Techno Header Top and Before feature image

হুয়াওয়ে ওয়াই৬ প্রো : কম দামে মানানসই ফোন

Evaly in News page (Banner-2)

তুসিন আহমেদ, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : নতুন ফ্ল্যাগশিপ ফোন এনে বেশ কিছু দিন থেকে আলোচনায় হুয়াওয়ে। পাশাপাশি কম বাজেটের ওয়াই৬ প্রো ক্রেতাদের কতটা উপযোগী, সেটির ব্যবহার অভিজ্ঞতা থাকছে এ রিভিউতে।

শীর্ষস্থানীয় চীনা স্মার্টফোন ব্র্যান্ডের ওয়াই৬ প্রো মডেলের স্মার্টফোনটি সম্প্রতি দেশের বাজারে এসেছে। এক  সপ্তাহ ব্যবহারের অভিজ্ঞতা থেকে দেখা যাক একেবারে কম বাজেটের ফোন হিসেবে এটি ভালো-মন্দে কতটা সফল।    

ডিজাইন

স্মার্টফোন হাতে নিয়ে প্রথমে সবাই এর ডিজাইন দেখেন। বাজেট ফোন হলেও হুয়াওয়ে ওয়াই৬ প্রো ২০১৯ সংস্করণের ফোনটি দেখে ভালোই লাগবে। এতে রয়েছে নচ ডিসপ্লে। নচের ঠিক উপরে থাকা বেজেলে রয়েছে ছোট নোটিফিকেশন লাইট। ডিজাইন সুন্দর হওয়ায় চট করে কেউ বুঝতে পারবে না এটি কম দামের ফোন।

ফোনের পেছনে বাম কোনায় রয়েছে ক্যামেরা ও ফ্ল্যাশ। ডানে রয়েছে ভলিউম আপ-ডাউন ও পাওয়ার বাটন। বামে রয়েছে কার্ড স্লট। সেখানে একত্রে দুটি সিম এবং একটি মাইক্রো এসডি কার্ড ব্যবহার করা যাবে।

ফোনটির উপরের দিকে রয়েছে ৩.৫ এমএম হেডফোন জ্যাক। নিচের দিকে রয়েছে মাইক্রো ইউএসবি পোর্ট। এর পাশে রয়েছে বেশ ভালো সাউন্ড পাওয়া যায় এমন স্পিকার।

ডিসপ্লের নিচের অংশে হুয়াওয়ের লোগো সম্বলিত একটি বড় বেজেল চোখে পড়বে। বেজেলটি আরেকটু কমিয়ে আনা গেলে সম্পূর্ণ ডিসপ্লটি আরও বেশি আকষর্ণীয় মনে হতো। আমাদের হাতে আসা রিভিউ ইউনিটটি অ‍্যাম্বার ব্রাউন রঙের, যা দেখতে অনেকটা লেদার ফিনিশিং মনে হবে।

এ ছাড়া ফোনটি মিডনাইট ব্ল‍্যাক ও শেফায়ার ব্লু রঙে পাওয়া যাবে। এতে ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর না থাকলেো ফেইস আনলক সুবিধা রয়েছে। এটি আলোতে ভালো কাজ করলেও স্বল্প আলোতে ব‍্যবহার করা দুষ্কর।

ডিসপ্লে

ফোনটিতে রয়েছে ৬.০৯ ইঞ্চি আইপিএস এলসিডি ডিসপ্লে। এর রেজুলেশন ৭২০×১৫৬০ পিক্সেল। রেশিও ১৯.৫:৯ এবং ডিসপ্লেটি ২৮২ পিপিআই ডেনসিটি সমৃদ্ধ।

ইদানিং অনেকেই কম্পিউটারের তুলনায় স্মার্টফোনে ভিডিও বেশি দেখেন। তাদের জন‍্য বাজেট হিসেবে ভালো ফোন হতে পারে এটি। বড় ডিসপ্লে হওয়ার কারণে মুভি বা ইউটিউবে ভিডিও দেখতে তেমন অসুবিধা হবে না।

নচ থাকায় ইউটিউবে ভিডিও দেখার সময় ডিফল্ট হিসেবে প্লেব‍্যাক ভিডিওটি ছোট থাকবে। তবে জুম করে তা বড় করে নেওয়া যাবে। সেক্ষেত্রে ভিডিও’র কিছু অংশ নচে কাটা পড়বে। তবে বিষয়টি সহনীয়। কিছুদিন ব‍্যবহারে অভ‍্যস্ত হয়ে যাবেন ব‍্যবহারকারীরা।

অনেক ব‍্যবহারকারীরা নচ পছন্দ করেন না। তাদের জন‍্য ফোনটির ডিসপ্লে সেটিংস অংশে রয়েছে নচ লুকিয়ে ফেলার সুবিধা।

ফোনের অতিরিক্ত আলো যেন ব‍্যবহাকারীদের চোখের ক্ষতি না করে সেজন‍্য রয়েছে আই কনফোর্ট অপশন। ফিচার চালু করলে ফোনে আলো কিছুটা কমে যাবে। ফোনটি ভিউ অ্যাঙ্গেল বেশ ভালো, দিন বা রাতের আলোতে ভিডিও দেখতে তেমন অসুবিধা হবে না।

পারফরমেন্স

এতে ব্যবহার করা হয়েছে ১২ ন‍্যানোমিটারের কোয়াডকোর মিডিয়াটেক এমটি৬৭৬১ প্রসেসর। গেইমিং সুবিধা দিতে রয়েছে পাওয়ারভিআর জিপিইউ।

৩ গিগাবাইট র‍্যাম ও ৩২ গিগাবাইট ইন্টারনাল মেমোরির সংস্করণে মিলবে ডিভাইসটি। ৬৪ ও ১২৮ গিগাবাইট ইন্টারনাল মেমোরির সংস্করণেও পাওয়া যাবে। চাইলে ৫১২ গিগাবাইট পর্যন্ত মাইক্রো এসডি কার্ড ব্যবহার করা যাবে।

কোনো অ‍্যাপ চালু না থাকা অবস্থায় এতে ৩ গিগাবাইটের মধ‍্যে ১.৩ গিগাবাইট র‍্যাম খালি পাওয়া গেছে। গিগবেঞ্চ অনুযায়ী, ডিভাইসটি সিঙ্গেলকোরে ৮৩৩ পয়েন্ট এবং মাল্টিকোরে ২৩৮১ পয়েন্ট পেয়েছে।

কম গ্রাফিক্সের গেইম খেলতে তেমন অসুবিধা হয়নি। কোনো গেইম দীর্ঘক্ষণ খেললে ল‍্যাগ হওয়া স্বাভাবিক, এটিতে তাই দেখা গেছে।

Huawei y6 pro

ডিভাইসটিতে পাবজি খেলা যাবে লো গ্রাফিক্সে, তবে খেলতে গিয়ে ফ্রেম ড্রপ করছে। হাই গ্রাফিক্সের পাবজি খেলা মুশকিল এতে। 

অপারেটিং সিস্টেম হিসেবে রয়েছে অ‍্যান্ড্রয়েড ৯.০ পাইয়ের উপর কাস্টমাইজ ইএমইউআই ৯। সব মিলিয়ে মাঝারি বাজেটের ফোন হিসেবে পারফরমেন্স বেশ ভালো। 

ক‍্যামেরা

ডিভাইসটির পেছনে রয়েছে এফ/১.৮ অ‍্যাপাচারের ১৩ মেগাপিক্সেল ক‍্যামেরা ও এলইডি ফ্ল‍্যাশ, যা দিয়ে ৩০ এফপিএসে এইচডি ভিডিও রেকর্ড করা যাবে।

ক‍্যামেরায় রয়েছে এআই প্রযুক্তি। দিনের আলোয় ছবির মান ভালো, বিশেষ করে আলো-ছায়ায় ভরা দৃশ্যের ছবিও এটি সহজেই এইচডিআর ব্যবহার করে মানসম্মতভাবে তোলা যায়। কালার ও ডাইনামিক রেঞ্জও ভালো।

ইনডোর ছবিও খারাপ আসে না ডিভাইসটি দিয়ে। লাইট কম পেলে ছবির ডিটেইল কিছুটা কমে যায়। ফোকাস ঠিকভাবে পায় না এবং অনেক বেশি নয়েজ দেখা যায়।

ফোনটির সামনে রয়েছে এফ/২.০ অ‍্যাপাচারের ৮ মেগাপিক্সেল ক‍্যামেরা ও ফ্ল‍্যাশ। এটি ব্যবহার করে ভালো সেলফি তোলা সম্ভব। ফ্ল‍্যাশ থাকায় রাতের অন্ধকারে অসুবিধা হবে না ছবি তুলতে।

ব‍্যাটারি

ফোনটিতে রয়েছে ৩ হাজার ২০ মিলি‍অ‍্যাম্পিয়ার ব‍্যাটারি। স্বাভাবিক ব‍্যবহারে অনায়াসে এক দিন ব‍্যাকআপ দেবে। খুব বেশি ব‍্যবহারে অর্থাৎ টানা ইন্টারনেট বা ব্লুটুথ চালু থাকলে ৫-৭ ঘণ্টা ব‍্যাকআপ পাওয়া যাবে। নেই ফাস্ট চার্জিং সুবিধা।

মূল‍্য

এক বছরের ওয়ারেন্টিসহ ফোনটির দাম ১২ হাজার ৯৯৯ টাকা।

এক নজরে খারাপ

ফোরকে ভিডিও সুবিধা নেই

ফাস্ট চার্জিং সুবিধা নেই

ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর নেই

এক নজরে ভালো

ডিজাইনে দারুণ

ওয়াটার ড্রপ নচ ডিসপ্লে

সামনের ক‍্যামেরায় ফ্ল‍্যাশ

অ‍্যান্ড্রয়েডের সর্বশেষ সংস্করণ

স্পিকারের সাউন্ডের মান খুব ভালো 

টিএ/ইএইচ/আরআর/মার্চ ৩১/২০১৯/১৭৩০

*

*

আরও পড়ুন