রাইড শেয়ারিংয়ের আদলে বাইক ভাড়ার উদ্যোগ পাঙ্খা

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : রাইড শেয়ারিংয়ের আধিপত্য এখন কেমন সেটি রাজধানীর ঢাকার রাস্তায় নামলেই দেখা যায়। তবে শুধু রাজধানী নয়, এখন রাইড শেয়ারিং সেবাটি চালু আছে বিভাগীয় শহর সিলেট এবং চট্টগ্রামেও। 

দেশে যখন রাইড শেয়ারিংয়ের এই রমরমা অবস্থা ঠিক তখনই এর ধারণাকে কাজে লাগিয়ে নতুন একটি উদ্যোগ নিয়েছেন অর্ণব আদিত্য মামুন।

তিনি শুরু করেছেন অনলাইনের মাধ্যমে পর্যটকদের জন্য বাইক ভাড়া দেবার উদ্যোগ। নাম দিয়েছেন ‘পাঙ্খা’। 

কেন এমন উদ্যোগ

উদ্যোগটি নেওয়ার মূল উদ্দেশ্য হচ্ছে, পর্যটকরা যাতে খুবই স্বাচ্ছন্দ্যে ঘুরে বেড়াতে পারেন এবং সহজেই এক স্থান থেকে অন্য স্থানে যেতে পারেন।আপাতত সিলেটে পাঙ্খ সার্ভিসটি শুরু করেছেন অর্ণব।

তিনি জানান, দেশে যে কয়েকটি অঞ্চল পর্যটনে বিখ্যাত তার মধ্যে সিলেট একটি। এখানে টিলা, পাহাড়ি এলাকা এবং ঝর্ণা রয়েছে। ফলে এমন অনেক স্থানে গাড়িতে বা পায়ে হেঁটে যাওয়া খুব কষ্টসাধ্য। সেখানে যদি বাইক থাকে তবে সহজেই স্থানগুলোতে যাওয়া যাবে। এমন চিন্তা থেকেই পাঙ্খা সার্ভিসটি শুরু করেন তিনি। 

প্রতিদিন সিলেটে আসা হাজার হাজার পর্যটকরা যেন নিশ্চিন্তে পুরো সিলেট ঘুরে বেড়াতে পারে নিজেদের মতো করে সে চিন্তা থেকেই এই সার্ভিস শুরু করা, বলেন  অর্ণব। 

তিনি বলেন, শুধু ড্রাইভিং লাইসেন্সের ফটোকপি দিয়েই বাইকটি নিতে পারবেন। এতে কোন চালক থাকবে না। যিনি বাইকটি ভাড়ায় নেবেন তাকেই এটি চালাতে হবে। সে ক্ষেত্রে দুজন অনায়াসে ঘুরে বেড়ানো যাবে।

কিভাবে পাবো পাঙ্খা 

পাঙ্খার বাইক বুক করা যাবে অনলাইনেই। সেজন্য রয়েছে ওয়েবসাইট। ওয়েবসাইটে গিয়ে (pangkhaa.com) পাঙ্খার বাইক বুক করা যাবে। এছাড়াও সরাসরি পাওয়া যাবে সিলেটে গিয়ে পাঙ্খার কার্যালয়ে। 

ভাড়া কিভাবে, কত

পাঙ্খার বাইক অনলাইনে বুক করে নেয়া যাবে ২৪ ঘণ্টার হিসেবে। আবার ঘণ্টা চুক্তিও পাওয়া যাবে বাইক। এক দিনের জন্য বাইক নিতে হলে গুনতে হবে ৯০০ টাকা। তবে সেক্ষেত্রে তেল খরচা যিনি বাইকটি ভাড়া নেবেন তাকেই বহন করতে হবে। 

অন্যদিকে ঘণ্টা চুক্তি যে সার্ভিসটি, তার জন্য গ্রাহককে গুনতে হবে ২০০ টাকা। 

পরিকল্পনা বড়

শুরুতে মাত্র চারটি বাইক রয়েছে পাঙ্খার। এর পরিমাণ আরও বাড়ানো হবে বলে জানান অর্ণব। তবে ছোট আকারে শুরু করলেও পরিকল্পনা রয়েছে অনেক বড়। অর্ণব জানান, সিলেটে শুরু করেছি, তবে এটা শুধু সিলেটেই রাখতে চাই না। পরিকল্পনা রয়েছে, এটিকে বড় আকারে কক্সবাজারে সেবা দেবার। 

এছাড়াও বেশি বাইক হলে রাইড শেয়ারিংয়ের আদলে একটা নতুন সার্ভিস দেবার পরিকল্পনার কথা জানান তিনি। তবে সে পরিকল্পনা সম্পর্কে এখনি বিস্তারিত কিছু জানাতে চান না অর্ণব। 

পাঙ্খার মাধ্যমে পর্যটন এলাকায় কর্মসংস্থান বাড়ানোর জন্যও কাজ করার কথা জানান অর্ণব। 

ইএইচ/মে১৮/ ২০১৯/ ১২৪৩

 

*

*

আরও পড়ুন