Techno Header Top and Before feature image

ফোনে ভিডিও এডিটের ২ অ্যাপ

facebook-video-adds-TechShohor
Evaly in News page (Banner-2)

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : মুখ ঢেকে যায় বিজ্ঞাপনের মতো এখন সোশ্যাল মিডিয়া ভেসে যায় ভিডিওতে। নিজেদের প্রিয় মুহূর্ত বন্ধুদের সঙ্গে শেয়ার করার পাশাপাশি অনেক কিছুর ভিডিও ঘুরতে থাকে ফিড জুড়ে।

তাই আপনিও হয়ত চাইছেন নিজেদের ভিডিও শেয়ার করতে। যেন তেনভাবে তো ভিডিও দিতেই পারেন। তবে এডিট করে দিলে সেটি দেখতে ও শুনতে ভালো হয়ে থাকে। এ ক্ষেত্রে প্রয়োজন হয় ভিডিও সম্পাদনার।

একটা সময় ভিডিও এডিটের জন্য ডেস্কটপ বা ল্যাপটপের ওপরই নির্ভর করতে হতো। এখন বিকল্প হিসেবে চাইলে স্মার্টফোনেও কাজটি সেরে ফেলতে পারেন।

মান ঠিক রেখেও জরুরি কাজের সময় স্মার্টফোনে এডিটের কাজ সহজেই করা যায়। তেমনি দুটি প্রয়োজনীয় অ্যাপ নিয়ে থাকছে এ প্রতিবেদন।

সাইবার লিংক পাওয়ার ডিরেক্টর (CyberlinkPowerdirector)

কোনো ভিডিও কম্পিউটারে যতটা সুন্দর করে এডিট করা যায় স্মার্টফোনে সেভাবে খুটিনাটি ধরে করা যায় না। তবে আপনার ফোনে সাইবার লিংক পাওয়ার ডিরেক্টর নামের অ্যাপ ইন্সটল করা থাকে তাহলে কিছুটা আক্ষেপ কম হবে।

কেননা এ অ্যাপের সাহায্যে স্মার্টফোনে মোটামোটি মানের ভিডিও সম্পাদনা করে নেয়া যাবে।

ভিডিও সম্পাদনার অনেকগুলো কাজ খুব সুচারুভাবে করা যাবে অ্যাপটিতে। এতে ভিডিও ও ইমেজ ব্যবহার করে তৈরি করা যাবে ভিডিও।

এটির মাধ্যমে ভিডিওতে ভয়েস রেকর্ড যুক্ত করার সুবিধাও রয়েছে। এর সাহায্যে টাইটেল, ক্যাপশন আকারে যে কোনো টেক্সট যুক্ত করা যাবে।

যে কোনো ভিডিওতে পছন্দমত মিউজিক যুক্ত করে নেওয়া যাবে। ভিডিও এডিট শেষ হলে তা এইচডি প্রিন্টে দেখা যাবে।

অ্যাপটি ব্যবহার করে যে কোনো ভিডিও গ্যালারিতে সংরক্ষণ করা যাবে।

ব্যবহারকারীরা ভিডিওটি অ্যাপ থেকেই ফেইসবুক, টুইটার, ইউটিউবে শেয়ার করতে পারবেন।

৪.৫ রেটিং প্রাপ্ত অ্যাপটি এ ঠিকানা থেকে বিনামূল্যে ডাউনলোড করা যাবে। ৫২ মেগাবাইটের অ্যাপটি এখন পর্যন্ত সাড়ে ১০ লাখের বেশি ডাউনলোড হয়েছে।

টিমব্রে (timbre)

হাতে থাকা স্মার্টফোন দিয়ে টুকটাক ভিডিও সম্পাদনা করে নেওয়ার জন্য চমৎকার একটি অ্যাপ টিমব্রে। ভিডিও এডিটিংয়ের ক্ষেত্রে  অ্যাপটি বেশ কাজের।

এতে যে কোনো ভিডিও মাত্র কয়েক ক্লিকেই একত্রে যুক্ত করা যায়। কোনো ভিডিওর নির্দিষ্ট অংশ কেটে অ্যাপটি দিয়ে জিআইএফ তৈরি করা যায়। চাইলে যে কোনো ভিডিওতে ফ্রেম যুক্ত করা যাবে।

এটির মাধ্যমে অডিও ফাইল এডিট করা যায়। চাইলে একাধিক অডিও ফাইল একত্রে যুক্ত, কোনো অংশ কেটে নেয়া, কনভার্ট করা, স্পিড বৃদ্ধি করা ইত্যাদি কাজগুলোও করা যায়।

ভিডিও কনভার্ট, রিসাইজ, মিউট, ভিডিও থেকে অডিও নেওয়ার কাজগুলো করা যাবে অনায়াসে।

অ্যাপটি ইংরেজি ছাড়াও প্রায় ১২ ভাষা সাপোর্ট করে। ভিডিও সম্পাদনের পরে তা ফোনের মেমোরিতে সংরক্ষণ করা যাবে।

এটি অফলাইনে কাজ করবে। তাই ডাউনলোডের পরে ইন্টারনেট সংযোগ ছাড়াও ব্যবহার করা যাবে।

৪.৫ রেটিং পাওয়া অ্যাপ্লিকেশনটি গুগল প্লে থেকে ১০ লাখেরও বেশি ডাউনলোড হয়েছে। এ ঠিকানা থেকে বিনামূল্যে ডাউনলোড করে ব্যবহার করা যাবে অ্যাপটি।

আরএ/আরআর/নভেম্বর ২৮/২০১৯/১১.৩৫

আরও পড়ুন –

ভিডিও এডিটিংয়ের অ্যাপগুলো 

মোবাইলে কয়েক মিনিটেই প্রফেশনাল ভিডিও তৈরি

*

*

আরও পড়ুন