লাইসেন্স পায়নি একটিও রাইড শেয়ারিং প্রতিষ্ঠান

ছবি : টেকশহর
Evaly in News page (Banner-2)

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : এখনো দেশে কোন রাইড শেয়ারিং প্রতিষ্ঠানই লাইসেন্স পায়নি। সরকারে  তরফ থেকে যে নীতিমালা করা হয়েছে তা পূরণ করতে না পারায় লাইসেন্স পায়নি প্রতিষ্ঠানগুলো।

মঙ্গলবার জাতীয় সংসদে এক প্রশ্নের উত্তরে এমন কথা আসে সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের পক্ষ থেকে। সংসদের নিয়ম অনুযায়ী কোন মন্ত্রী অনুপস্থিত থাকলে তার বক্তব্য বা প্রশ্নের উত্তরও তার নামেই পরিবেশন হয়।

গত ৩ মার্চ হঠাৎ অসুস্থ হলে সেতু মন্ত্রীকে প্রথমে বঙ্গবন্ধু মেডিকেল বিশ্ববিদ্যাল এবং সোমবার সিঙ্গাপুরের মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এখন তিনি সিঙ্গাপুরে চিকিৎসাধীন।

দেশে ২০১৬ সালের আগেই রাইড শেয়ারিং সার্ভিস চালু হলেও সে বছর উবার, পাঠাও ও সহজের মতো কিছু প্রতিষ্ঠান রাইড শেয়ারিং শুরু করে। তখনই সেটাকে একটা নীতিমালায় আনার কথা ওঠে। কারণ, উবার রাইড শেয়ারিং শুরু করার দুদনি পর বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষ সেটি নিষিদ্ধ করে।

পরে সবকিছু বিবেচনায় নিয়ে সংস্থাটি রাইড শেয়ারিংয়ের লাইসেন্স দিতে নীতিমালা প্রণয়ন হয় গত বছর ১৫ জানুয়ারি।

সংসদে রাইড শেয়ারিং নিয়ে প্রশ্ন করেন নাছিমুল আলম চৌধুরী। তার করা প্রশ্নে মন্ত্রী জানান, রাইড শেয়ারিং সার্ভিস নীতিমালা জারি হওয়ার পর ১৬টি রাইড শেয়ারিং সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠান তালিকাভূক্তির আবেদন করেছে। তবে, নীতিমালার কিছু শর্ত প্রতিপালন না হওয়ায় আবেদিত রাইড শেয়ারিং প্রতিষ্ঠানের বিপরীতে এনলিস্টমেন্ট সার্টিফিকেট ইস্যু করা সম্ভব হয়নি।

মন্ত্রী জানান, প্রতিষ্ঠানগুলোকে খুব শিগগির নীতিমালার শর্ত পূরণের জন্য বলা নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

লাইসেন্স না থাকায় এখন কোন ব্যবস্থাও নেওয়া হচ্ছে। কেন নেওয়া হচ্ছে না তার কারণ জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, নীতিমালা প্রণয়ন ও বাস্তাবায়নের সঙ্গে বাংলাদেশ পুলিশ, নির্বাচন কমিশন (জাতীয় পরিচয়পত্র নিবন্ধন অনুবিভাগ) ও বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের (বিটিআরসি) সংশ্লিষ্টতা রয়েছে।

এর আগে ২০১৭ সালের জুনে নীতিমালা তৈরির উদ্যোগ নেওয়া হয়। একই বছর অক্টোবরে হয় প্রথম খসড়া। এতে সরকারের ১৭টি মন্ত্রণালয় ও সংস্থার মতামত নেয়া হয়। ডিসেম্বরের ১৪ তারিখে খসড়াটি যায় মন্ত্রিপরিষদ বিভাগে। পরে সেটি ২০১৮ সালের ১৫ জানুয়ারি মন্ত্রিসভায় অনুমোন পায়।

ইএইচ/মার্চ০৫/২০১৯/২০১০

*

*

আরও পড়ুন