ডিজিটাল বাংলাদেশকে এগিয়ে নিচ্ছেন তরুণরা : অর্থমন্ত্রী

Maal-techshohor

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : দেশব্যাপী উদযাপন করা হচ্ছে ‘ডিজিটাল বাংলাদেশ দিবস ২০১৮’।

গত বছর প্রথমবার দিনটি ‘জাতীয় তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি দিবস’ হিসেবে পালিত হয়। এবার দিবসটির নাম বদলে করা হয়েছে ‘ডিজিটাল বাংলাদেশ দিবস’।

বুধবার সকালে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে (বিআইসিসি) ডিজিটাল বাংলাদেশ দিবস উপলক্ষে এক বিশেষ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

Techshohor Youtube

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। তিনি বলেন, ২০০৮ সালে ১২ ডিসেম্বর ডিজিটাল বাংলাদেশের ঘোষণা দেয়া হয়েছিল। এক দশকে তথ‍্য প্রযুক্তি খাতকে এগিয়ে নিতে সরকারের পাশাপাশি সবচেয়ে বেশি অবদান রেখেছে দেশের তরুণ সমাজ। তাদের নানা দিক নিদের্শনায় সরকার ডিজিটাল খাতের নানা পদক্ষেপ নিয়েছে এবং সফল হয়েছে।

অনুষ্ঠানে ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের সদ্য বিদায়ী মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বলেন, মন্ত্রী হওয়ার পরে প্রথম চ্যালেঞ্জ ছিল ফোরজি চালু করা। সেটি সম্ভব হয়েছে। ফাইভজি নিয়েও এখন কাজ চলছে। কৃষিভিত্তিক দেশ থেকে বাংলাদেশ এখন ডিজিটাল ও তথ‍্য প্রযুক্তিভিত্তিক দেশে পরিণত হচ্ছে।

ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের সচিব শ্যাম সুন্দর শিকদার বলেন, বাংলাদেশ ডিজিটাল খাতে বেশ এগিয়ে গেছে। ২০০৮ সালে মাত্র ৮০ লাখ মানুষ ইন্টারনেট ব‍্যবহার করতেন। এখন তা বহুগুণ বেড়ে গেছে। আইটি খাত থেকেও আয় বৃদ্ধি পেয়েছে।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ছিলেন, সাবেক বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রী স্থপতি ইয়াফেস ওসমান, তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগের সচিব জুয়েনা আজিজসহ আরও অনেকে।

দিনব্যাপী আয়োজনে থাকবে ডিজিটাল বাংলাদেশ পুরস্কারপ্রাপ্তদের সম্মাননা প্রদান, রোবো ওয়ার, পাজল গেইম শো, প্রদর্শনী, দেশব্যাপী অনলাইন প্ল্যাটফর্মে রচনা প্রতিযোগিতা, জেলা উপজেলায় চিত্রাঙ্কন, রচনা প্রতিযোগিতা ও ডিজিটাল বাংলাদেশ সম্পর্কিত আলোচনা সভা।

২০১৭ সালের নভেম্বরে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত মন্ত্রিসভার বৈঠকে জাতীয়ভাবে তথ্যপ্রযুক্তি দিবস পালনের প্রস্তাবে অনুমোদন দেয়া হয়েছিল।

আরও পড়ুন

ডিজিটাল বাংলাদেশ দিবস পালনে নানা আয়োজন

টিএ/ এজেড/ডিসে ১২/২০১৮/১৪০০

*

*

আরও পড়ুন