তথ্যপ্রযুক্তির অর্জনেরও বছর

Evaly in News page (Banner-2)

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : ডিজিটাল কার্যক্রমের ব্যাপ্তি বেড়েছে বছরজুড়ে। বিদায়ী বছরে তথ্যপ্রযুক্তি খাতে যোগ হয়েছে নতুন সব সেবা। এ খাতের অজর্নও ছিল অনন্য।

চলতি বছরে দেশে তথ্যপ্রযুক্তি খাতে বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ পরিবর্তন এসেছে। পাওয়ার থলি যেমন ভরেছে, তেমনি কিছু না পাওয়ার অতৃপ্তিও ছিল।

২০১৮-১৯ অর্থবছরের বাজেটে তথ্যপ্রযুক্তি খাতের জন্য বেশ কিছু ছাড় ও প্রণোদনা দেওয়া হয়েছে। ইন্টারনেটের ভ্যাট ১৫ শতাংশ থেকে একেবারে ৫ শতাংশে নামানো হয়েছে।

দেশে পুরোদমে চালু হয়েছে জাতীয় জরুরি সেবার কলসেন্টার। সামাজিক যোগাযোগ ও সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত সাফল্যের অনেক গল্পই ৯৯৯ নম্বরে কল করে আইনি বা অন্য কোন বাহিনীর সহযোগিতায়।

আমরা অ্যাপের মাধ্যমে কথা বলতে হোয়াটসঅ্যাপ, ম্যাসেঞ্জারের মতো বিদেশি অ্যাপ ব্যবহার করি। এবার নিজেদের অ্যাপে কথা বলার সুযোগ তৈরি হচ্ছে। বছরের শেষ ভাগে এসে পাঁচটি দেশীয় কথা বলার অ্যাপ অনুমোদন পেয়েছে।

অনেকেই একটি আইপি অ্যাড্রেস নিয়ে টেলিভিশন চ্যানেল চালু করেন। যা ইন্টারনেটে দেখা যায়। সেই আইপিটিভির অনুমতিও এসেছে এই বছরেই।

তথ্যপ্রযুক্তির অগ্রগতিতে দেশে অন্যতম ভূমিকা রাখতে শুরু করেছে বিভিন্ন জেলা ও বিভাগীয় শহরের হাইটেক পার্কগুলো। যার সবচেয়ে বড় হাইটেক পার্কটি ঢাকার অদূরে গাজীপুরের কালিয়াকৈরে অবস্থিত। যেখানে দশ হাজার কোটি টাকার বেশি বিনিয়োগ করবে অন্তত ১৮টি প্রতিষ্ঠান। যারা ইতোমধ্যে তাদের জায়গা বুঝিয়ে নিয়েছে। অন্যরাও পাচ্ছে ধীরে ধীরে।

সারাদেশে বিনামূল্যে ওয়াইফাই দিতে চেয়ে অনুমতি চেয়েছিল ফেইসবুক। তবে দেশের প্রতিষ্ঠানের ব্যবসায়িক স্বার্থে ফেইসবুককে না করে দিয়েছে নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিটিআরসি।

এসব ছাড়াও বিদেশে বেশ কয়েকটি প্রতিযোগতিায় বাংলাদেশের তথ্যপ্রযুক্তি খাত অনেক পুরস্কারও এনেছে। এসেছে প্রথমবারের মতো রোবট অলিম্পিয়াডে স্বর্ণ পদক।

এসজেড/ইএইচ/আরআর/ডিসে৩০/২০১৮/১৪.০৩

আরো পড়ুন ঃ-

দেশের তথ্যপ্রযুক্তি খাতে সহযোগিতা বাড়াবে চীন

বন্ধ হলো যেসব প্রযুক্তি সেবা

জিপিএস হ্যাকিং ঠেকাবে কোয়ান্টাম প্রযুক্তি

*

*

আরও পড়ুন