বন্ধু যখন ‘শিশু’ জোরা

Robot-zora-Techshohor
Evaly in News page (Banner-2)

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর: বয়স বাড়লে সন্তানের কাছে প্রবঞ্চিত হয়ে অনেককেই বৃদ্ধাশ্রমে আশ্রয় নিতে হয়। তারা স্বজনের দেখা পাওয়ার জন্য উদগ্রীব থাকেন, কিন্তু দিনের পর দিন কারও দেখা মিলে না।

এমন বৃদ্ধদের কথা চিন্তা করেই ফ্রান্সের একটি প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান নিয়ে এসেছে বিশেষ রোবট জোরা। শিশুর মতো রোবটটি বৃদ্ধদের চমৎকারভাবে সঙ্গ দেওয়ার পাশাপাশি তাদের দেখভালও করছে।

সম্প্রতি জোরাকে নেওয়া হয়েছিল প্যারিসের একটি বৃদ্ধাশ্রমে। সেখানে সে বৃদ্ধাশ্রমের বাসিন্দাদের চরম প্রিয় হয়ে উঠে। অনেকেই নিজের আপনজন ও বন্ধু ভাবতেও শুরু করে!

বলা হচ্ছে, বৃদ্ধাশ্রমের অধিকাংশ বাসিন্দার সঙ্গেই জোরার আবেগপূর্ণ সম্পর্ক গড়ে উঠেছিল। তাদের সঙ্গে সে ছোট্ট শিশুর মতোই বিভিন্ন ধরনের কথা বলত। হাত ধরেও হেঁটে বেড়াত।

বৃদ্ধদের স্বাস্থ্যেরও খোঁজ খবর রাখতো জোরা। তাই প্রায়ই অনেকে জোরার ধাতব মাথায় চুমুও খেতেন।

ফ্রান্সেরও প্রতিষ্ঠানটি অবশ্য এমনি এমনি জোরাকে কোথাও দিচ্ছে না। তার সহচার্য পেতে খরচ করতে হচ্ছে ১৮ হাজার ডলার।

তারপরও জোরার আবেদন কমেনি। অনেক হাসপাতালে স্মৃতিভ্রংশসহ মানসিক সমস্যায় ভোগা রোগীদের জন্যও জোরাকে ডাকা হচ্ছে।

জোরাকে মূলত ল্যাপটপ দিয়ে নিয়ন্ত্রণ করা হয়। অপারেটর আড়ালে থাকেন বলে সে যার কাছে যায় তিনি বুঝতে পারেন না রোবটটিকে কেউ নিয়ন্ত্রণ করছেন।

অপারেটর ল্যাপটপে টাইপ করে যে কথাবার্তা লিখে দেন জোরা সেসবই বলে। অনেক সময় সে ছোট্ট মানব শিশুর মতো দৌড়াদৌড়ি করে এবং খেলে বয়োজ্যেষ্ঠ কিংবা রোগীদের দৃষ্টি আকর্ষণ করে।

সোফি রিফাউল্ট নামে জোরার এক পরিচালক বলেন, রোবোটিক্স প্রযুক্তিকে এখনো দীর্ঘপথ পাড়ি দিতে হবে।

তিনি জানান, জোরা কাউকে কোনো ওষুধ দেয় না। তবে সে বন্ধুর মতো অনেকের রক্তচাপ পরীক্ষা, বিছানার চাদর পাল্টে দেওয়ার মতো কাজগুলো করে। এর মাধ্যমে সে একজন রোগীকে ব্যস্ত রাখে।

এদিকে জোরার জনপ্রিয়তার কথা জেনে বেলজিয়ামভিত্তিক একটি প্রতিষ্ঠান একই ধরনের এক হাজার রোবট যুক্তরাষ্ট্র, এশিয়া ও মধ্যপ্রাচ্যের স্বাস্থ্যসেবা কেন্দ্রগুলোয় বিক্রির ঘোষণা দিয়েছে।

বিজনেস স্ট্যান্ডার্ড অবলম্বনে এসআই/নভে২৭/২০১৮/০১০০

*

*

আরও পড়ুন