ভারত সরকার যেভাবে টুইটার ব্যবহার করছে

Narendra Modi selfi-TechShohor
Evaly in News page (Banner-2)

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : সোশ্যাল মিডিয়া, বিশেষ করে মাইক্রোব্লগিং ওয়েবসাইট টুইটার ভারত সরকারের প্রধান প্রচার মাধ্যম হিসেবে কাজ করছে। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি স্বয়ং দুইটি টুইটার অ্যাকাউন্ট পরিচালনা করছেন, যা বিভিন্ন তথ্যের বড় সূত্র হিসেবে কাজ করছে।

ভারতের রাজনীতিবিদদের মধ্যে মোদি সবচেয়ে বেশি প্রযুক্তিপ্রেমী। ক্ষমতায় আসার আগেই তার দল ভারতীয় জনতা পার্টিকে তিনি প্রযুক্তিতে অনেকাংশে এগিয়ে নিয়ে আসেন। সরকারে আসার পরও তিনি একই কাজ করছেন। সোশ্যাল মিডিয়াকে তারা তথ্য প্রচারের মাধ্যম হিসেবে ব্যবহার করছেন।

Narendra Modi selfi-TechShohor

গত ২৬ মার্চ মোদি যখন সরকার গঠন করেন, তখন তার প্রায় ৯০ শতাংশ মন্ত্রণালয় সোশ্যাল মিডিয়ার ব্যবহার শুরু করেছে। প্রধানমন্ত্রী সবাইকে সতর্ক করে দিয়ে বলেন, সরকারের নানা কথা ও তথ্য তাৎক্ষনিকভাবে সাধারণ জনগনের কাছে পৌছে দিতে সোশ্যাল মিডিয়াকে প্রধান গুরুত্ব দিতে হবে।

বিজেপি মন্ত্রীরা এখন তাদের নিজস্ব টুইটার অ্যাকাউন্ট ও ফেইসবুক পেইজ পরিচালনা করেন। পাশাপাশি সাধারণের সঙ্গে যোগাযোগের জন্য প্রেস ইনফরমেশন ব্যুরো (পিআইবি) এর অফিসিয়াল টুইটার অ্যাকাউন্টও পরিচালনা করা হয়।

জনগনের সঙ্গে এই যোগাযোগ এখানেই শেষ নয়। টুইট ও সোশ্যাল মিডিয়া ট্রেন্ড নিয়ে সরকার গবেষনাও করছে।

সূত্র মতে, প্রতিদিনই টুইটার এবং বিভিন্ন সোশ্যাল নেটওয়ার্কের ট্রেন্ড সমন্বয় করে সেটি প্রধানমন্ত্রী, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও অন্যান্য মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়। আর এগুলোর মাধ্যমে প্রাপ্ত ফলাফল থেকে সংশ্লিষ্ঠ মন্ত্রণালয় প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিচ্ছে।

মোদির দুইটি টুইটার অ্যাকাউন্ট রয়েছে। নরেন্দ্র মোদি নামে যে ব্যক্তিগত টুইটার অ্যাকাউন্টটি রয়েছে তার ফলোয়ারের সংখ্যা ৪.৮ মিলিয়নের অধিক। এছাড়া প্রধানমন্ত্রীর অফিসিয়াল যে অ্যাকাউন্টটি রয়েছে তাতে ১.৬১ মিলিয়নের অধিক ফলোয়ার যুক্ত হয়েছে এক মাসেরও কম সময়ে।

– টাইমস অব ইন্ডিয়া অবলম্বনে তুহিন মাহমুদ

*

*

আরও পড়ুন