তরুণদের কাজের সুযোগ দিতেই বিপিও সম্মেলন

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : দেশের তরুণদের বিপিও খাতে চাকরির সুযোগ দিতে এবং দেশীয় ও আন্তর্জাতিক বাজারে খাতটির অবস্থানকে তুলে ধরতে শুরু হচ্ছে বিপিও সম্মেলন।

আগামী রোববার ও সোমবার চতুর্থবারের মতো অনুষ্ঠিত হবে সম্মেলনটি।
বৃহস্পতিবার রাজধানীর আগারগাঁওয়ের আইসিটি টাওয়ারের তথ্য ও প্রযুক্তি অধিদফতরের সম্মেলন কক্ষে সংবাদ সম্মেলন করে আয়োজন সম্পকেৃ বিস্তারিত তুলে ধরা হয়।

সংবাদ সম্মেলনের প্রধান অতিথি ছিলেন তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগের সচিব এনএম জিয়াউল আলম। তিনি বলেন, তরুণদের কাছে দেশের প্রযুক্তি খাতকে তুলে ধরার জন্য এ আয়োজন করা হয়েছে। গত তিনবারের চেয়ে এবারের বিপিও সামিট আরও বড় পরিসরে আয়োজন করা হয়েছে। প্রযুক্তি সেক্টরে তরুণদের কাজে লাগানোর সুযোগ রয়েছে। তরুণ্যের শক্তিতে কাজে লাগিয়ে দেশকে এগিয়ে নিতে হবে। সরকারের পাশাপাশি বেসরকারী প্রতিষ্ঠানকে ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ে তোলার জন্য কাজ করতে হবে।

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি অধিদপ্তরের মহাপরিচালক এবিএম আরশাদ হোসেন বলেন, সারা বিশ্বে বিপিও’র বড় বাজার রয়েছে। দেশেও খাতটিতে ব্যাপক কাজ শুরু হয়েছে। এবারের সম্মেলনের মাধ্যমে দক্ষ তরুণদেরকে খুঁজে বের করা হবে। সরকারের পক্ষ থেকে প্রযুক্তি উন্নয়নের জন্য বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে। ভবিষ্যতে এটা আরও বৃদ্ধি করা হবে।
দুই দিনব্যাপী বিপিও সম্মেলনের আয়োজন করছে বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব কলসেন্টার অ্যান্ড আউটসোর্সিংয়ের বা বাক্য এবং তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি অধিদপ্তর।

বাক্য সভাপতি ওয়াহিদ শরীফ বলেন, ২০১৫ সালেও বিপিও খাত সম্পর্কে জনগণের তেমন ধারণা ছিল না। যেটা বিগত আয়োজনগুলো থেকে সবাই বিষয়টি সম্পর্কে অবগত। বিপিও খাতের উন্নয়নের জন্য এ সামিট গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা পালন।

বাক্যের সাধারণ সম্পাদক তৌহিদ হোসেন বলেন, সব শ্রেণীর মানুষের চাকরির সুযোগ রয়েছে বিপিও খাতে। বিপিওতে দেশের যেকোনো জায়গায় বসে কাজ করার সুযোগ রয়েছে। বিপিও সামিটে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে দক্ষ তরুণদের এনে চাকরির দেওয়ার ব্যবস্থা রয়েছে।

অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের অতিরিক্ত মহাপরিচালক মালিহা নার্গিস, বাক্যের সিনিয়র সহসভাপতি আবুল খায়ের, সহসভাপতি তানভীর ইব্রাহিম, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক তানজিরুল বাশার, অর্থ সম্পাদক আমিনুল হকসহ অনেকে।

রোববার রাজধানীর প্যান প্যাসিফিক সোনারগাঁওয়ে দুই দিনের বিপিও সামিট বাংলাদেশ ২০১৯ উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রীর তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ।

আয়োজনে দেশি-বিদেশি তথ্যপ্রযুক্তিবিদ, সরকারের নীতিনির্ধারক, গবেষক, শিক্ষার্থী এবং বিপিও খাতের সঙ্গে জড়িতরা অংশ নেবেন।

এবারের আয়োজনে ৪০ জন স্থানীয়, ২০ জন আন্তর্জাতিক বক্তা অংশ নেবেন। এবারের বিপিও সামিটে ১৩টি সেমিনার ও কর্মশালা অনুষ্ঠিত হবে। দুই দিনের মূল্য আয়োজনের আগে ৩০টি বিশ্ববিদ্যালয়ের অ্যাক্টিভেশন কার্যক্রম অনুষ্ঠিত হবে।

ইএইচ/এপ্রিল ১৮/২০১৯/ ১৯২২

*

*

আরও পড়ুন