হাতের মুঠোয় বুয়ার সেবা

ইমরান হোসেন মিলন, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : ‘আখতার বানু। বিপদের দিনে হঠাৎ আপন মানুষের মতো হ্যালোটাস্ক অ্যাপ্লিকেশনের ভায়া হয়ে এলেন।

দুর্দান্ত সেবা। হিসাবের চেয়ে এক টাকা বেশি দেয়া গেলো না। নেবেনই না কোনভাবেই। ফাইভ স্টার সার্ভিস’।

অ্যাপের মাধ্যমে বুয়া ডেকে বাসাবাড়ির কাজকর্ম করিযে নেবার প্রথম অভিজ্ঞতার কথা এভাবেই জানান বাঁধন অধিকারী নামের এক গ্রাহক।

বাঁধন অধিকারীর মতো আরও অনেক গ্রাহক হঠাৎ করে কোন কাজে দরকার লাগলে এখন সহজেই কাজের বুয়াসহ অন্যান্য হেল্পিং হ্যান্ডস পাচ্ছেন অ্যাপের মাধ্যমেই।

শুরুটা অল্প দিনের
দুই ভাই মাহমুদুল হাসান লিখন ও মেহেদী স্মরণ মিলে এমন উদ্যোগের শুরু করেন ২০১৭ সালের সেপ্টেম্বর। রোবট ডাকো নামে এর যাত্রা হলেও এখন এর নাম হ্যালোটাস্ক। প্রথমে অন ডিমান্ড ডেলিভারি দিয়ে শুরু করলেও গত বছরের ফেব্রুয়ারিতে গৃহকর্মী সেবা চালু করে।

হ্যালোটাস্কের সহ-প্রতিষ্ঠাতা এবং প্রধান নির্বাহী মাহমুদুল হাসান লিখন জানান, ‘আমাদের বাসায় যে গৃহকর্মী ছিলেন তিনি নানা অজুহাতে কাজে আসতেন না। তখন মনে হয়েছিলো এটা শুধু আমার না। ঢাকা শহরের বেশিরভাগ বাসার গল্প এটি। তাই এই যে বাস্তব একটি সমস্যা, এটিকে সমাধান করা গেলে এখানে অনেক বড় বাজার তৈরি করা সম্ভব। সেই চিন্তা থেকেই কাজ শুরু করেন তারা। যখন শুরু করেন তখন মাত্র দুজন গৃহকর্মী ছিল। এখন সেই পরিমাণ অনেক বেড়েছে।

যেসব এলাকায় সেবাটি পাওয়া যাচ্ছে
সেবাটির পরিসর দিনকে দিন বাড়ছে। কারণ, অ্যাপের মাধ্যমে সেবা নেবার চাহিদা বেড়ে গেছে। অন ডিমান্ড এই সার্ভিসের শুরুটা হয়েছিল শুধুমাত্র ধানমন্ডি ও মোহাম্মদপুরে। এরপর এর পরিসর বাড়াতে কাজ করেছেন লিখন ও তার দল। তিনি বলেন, কিভাবে সার্ভিস এরিয়া বাড়ানো যায়, কিভাবে গৃহকর্মীর সংখ্যা বাড়ানো যায় সব কিছু নিয়ে কাজ করতে সময় চলে গেছে প্রায় ১০ মাস। গত বছরের নভেম্বর সার্ভিস এরিয়া বাড়তে শুরু করেছে।

বর্তমানে ধানমন্ডি ও মোহাম্মদপুরের পাশাপাশি মিরপুর, কল্যাণপুর, আগারগাঁও, উত্তরা, গুলশান, বনানী, মহাখালি, বসুন্ধরা, বারিধারা, বাড্ডা, রামপুরা, বনশ্রী, মালিবাগ, মগবাজার, খিলগাঁও, বাসাবো, কমলাপুর এলাকায় অনডিমান্ড গৃহকর্মী দিচ্ছে হ্যালোট্যাস্ক। বলা যায়, পুরান ঢাকা ছাড়া রাজধানীর প্রায় সব এলাকাতেই সেবাটি পাওয়া যাচ্ছে।

কিভাবে পাবো, চার্জ কত
অনডিমান্ড গৃহকর্মী পেতে হলে প্রথমে গুগল প্লে স্টোর থেকে হ্যালোটাস্ক অ্যাপ ডাউনলোড করতে হবে। এরপর সেটি ইনস্টল করে প্রয়োজনীয় তথ্য দিতে হবে। অ্যাপেই বাসার লোকেশন ঠিক করে দিতে হবে। তারপর সকাল ৮টা থেকে সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত অ্যাপের মাধ্যমে গৃহকর্মী ডাকা যাবে।

এই সেবা নিতে হলে সার্ভিস চার্জ ঘণ্টা হিসেবে প্রতি ঘণ্টা ১০০ টাকা খরচ পড়বে। প্রথম ঘণ্টায় বেজ ফি ৫০ টাকা অতিরিক্ত নেওয়া হয়। অনেকে গৃহকর্মী ডেকে নিয়ে পরে কাজ করান না, তাই ৫০ টাকা যাতায়াত হিসেবে একবারই নেওয়া হয়।

এর বাইরেও হ্যালোটাস্ক প্যাকেজ সিস্টেম চালু রয়েছে। যেখানে ৭ দিন, ১০ দিন, ২০ দিন কিংবা ১ মাসের জন্য ১-৮ ঘণ্টা নিজের সুবিধা মত সময়ে একজন ডেডিকেটেড গৃহকর্মী রাখতে পারবেন। এমনকি কেউ চাইলে নির্দিষ্ট দিনের জন্য গৃহকর্মী বুক করে রাখতে পারবেন। সে ক্ষেত্রে একদিন চার ঘণ্টার হিসেবে ৬০০ টাকা পরিশোধ করতে হবে।

অ্যাপেই নিরাপদ
অ্যাপে গৃহকর্মী নেবার ক্ষেত্রে হ্যালোটাস্কের সবচেয়ে সতর্কের জায়গা ছিল নিরাপত্তা। কারণ, এক ঘণ্টার জন্য গৃহকর্মী বাসায় যাবেন, সেখানে দুই পক্ষেরই নরিাপত্তা প্রয়োজন। চুরির মতো কোন কিছু যাতে না ঘটে সেজন্য তাদের কাছ থেকে নিশ্চয়তা নেওয়া হয়।

আর সব ধরনের নিরাপত্তার জন্য যারা প্লাটফর্মটিতে যুক্ত হচ্ছেন গৃহকর্মী হিসেবে তাদের জাতীয় পরিচয় পত্রের কপি, জন্ম নিবন্ধনের কপি, স্থানীয় দুই জন অভিভাবকের আইডি কার্ড রাখা হয়। যাতে কোন ধরণের অপরাধ করলেও গ্রাহক এবং আমাদের পক্ষ থেকে আইনগত ব্যবস্থা নিতে পারি, বলেন মাহমুদুল।

এছাড়াও কিছুদিনের মধ্যেই সকল সেবা ইন্সুরেন্সের আওতায় চলে আসবে। গ্রাহক এবং গৃহকর্মী দুই জনের জন্যই ইন্সুরেন্স সুবিধা চালু হবে।

আসছে ‘ছুটাবুয়া’
এসব ছাড়াও পাশাপাশি ‘ছুয়াবুয়া’ নামের একটি সার্ভিস চালু করতে যাচ্ছে হ্যালো টাস্ক। মাহমুদুল হাসান লিখন বলেন, আর সপ্তাহখানেকের মধ্যে আমরা ‘ছুটাবুয়া’ ফিচার চালু করতে পারবো। এতে করে গ্রাহকেরা তিন হাজার টাকার মধ্যেই মাসিক ভাবে গৃহকর্মী নিতে পারবেন। গৃহকর্মী না আসলে আমাদের ইন্সট্যান্ট মেইড গিয়ে গ্রাহকের কাজ করে দেবে। তাই গ্রাহক মাসের ৩০ দিনই নিশ্চিন্তে থাকতে পারবেন।

পরিকল্পনা বড়
উদ্যোগের বড় ধাপ গ্রাহক ও গৃহকর্মীর বিশ্বাস অর্জন। তাই প্রচলিত ধারণায় পরিবর্তন আনতে চায় হ্যালোটাস্ক। গৃহকর্মীরা যেন মনে করে এটা একটা কাজ। এটা তাদের ক্যারিয়ার। নিজেদেরকে নিম্ন শ্রেণি মনে না করে। তাদের জন্য হ্যালোটাস্ক ব্যাংক অ্যাকাউন্ট খুলে দিচ্ছে। তাদের স্মার্টফোন চালানো শেখাচ্ছে। তারা যেন ভাল বেতনে ভালভাবে চলতে পারে সেটা নিশ্চিত করছি।

লিখন বলেন, তাদের জন্য ট্রেনিং ইন্সটিটিউট করেছি আমরা। সেখান থেকে গৃহকর্মীরা গ্রাজুয়েট হয়ে কাজে যোগ দেবে। দেশের গৃহকর্মীদের কর্মসংস্থানের বিশাল ক্ষেত্র তৈরী করা সম্ভব এবং আমরা বিশ্বাস করি আমাদের হাত ধরেই তৈরী হবে নতুন একটি খাত।

অ্যাপ ডাউনলোড

এই ঠিকানায় (https://bit.ly/2LXWPqm) গিয়ে অ্যাপটি অ্যান্ড্রয়েড সংস্করণ, আইওএস সংস্করণ (http://bit.ly/hellotaskIOS) ডাউনলোড করা যাবে। এই ওয়েবসাইট (www.hellotask.app) থেকেও পাওয়া যাবে সেবাগুলো।

ইএইচ/ফেব্রু১৯/২০১৯/১৫১০

*

*

আরও পড়ুন