ড্রোনে শনাক্ত হবে সামুদ্রিক প্রাণীজগত

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : ড্রোন দিয়ে অনেক ধরনের কাজের কথা আমরা শুনেছি বা জানি।

কয়েকটি ই-কমার্স জায়ান্ট ড্রোন দিয়ে তাদের পণ্য গ্রাহকদের কাছে পৌঁছানোর কাজ করছে। একটু বড় আকারের ড্রোন বানিয়ে তাতে কীভাবে মানুষ চলাচল করতে পারে তারও পরীক্ষা চলছে।

এবার এক অসাধ্য সাধন করতে যাচ্ছেন গবেষকরা। তারা ড্রোন ব্যবহার করে সমুদ্রে থাকা প্রাণীজগতের হিসাব ও ধরন বের করার চেষ্টা করছেন।

এবার বিজ্ঞানী ও সংরক্ষণবাদীরা মিলে সমুদ্রের হাঙর, রে ফিশ, কচ্ছপ ও অন্যান্য সামুদ্রিক প্রাণীর হিসাব করতে তেমনই একটি প্লাটফর্ম তৈরির কথা জানিয়েছেন।

নর্থ ক্যারোলিনা স্টেট ইউনিভার্সিটির প্রধান গবেষক এনিয়ে হানসেল জানিয়েছেন, আমরা সমুদ্রে থাকা বিভিন্ন প্রাণী ও জীবের প্রজাতি নির্ণয় করতে ড্রোন ব্যবহারে কিছুটা সাফল্য পেয়েছি। এটা অগভীর সমুদ্রে কাজ করবে।

হানসেল বলেন, অগভীর সমুদ্রের প্রাণীজগত গণনা ও পর্যবেক্ষণে ড্রোন দিয়ে সার্ভে একটি ভালো উপায় হতে পারে। প্রযুক্তিটি প্রাণীজগতের সংরক্ষণ করার জন্য নতুন দরজা খুলে দেবে।

অন্যদিকে, প্রচলিত নৌযান ও জাল ব্যবহার করে জরিপ চালালে নানা ধরনের সমস্যার পাশাপাশি প্রাণহানির আশঙ্কাও থাকে।

ড্রোনের ব্যবহার করে হাঙর শনাক্ত করতে গবেষকরা একটি অগভীর পানিতে নকল হাঙর রাখেন এবং ড্রোন থেকে ফুটেজ নেন। পরে ফুটেজ বিশ্লেষণ করে সহজেই আসল হাঙর শনাক্ত করতে সক্ষম হোন গবেষক-বিজ্ঞানীরা।

হানসেল বলেন, সবচেয়ে কঠিন কাজ গ্রে-হাঙর শনাক্ত করা। কিন্তু ড্রোন ব্যবহার করে আমরা তাকেও সঠিকভাবে শনাক্ত করতে সক্ষম হয়েছি।

কিন্তু কবে নাগাদ তারা ড্রোন দিয়ে প্রাণী শনাক্তকরণ শুরু করতে পারবেন সে সম্পর্কে জানা যায়নি। তবে তাদের প্রত্যাশা, ভবিষ্যতে সমুদ্রের প্রাণীজগত শনাক্ত করতে ড্রোন প্রযুক্তিই ব্যবহার হবে।

বিজনেস স্ট্যান্ডার্ড অবলম্বনে ইএইচ/এজেড/ নভে২৭/২০১৮/২০০০

*

*

আরও পড়ুন