আয়ু বাড়িয়ে দেয় অ্যাপল ওয়াচ!

Apple-Smart-watch-Techshohor
গিফট হিসেবে স্মার্টওয়াচ হাল ফ্যাশন হতে পারে। ছবি : ইন্টারনেট
Evaly in News page (Banner-2)

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর: আয়ু বাড়ানোর জন্য মানুষ কত কী না করে। কিন্তু স্মার্ট ঘড়ি ব্যবহারেই মাধ্যমেই আয়ু বাড়ানো যায় বলে দাবি করেছেন গবেষকরা।

তারা বলছেন, অ্যাপলের স্মার্ট ঘড়ি ব্যবহারকারীর আয়ু অন্তত দুই বছর বাড়িয়ে দেয়।

কিভাবে এটা সম্ভব তার ব্যাখ্যাও দিয়েছেন গবেষকরা। তাদের মতে, অ্যাপলের স্মার্ট ঘড়ির ফিচার প্রতিদিন ব্যবহারকারীকে শারীরিক বিভিন্ন পরিশ্রমে উদ্বুদ্ধ করে। এতে তারা মাসে অতিরিক্ত পাঁচ দিন বেশি শারীরিক পরিশ্রম করেন।

সুষম পুষ্টিকর খাবার গ্রহণের পাশাপাশি শারীরিক পরিশ্রম মানুষকে সুস্থ্য রাখতে সবচেয়ে বেশি ভূমিকা রাখে- সে কথা তো সবারই জানা।

গবেষকরা জানান, অ্যাপলের স্মার্ট ঘড়ির কার্যকারিতা নিয়ে আয়োজিত প্রকল্পে দেখা গেছে, যেসব স্বেচ্ছাসেবক ঘড়িটি ব্যবহার করছেন তারা অব্যবহারকারীর তুলনায় শারীরিকভাবে বেশি সক্রিয়।

ব্যবহারকারীরা স্বাভাবিকের চেয়ে মাসে অতিরিক্ত ৪ দশমিক ৮ দিন বেশি পরিশ্রম করেন। যা তাদের মোট আয়ুর চেয়ে অতিরিক্ত আরও দুই বছর বাঁচতে সাহায্য করবে।

চার লাখ মানুষের ওপর অ্যাপল গবেষণাটি চালিয়েছে। বিশেষ করে যারা একটু মোটা বা খুব একটা ব্যায়াম কিংবা শারীরিক পরিশ্রম করেন না তাদের ক্ষেত্রে অ্যাপলের স্মার্ট ঘড়ি ভালো কাজ করে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার হিসাব মতে, বিশ্বে প্রতিনিয়ত স্থুলকায় মানুষের সংখ্যা বাড়ছে। কারণ বিশ্বের এক তৃতীয়াংশ মানুষই সপ্তাহে ন্যুনতম যে শারীরিক পরিশ্রম দরকার তা করেন না।

বিশেষ করে ১৮ থেকে ৬৪ বছর বয়সীদের দিনে অন্তত ১৫০ মিনিট বিভিন্ন ধরনের শারীরিক ব্যায়াম করা প্রয়োজন। কিন্তু তারা তা করেন না। ফলে শরীরে বাসা বাঁধছে নানা রোগ।

তাই গবেষকরা মনে করেন, এসব মানুষের ক্ষেত্রে অ্যাপলের স্মার্ট ঘড়ি দারুণ কাজ করতে পারে। কারণ দিনের মধ্যে অনেকবার ঘড়িই ব্যবহারকারীকে মনে করিয়ে দিবে শারীরিক ব্যায়ামের কথা এবং উপকারীতা।

ডেইলি মেইল অবলম্বনে এসআই/ডিসে০১/২০১৮/০২০৫

আরো পড়ুন ঃ-

২০২১ সালে স্মার্টওয়াচের সরবরাহ দ্বিগুণ হবে

স্মার্টফোনের কারণে হারিয়ে গেছে যেসব গ্যাজেট

*

*

আরও পড়ুন