সহ-প্রতিষ্ঠাতার সঙ্গে একমত নন জাকারবার্গ

crish-mark-techshohor
Robi Before feture image

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : ফেইসবুকের সহ-প্রতিষ্ঠাতা ক্রিস হিউজ প্রতিষ্ঠানটির ক্ষমতা কমিয়ে আনার পক্ষে মত দিলেও তা নিয়ে দ্বিমত প্রকাশ করেছেন মার্ক জাকারবার্গ।

তার ভাষ্য, ফেইসবুক ভেঙে এর পরিধি কমিয়ে ফেললেই সব সমস্যার সমাধান হবে না।

ফেইসবুকের সাবেক সিইও ক্রিস হিউজের লেখা অপ-অ্যাড নিউইয়র্ক টাইমে প্রকাশিত হয় বৃহস্পতিবার। সেখানে তিনি ফেইসবুককে ভাঙার পক্ষে মত দেন। ফেইসবুকের মালিকানাধীন ইনস্টাগ্রাম ও হোয়াটসঅ্যাপকে স্বাধীন কোম্পানি হিসেবে পরিচালনা করার প্রস্তাব দিয়েছেন তিনি।

নতুন কোনো র্স্টাটআপ কেনার ক্ষেত্রেও ফেইসবুকের ওপর কয়েক বছরের নিষেধাজ্ঞা আরোপের আহবান জানিয়েছেন। সব প্রযুক্তি কোম্পানিকে নিয়ন্ত্রণের জন্য স্বাধীন একটি সরকারি সংস্থা প্রতিষ্ঠার দাবি জানান তিনি।একইসঙ্গে তিনি বলেন, ফেইসবুক সিইও মার্ক জাকারবার্গ কোম্পানির আয় বাড়াতে গিয়ে নিরাপত্তা বিসর্জন দিচ্ছেন। তবে তিনি এটাও বলেন, জাকারবার্গ মানুষ হিসেবে ভালো। তবে তার হাতে সব ক্ষমতা কেন্দ্রীভূত। এই ক্ষমতার জন্য তাকে জবাবদিহি করতে বাধ্য করা যায় না। কিন্তু সরকারের দিক থেকে চিন্তা করলে অবশ্যই মার্ক সব কিছুর জন্য দায়ী।

ফেইসবুকের গ্লোবাল অ্যাফেয়ার্স ও কমিউনিকেশনের ভাইস প্রেসিডেন্ট নিক ক্লেগের মতে, ফেইসবুকের আসল সমস্যা এর আকার নয়। এই বিশাল পরিধির কারণেই মানুষের কাছে ফেইসবুক পৌঁছাতে পারে। গত কয়েক বছর ধরে ফেইসবুক ভুয়া খবর, বিদ্বেষ ছড়ানো কনটেন্ট, ব্যবহারকারীদের তথ্যের নিরাপত্তা দেওয়া, জঙ্গিবাদ ও জঙ্গিবাদকে সমর্থন করা পোস্ট সরিয়ে যাচ্ছে। কিন্তু কোনো ছোট কোম্পানি হলে এসব মোকাবিলা করা অসম্ভব।

যদিও ক্রিস হিউজের মতে, ফেইসবুক ছোট কোনো কোম্পানি হলে এতো সমস্যাই থাকতো না। কারণ যেসব সমস্যার সমাধান ফেইসবুক করতে চাচ্ছে সেগুলো কোনো ছোট কোম্পানির সমস্যা নয়।

ফেইসবুকের উন্নয়নে মার্ক জাকারবার্গ ২০০২ সালে কাজে নিয়োগ দিয়েছিলো ক্রিস হিউজকে। ফেইসবুকের অনেক জনপ্রিয় ফিচারই তার তৈরি করা। ২০০৭ সালে বারাক ওবামার নির্বাচনী প্রচারণায় স্বেচ্ছাসেবক হিসেবে কাজ করতে তিনি ফেইসবুক ছেড়ে দেন।

দ্য ভার্জ অবলম্বনে এজেড/ মে ১২/২০১৯/১৩

*

*

আরও পড়ুন