যাচ্ছে বিটিআরসি। 

এতে টেলিকম সেবা সংক্রান্ত অভিযোগ জানানোর পরিসর আরও বড় হচ্ছে। ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বারের নির্দেশনায় গ্রাহক সেবার এই কলেবর বৃদ্ধি। 

বর্তমানে ১০০ নম্বরে ডায়াল করে কেবল অফিস চলাকালে অভিযোগ দেয়া  যায়। 

ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার টেকশহরডটকমকে জানান, এতে গ্রাহক যখন সমস্যা তখনই অভিযোগ জানাতে পারবে, নিজের মতো সময়ে। এছাড়া আরও বেশি অভিযোগ নিতে পারবে বিটিআরসি যা টেলিকমে ভাল গ্রাহক সেবায় ভূমিকা রাখবে।   

বিটিআরসি এখন অফিস চলাকালে যেভাবে সেবা দেয় তাতে তাদের বছরে খরচ হচ্ছে মাত্র আট লাখ টাকা। তবে ২৪ ঘন্টার জন্যে সেবাটি চালু করতে হলে খরচ হবে ২২ লাখ টাকা।

ইম্পেল সার্ভিস অ্যান্ড সলিউশন লিমিটেড বা আইএসএসএল নামের একটি কোম্পানির কাছ থেকে এই অভিযোগ গ্রহণের সেবা নিয়ে আসছে নিয়ন্ত্রণ সংস্থাটি।

কোম্পানিটি একেকটি সিটে প্রতি ঘন্টার জন্যে চার্জ করে ৭৮ টাকা।

এখন বিটিআরসি প্রতিদিন ১০টি করে সিট নেবে যার সকালের পালায় চারটি, বিকালের পালায় চারটি এবং রাতের পালায় দুটি সিট থাকবে। ফলে তখন চাইলে যে কোনো সময় যে কোনো সমস্যায় গ্রাহকরা বিটিআরসির কাছে ১০০ নম্বরে ফোন করে অভিযোগ জানাতে পারবেন।

সাম্প্রতিক অভিযোগ গ্রহণ প্রক্রিয়া সহজ করার কারণে মোবাইল ফোন অপারেটরগুলোর বিভিন্ন সেবা নিয়ে গত এক বছরে বিটিআরসি ৭ হাজার ৯০৮ টি অভিযোগ পেয়েছে।

২০১৮ সালের মে হতে ২০১৯ সালের এপ্রিল পর্যন্ত সময়ে এসব অভিযোগ জমা পড়ে বিটিআরসির কাছে।

অভিযোগের মধ্যে সিম বার, নেটওয়ার্ক ইস্যু, কোয়ালিটি অব সার্ভিস, ট্যারিফ রেট, রিচার্জ বা বিলিং, ডেটা ভলিউম ব্যবহার, এসএমস, ডেটার গতি, মোবাইল ফিন্যান্সিয়াল সার্ভিস, প্রতারণামূলক কার্যক্রম, প্যাকেজ মাইগ্রেশন, কলড্রপ, কুইজ বা প্রাইজ বা অ্যাওয়ার্ড, সোশ্যাল মিডিয়া ও সাইবার সম্পর্কিতসহ বেশ কিছু বিষয় রয়েছে।

এতে গ্রামীণফোন নিয়ে অভিযোগ ২ হাজার ৪১৩টি, রবি ও এয়ারটেলের ৩ হাজার ৪২৭, বাংলালিংকের ১ হাজার ১৫৭ এবং টেলিটকের ৯১১টি অভিযোগ ছিল। 

অভিযোগের মধ্যে সিম বার সম্পর্কিত অভিযোগই বেশি। 

বিটিআরসি এসব অভিযোগের বেশিরভাগই সমাধান করেছে। মাত্র ৫১৮ টি অভিযোগ এই সময়ে সমাধান হয়নি বা সমাধানের অপেক্ষায় রাখা হয়েছিল।

আইজেডএম/এডি/মে২১/২০১৯/১৫০০ 

*

*

আরও পড়ুন