STE 2019 (summer) in news page

ভয়েস থেকে ডেটা কলে যাচ্ছে মানুষ : জব্বার

Laptop fair 2019 (in page)

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : টেলিকম খাতের বিকাশের ফলে এখন মানুষ ভয়েস কল কমিয়ে দিয়ে ডেটা কলে ঝুঁকছে, বলেছেন ডাক,টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার।

তিনি বলেন, ফাইভজির ব্যবহার শুরু হলে প্রচলিত ব্রডব্যান্ড সেবাদানকারী  প্রতিষ্ঠানের প্রয়োজনীয়তা থাকবে কীনা সেটাও ভাববার সময় এসেছে।  এছাড়াও ভবিষ্যতের পৃথিবীতে ফোন অপারেটর ছাড়াই বিশেষ ফোনে কথা বলার প্রযুক্তিও আবিস্কৃত হচ্ছে।

টেলিযোগাযোগ ও তথ্য সংঘ দিবসের আলোচনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হয়ে যোগ দিয়ে শনিবার রাজধানীর একটি হোটেলে এমন বক্তব্য দেন মন্ত্রী।

ডাক, টেলিযোগাযোগ মন্ত্রণালয় আয়োজিত অনুষ্ঠানে টেলিযোগাযোগ ও তথ্য সংঘ দিবসের এ বছরের প্রতিপাদ্য ‘ ব্রিজিং  দি  স্টান্ডার্ডাইজেশন গ্যাপ’ অত্যন্ত সময়োপযোগী বলে উল্লেখ করেন তিনি।

তিনি বলেন, আমাদের জন্য বড় চ্যালেঞ্জ হচ্ছে বিপুল  মানব সম্পদকে সঠিকভাবে ব্যবহার করা।

মোস্তাফা  জব্বার স্বাধীনতার  মাত্র দুই বছরের  মধ্যে ১৯৭৩ সালে
আইটিইউয়ের সদস্য পদ অর্জনে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর দূরদৃষ্টি সম্পন্ন
ভূমিকা তুলে ধরেন।

তিনি বলেন, যুদ্ধের  ধ্বংসস্তুপের ওপর দাঁড়িয়েও বহির্বিশ্বের সঙ্গে টেলিযোগাযোগ সংযোগ সুদৃঢ় করতে ১৯৭৫ সালের ১৪ জুন বেতবুনিয়ায় ভূ-উপগ্রহ কেন্দ্র  প্রতিষ্ঠা  করে টেলিযোগাযোগ উন্নয়নের মাইল ফলক স্থাপন করেন।

তারই উত্তরসূরী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণের ধারাবাহিকতায় ৫৭তম দেশ হিসেবে মহাকাশে স্যাটেলাইট পাঠানো সম্ভব হয়েছে, বলেন জব্বার।

বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের চেয়ারম্যান মো. জহিরুল হকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে  তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ  আহমেদ  পলক, ডাক ও টেলিযোগাযোগ  বিভাগের সচিব  অশোক কুমার বিশ্বাস এবং আইএসপিএবি সভাপতি এম এ হাকিম বক্তৃতা করেন।

তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী পলক বলেনস, বর্তমান বিশ্বায়নের যুগে  তথ্যপ্রযুক্তি এবং টেলিযোগাযোগ ব্যবস্থা  উন্নয়ন  ও অগ্রগতির অন্যতম প্রধান হাতিয়ার। শিক্ষা, চিকিৎসা, কৃষি, ব্যবসা বাণিজ্যসহ সর্বক্ষেত্রে তথ্যপ্রযুক্তির প্রভাব অনস্বিকার্য।

বিশ্ব টেলিযোগাযোগ ও তথ্য সংঘ দিবস ২০১৯ উপলক্ষে আয়োজিত রচনা
প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের মধ্যে মন্ত্রী সনদ বিতরণ করেন। এরপর স্মারক ডাকটিকিট অবমুক্ত করেন মন্ত্রী।

গতকাল ১৭ মে ছিল বিশ্ব টেলিযোগাযোগ ও তথ্য সংঘ দিবস। দিবসটি পালক করতে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন এবং মন্ত্রণালয় কয়েকদিন ব্যাপী বিভিন্ন অনুষ্ঠান আয়োজন করেছে।

ইএইচ/মে ১৮/২০১৯/২৩৩৩

*

*

আরও পড়ুন