vivo Y16 Project

এইচপি প্রোবুক ২৫০ জি১ : পেশাদারদেরও বাড়তি সুবিধা দেবে

hp-probook-g1-techshohor

শাহরিয়ার হৃদয়, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : এইচপির প্রোবুক সিরিজের ল্যাপটপগুলো সাধারণ কাজে ব্যবহারের উপযোগী। তবে ২৫০ জি১ মডেলের একটি বাড়তি সুবিধা হলো, ভালো গ্রাফিক্স কার্ডের কারণে পেশাদাররাও ব্যবহার করতে পারেন। দামের তুলনায় এর কনফিগারেশন বেশ উন্নত।

ডিজাইন
কালো প্লাস্টিকে তৈরি নোটবুকটির সার্ফেসে ম্যাট প্রলেপ রয়েছে। ফলে এর ডিজাইন খুবই সাধারণ, তবে হাতে ধরতে বা বহন করতে সুবিধা হবে। ওজনেও অনেকটা হালকা।

hp-probook-g1-techshohor

Techshohor Youtube

ডিসপ্লে
এতে আছে ১৫.৬ ইঞ্চির এলইডি ব্যাকলিট ডিসপ্লে। যার রেজুল্যুশন ১৩৬৬*৭৬৮ পিক্সেল। উজ্জ্বল আলোতে যাতে স্ক্রিন দেখতে কোনো সমস্যা না হয় সেজন্য অ্যান্ট-গ্লেয়ার রয়েছে।

কানেক্টিভিটি
নোটবুকটির কানেক্টিভিটি ফিচারের মধ্যে আছে দুটি ইউএসবি ৩.০ পোর্ট, দুটি ইউএসবি ২.০ পোর্ট, একটি এইচডিএমআই পোর্ট, একটি ভিজিএ পোর্ট, একটি মাইক্রোফোন ইনপুট, একটি হেডফোন/লাইনআউট ও এসডি কার্ড রিডার। এ ছাড়া ব্লুটুথ, ওয়াইফাই রয়েছে। আছে ডিভিডি রাইটারও।

কনফিগারেশন
এতে রয়েছে চতুর্থ প্রজন্মের ইন্টেল কোর আই৫ ২.৫ গিগাহার্জ ক্লকরেটের প্রসেসর। র‍্যাম ৪ জিবি, গ্রাফিক্স কার্ড এএমডি রেডন এইচডি ৫৭৫০ যার মেমরি ৩ জিবি।

এ ছাড়া ৭৫০ জিবি হার্ডডিস্ক রয়েছে। কিবোর্ড ও টাচিপ্যাডে অবশ্য অযত্নের ছাপ আছে। কিবোর্ডে ব্যাকলিট ফিচার নেই, বাটনগুলো স্বাচ্ছন্দ্যে টাইপের উপযোগী নয়।

পারফরম্যান্স
ল্যাপটপটি মূলত দৈনন্দিন অফিসিয়াল কাজ বা ঘরোয়া ব্যবহারের উপযোগী, কিন্তু শক্তিশালী গ্রাফিক্স কার্ডের ফলে এর কাজের পরিধি আরও বিস্তৃত হয়েছে। ছবি বা ভিডিও এডিটিংয়ের মতো ভারী কাজ করতে পারবেন পেশাদাররা।

সাধারণ কাজের পাশাপাশি মোটামুটি হাই কোয়ালিটিতে গেইম খেলা যাবে। বড় স্ক্রিন ও গ্রাফিক্স কার্ডে এইচডি মুভিও ভালোভাবে উপভোগ করা যাবে।

ব্যাটারি
এটির ছয় সেলের ব্যাটারি সাধারণ ব্যবহারে পর্যাপ্ত সময় ব্যাকআপ দেবে।

দেশের বাজারে নোটবুকটির দাম ৫৪ হাজার ৫০০ টাকা।

এক নজরে ভালো
– উন্নত কনফিগারেশন
– শক্তিশালী গ্রাফিক্স কার্ড

এক নজরে খারাপ
– কিবোর্ড ও টাচপ্যাড আরামদায়ক নয়

*

*

আরও পড়ুন

vivo Y16 Project