Header Top

লাফিয়ে বাড়ছে রবিতে ডেটার ব্যবহার

Evaly in News page (Banner-2)

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : ফোরজি চালু হওয়ার পর থেকে রবি’র নেটওয়ার্কে মোবাইল ডেটার ব্যবহার লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে।

একই সঙ্গে তাদের নেটওয়ার্কে বাড়ছে স্মার্টফোনের সংখ্যাও। আর এর পেছনে রয়েছে দেশব্যাপী তাদের ছড়িয়ে পড়া বিস্তৃত ফোরজি নেটওয়ার্ক বলে বলছে প্রতিষ্ঠানটি। আর এসবকিছুর সম্মিলিত ফল হল ডেটা থেকে তাদের আয়ও বাড়ছে, যেটি এখন মোট আয়ের ২৬ শতাংশ।

গত বছর ফেব্রুয়ারিতে দেশে ফোরজি লাইসেন্স দেওয়া হয়। আর তার একদিন পর রবি ৬৪ জেলায় ফোরজি সেবার উদ্বোধন করে।

ফোরজি চালুর সময় পর্যন্ত রবি গ্রাহকের মাসে গড় ডেটার ব্যবহার ছিল ৭১২ মেগাবাইট। আর সেটা বাড়তে বাড়তে ২০১৮ সালের অক্টোবর-ডিসেম্বর প্রান্তিকে এসে দাঁড়িয়েছে এক হাজার ৩৬৪ মেগাবাইট।

সারা বছর যেহেতু ডেটার ব্যবহার কেবল বেড়েই চলেছে সে কারণে বছর শেষে গ্রাহক প্রতি গড় ডেটার ব্যবহার দাঁড়িয়েছে এক হাজার ৭৪ মেগাবাইট।

শুক্রবার রবি’র মূল কোম্পানি আজিয়াটা বছরের যে আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে সেখানে দেখা যাচ্ছে, সর্বশেষ পঞ্জিকা বর্ষে তাদের নেটওয়ার্কে মোট ৩৪৪ দশমিক ৬ টেরাবাইট ডেটার ব্যবহার হয়েছে। যেটা ২০১৭ সালে ছিল ১৫৩ টেরাবাইট।

প্রতিবেদন অনুসারে, ২০১৮ সালে ডেটা থেকে তাদের আয় হয়েছে এক হাজার ৬৯৯ কোটি ৫৬ লাখ টাকা। এক বছর আগেও যেটা ছিল এক হাজার ৩৬৬ কোটি ৯৪ লাখ টাকা।

আবার প্রান্তিক ধরে ধরে হিসাব করলে দেখা যাবে, ২০১৭ সালের শেষ প্রান্তিক অর্থাৎ অক্টোবর-ডিসেম্বর সময়ে তাদের ডেটার আয় ছিল ৪০৯ কোটি ৯ লাখ টাকা, আর ২০১৮ সালের একই সময়ে সেটা চলে আসে ৪৫৮ কোটি ৬৬ লাখে।

অবশ্য ডেটার মূল্য এর মধ্যে কয়েক দফায় কমায় ডেটার ব্যবহার অনেক বাড়লেও সেই তুলনায় আয় খুব একটা বাড়েনি।

রবি অনেক দিন থেকেই দাবি জানিয়ে আসছে, ডেটার নূন্যতম মূল্য বেঁধে দেওয়ার জন্যে। সেটি না হলেও হাজার হাজার কোটি টাকা খরচ করে ফোরজি নেটওয়ার্ক করলেও সেখান থেকে প্রত্যাশিত আয় ঘরে তুলতে পারবে না অপারেটররা।

আজিয়াটার প্রতিবেদনে দেখা যাচ্ছে, সারা দেশে রবির ফোরজি সাইট রয়েছে সাত হাজার ৩৯৬টি। বছর শেষে তাদের নেটওয়ার্কে থাকা হ্যান্ডসেটের ৪১ শতাংশই স্মার্টফোন। 

জেডএ/ইএইচ/ফেব্রু২৩/২০১৯/১৯৫০

*

*

আরও পড়ুন