বুয়েট রোবো কার্নিভালের বিজয়ীরা

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : বাংলাদেশ প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় বা বুয়েটে বসেছিল দুই দিনের রোবো কার্নিভাল।

বুয়েট রোবটিক্স সোসাইটির আয়োজনে এটি ছিল তৃতীয় আসর। আসরে মোট পাঁচটি বিভাগে ২০টির বেশি ইউনিভার্সিটির আট শতাধিক শিক্ষার্থী প্রতিযোগিতায় অংশ নেন। একটি বিভাগে কোয়ালিফাইয়ার পয়েন্ট না পাওয়ায় কোন দলই বিজয়ী হয়নি। তবে অন্য চারটি বিভাগে বিজয়ীদের নাম ঘোষণা করেছে আয়োজকরা।

তৃতীয়বারের মতো রোবো কার্নিভাল আয়োজন করেছিল বুয়েট রোবটিক্স সোসাইটি।

বৃহস্পতিবার সকাল থেকে শুরু হওয়া প্রতিযোগিতার চূড়ান্ত ফলাফল ঘোষণা করা হয় শুক্রবার বিকেলে। অনুষ্ঠানের সমাপনী আয়োজনে প্রধান অতিথি ছিলেন তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক।

পলক বলেন, এখন সময় এসেছে অনেক ঝুঁকিপূর্ণ কাজ রোবটকে দিয়ে করানোর। বিশ্বে এখন রোবটিক্সের তাই ব্যাপক চাহিদাও তৈরি হয়েছে।

তিনি বলেন, আমাদের আর্টিফিসিয়াল ইন্টেলিজেন্স সম্পর্কে বুঝতে হবে, সেটা নিয়ে কাজ করতে হবে। আর রোবটিক্স নিয়ে আরও গবেষণা করতে হবে। তবেই আমরা খুব শিগগিরই রোবটিক্সে খুব ভালো অবস্থানে চলে আসতে পারবো। এজন্য একটি সেন্টার করা হচ্ছে বলেও জানান তিনি।

প্যাথফাইন্ডারে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের দল ‘সাস্ট_ক্যাকার_নাট’, প্রথম রানার আপ সিলেট মেট্রোপলিটন ইউনিভার্সিটির দল ‘টিম_ওমেগা’ এবং দ্বিতীয় রানার আপ হয়েছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের দল ‘ডিইউ_জিগজ্যাক’।

সকার বট চ্যালেঞ্জে চ্যাম্পিয়ন ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির দল ‘ডিআইইউ_গ্র্যাভিশন’, দ্বিতীয় মিলিটারি ইনস্টিটিউট অব সায়েন্স অ্যান্ড টেকনোলজির ‘আর্ডিয়েন্ট সেন্সর’ এবং তৃতীয় হয়েছে ইস্ট ওয়েস্ট ইউনিভার্সিটির ‘ইউপি স্পিডি ফাইটার’।

কগনিশনে চ্যাম্পিয়ন আহসানুল্লাহ ইউনিভার্সিটি সায়েন্স অ্যান্ড টেকনোলজির ‘কিংপিন’, দ্বিতীয় বুয়েটের ইরিডিসেন্ট এবং তৃতীয় হয়েছে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এগ্রিকালচারাল ইউনিভার্সিটির দল রেভুলেশন।

প্রজেক্ট শোকেসিংয়ে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সায়েন্স অ্যান্ড টেকনোলজি ইউনিভার্সিটির ‘রোবোগ্যাং’। এছাড়াও দ্বিতীয় হয়েছে অতীশ দীপঙ্কর ইউনিভার্সিটি অব সায়েন্স অ্যান্ড টেকনোলজি। যৌথভাবে তৃতীয় হয়েছে বাংলাদেশ আর্মি ইউনিভার্সিটি ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড টেকনোলজির দল ল্যাবএআর এবং ব্র্যাক ইউনিভার্সিটির দল ফায়ারফ্লাই।

আয়োজন সম্পর্কে বুয়েট রোবটিক্স সোসাইটির সভাপতি সুস্মিত হোসেন প্রিথুল টেকশহরডটকমকে জানান, তৃতীয় আয়োজনটিও আমরা খুব সফলভাবে সম্পন্ন করতে পেরেছি। আশা করছি এমন আয়োজন আমরা আরও করতে পারবো।

তিনি বলেন, আমাদের উদ্দেশ্য রোবটিক্স নিয়ে দেশের শিক্ষার্থীরা ভালো কিছু করার অনুপ্রেরণা পাক। এমন ছোট আয়োজন থেকেই যেন তার শুরু হয়, সেটাই চাওয়া।

কিছুদিন আগেই রোবট অলিম্পিয়াডে অংশ নিয়ে বাংলাদেশের শিক্ষার্থীরা স্বর্ণপদক জিতেছে।

ইএইচ/ জানু১৯/ ২০১৯/ ১৫৪০

আরো পড়ুন ঃ- আন্তর্জাতিক রোবট অলিম্পিয়াডে বাংলাদেশের প্রথম স্বর্ণ

কাজে গড়বড় করায় ছাঁটাই ১০০ রোবট

মানুষের কর্মসংস্থান দখল নেবে না রোবট!

*

*

আরও পড়ুন