শিশুদের জন্য ইন্টারনেটে ফিল্টারিং হচ্ছে : মোস্তাফা জব্বার

Evaly in News page (Banner-2)

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : শিশুদের জন্য ইন্টারনেটকে নিরাপদ করতে তা ফিল্টারিং করা হবে বলে জানিয়েছেন ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার।

তিনি বলেছেন, শিশুদের জন্য ইন্টারনেট নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে অ্যাপসহ খারাপ কনটেন্ট ফিল্টারিংয়ের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। পাশাপাশি শিশুদেরকে ইন্টারনেট সম্পর্কে সচেতন করতে প্রাথমিক স্তর থেকে তথ্যপ্রযুক্তি শিক্ষা বাধ্যতামূলক করা হবে।

মঙ্গলবার রাজধানীর কারওয়ান বাজারে জনতা টাওয়ার সফটওয়্যার টেকনোলজি পার্কে ইউনিসেফ আয়োজিত ‘বাংলাদেশে শিশুদের জন্য অনলাইন নিরাপত্তা’ বিষয়ক সমীক্ষা প্রকাশ অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন।

মোস্তাফা জব্বার বলেন, শিশুরা কিভাবে ইন্টারনেট ব্যবহার করে সেটি একটি বড় চ্যালেঞ্জ। আমাদের মনে রাখতে হবে শিশুদের কাছে আমরা কী কনটেন্ট দিচ্ছি।

শিশু উপযোগী কনটেন্ট খুব একটা নেই জানিয়ে তিনি বলেন, শিশুরা পছন্দ করে এমন কনটেন্ট দরকার আমাদের। আসলে শিশুদের জ্ঞান অর্জনের সঙ্গে আমাদের বিদ্যমান পদ্ধতি বিপরীতমুখী। সরকারের এখনকার চেষ্টা হচ্ছে, ইন্টারনেটে শিশুদের সুরক্ষিত ও নিরাপদ রাখা।

এটি করতে গেলে খুব চ্যালেঞ্জ নিতে হবে জানিয়ে তিনি বলেন, খারাপ ও ক্ষতিকর বেশিরভাগ কনটেন্টের উৎস কিন্তু অন্যান্য দেশ। যারা এগুলো দুনিয়াব্যাপী ছড়াচ্ছে তারা তাদের স্ট্যান্ডার্ড মানে। তারা কিন্তু আমাদের স্টান্ডার্ড মানে না, সেটাও নজরে রাখতে হবে।

বিষয়টি নিয়ে অনেক অগ্রগতি হয়েছে জানিয়ে তিনি সংবাদ সম্মেলনে বলেন, আমাদের দেশের আইনের পরিপন্থি এমন অনেক বিষয়ে তারা সম্মান দেখাতে সম্মত হয়েছে।

ইন্টারনেট থেকে শিশুদের নিরাপদ রাখতে অভিভাবকদেরকেও সচেতন থাকার আহব্বান জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, ‘প্যারেন্টাইল গাইড’ নামে ইন্টারনেটের একটা অপশন আছে যা প্রয়োগ করে খারাপ কনটেন্ট থেকে শিশুদের নিরাপদ রাখা সম্ভব।

দেশ এখন কনটেন্ট ফিল্টারিংয়ে সক্ষম জানিয়ে তিনি বলেন, আগামী মার্চে এ প্রযুক্তি চালু করা সম্ভব। তখন পর্নোসহ অন্যান্য খারাপ কনটেন্টের সাইট বন্ধ করে শিশুদের রক্ষা করা সম্ভব হবে।

এছাড়াও সংবাদ সম্মেলনে মন্ত্রী ফাইভজির জন্য নতুন পরিকল্পনা নিয়ে এগোনোর কথাও বলেন।

অনুষ্ঠানে ইউনিসেফের প্রতিনিধি, বিভিন্ন সংস্থার প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

ইএইচ/ফেব্রু৫/২০১৯/১৯০০

*

*

আরও পড়ুন