মুসলমানদের উপর নজরদারিতে অ্যাপ! সম্পৃক্ত নয় দাবি মাইক্রোসফটের

Evaly in News page (Banner-2)

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : চীনের সংখ্যালঘু মুসলিম সম্প্রদায়ের ওপর নজরদারি চালানো একটি ফেসিয়াল রিকগনিশন অ্যাপের সঙ্গে মাইক্রোসফটের যোগসূত্র নিয়ে প্রযুক্তি বিশ্বে তোলপাড় চলছে।

যদিও মাইক্রোসফট চীনের এমন কোনও কোম্পানির সঙ্গে অংশীদারিত্বের কথা অস্বীকার করেছে।

চীনা ফেসিয়াল রিকগনিশন অ্যাপটির নাম সেন্সনেটস। অ্যাপটি ফেসিয়াল রিকগনিশন ও ক্রাউড অ্যানালাইসিস করে থাকে। সোজা ভাষায় বলতে গেলে অ্যাপটি একটি বৃহৎ জনগোষ্ঠির মধ্যে অস্বাভাবিক আচরণ সনাক্ত করতে ব্যবহৃত হয়।

অ্যাপটি তাদের অংশীদার অংশে মাইক্রোসফটের লগো ব্যবহার করেছে। তাই মানবাধিকার সংস্থাগুলো এই টেক জায়ান্টের দিকে সন্দেহের আঙ্গুল তোলে।

যদিও মাইক্রোসফটের ভাষ্য কোম্পানিটি অনুমতি না নিয়ে অনৈতিকভাবে অংশীদার হিসেবে তাদের লগো ব্যবহার করেছে। মাইক্রোসফট কোম্পানিটিকে তাদের লগো সরাতেও বলেছে।

চীনের এমন অনৈতিক নজরদারির তথ্য ফাঁস করেন নিরাপত্তা বিশ্লেষক ভিক্টর জেভার্স। গেলো ফেব্রুয়ারি মাসে সেন্সনেটসের বিশাল পরিমানের তথ্য ফাঁস হয়ে গেলে জেভার্স তা বিশ্লেষণ করেন। তিনি খুঁজে পান, প্রায় ২৫ লাখ মানুষের ব্যক্তিগত তথ্য ফাঁস হয়েছে যেগুলো প্রধানত সংগ্রহ করা হয়েছে চীনের জিনজিয়াং প্রদেশ থেকে। এটি চীনের পশ্চিমাঞ্চলের একটি প্রদেশ যেখানে সংখ্যালঘু উইগুর মুসলমান সম্প্রদায়ের একটি বড় অংশের বসবাস।

মানবাধিকার সংস্থাগুলো বলছে, চীনের ক্ষমতাসীন কম্যুনিস্ট পার্টির বিরুদ্ধাচারণের জন্য ১০ লাখ উইঘুর মুসলমানকে তথাকথিত ‘রাজনৈতিক শিক্ষা’ ক্যাম্পে আটক রাখা হয়েছে। বিভিন্ন মানবাধিকার সংস্থা চীনের বিরুদ্ধে এই অভিযোগ খতিয়ে দেখতে তদন্ত করার জন্য জাতিসঙ্ঘের কাছে আবেদন করেছে।

বৃহস্পতিবার এক বিবৃতিতে মার্কিন স্টেট ডিপার্টম্যান্ট চীনের এই ধরনের কাজকে ‘মানবতার জন্য মারাত্মক লজ্জা’ বলে অবিহিত করেছে। যদিও চীনের তরফ থেকে এমন অভিযোগকে বার বার অস্বীকার করা হয়েছে। সেন্সনেটসও এই বিষয়ে কোনও মন্তব্য করতে রাজি হয়নি।

মানবাধিকার সংস্থার প্রতিবেদনে বলা হয় ফেসিয়াল রিকগনিশন চীন সরকারের বৃহত্তর নাগরিক নজরদারি প্রোগ্রামের একটি অংশমাত্র। বৃহৎ আকারে এই ধরনের নজরদারিতে মানুষের ডিএনএর নমুনাও সংগ্রহ করা হচ্ছে।

এই ধরনের নজরদারিতে মাইক্রোসফটের অংশীদারিত্বের সন্দেহ প্রবল হয় যখন জেভার্স সেন্সনেটস সফটওয়্যারের কোডের একটি লাইনে মাইক্রোসফটের সঙ্গে যোগসূত্র পান। যদিও তিনি নিশ্চিত করে বলতে পারেননি এটি মাইক্রোসফটের কোনও ফ্রি ট্রায়াল প্রোগ্রাম ছিলো কিনা।

প্রসঙ্গত, মাইক্রোসফট তাদের ক্লাউড কম্পিউটিং সার্ভিস আজুরভিত্তিক ফেসিয়াল রিকগনিশন সফটয়্যার বিক্রি করে থাকে। বিশ্বব্যাপি যে কেউ এসব সফটওয়্যার কিনে নিজেদের প্রোগ্রামে ব্যবহার করতে পারে। তবে মাইক্রোসফট সেন্সনেটসের সঙ্গে কোনও প্রকার সম্পর্কের কথা অস্বীকার করেছে।

এই বিতর্কটি এমন সময়ে উঠলো যখন মাইক্রোসফটের প্রধান নির্বাহী সত্য নাদেলা ফেসিয়াল রিকগনিশন প্রোগ্রামগুলোর নিরাপদ ব্যবহারের জন্য প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন।

ফেসিয়াল রিকগনিশন ভিত্তিক কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার জন্য মাইক্রোসফটের ছয়দফা ঘোষণাপত্রের মধ্যে ‘আইনানুগ নজরদারি’র পক্ষে কথা বলা হয়েছে।

এমআর/এডি/মার্চ১৬/২০১৯/০১০৩

আরো পড়ুন – 

নতুন এক্সবক্স কনসোল ও স্ট্রিমিং সেবা আনছে মাইক্রসফট 

কর্টানাকে শক্তিশালী করতে স্টার্টআপ কিনছে মাইক্রসফট  

*

*

আরও পড়ুন