নতুন নামে জাতীয় তথ্যপ্রযুক্তি দিবস

Digital-bangladesh-techsohor
Evaly in News page (Banner-2)

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : প্রতিবছর ১২ ডিসেম্বর ডিজিটাল বাংলাদেশ দিবস হিসেবে পালিত হবে।

২০১৭ সালের প্রথমবারের মতো এ দিনটি জাতীয় তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি দিবস হিসেবে উদযাপন করা হয়েছিল। এখন এই দিবসটির নাম বদল করে ডিজিটাল বাংলাদেশ দিবস করা হলো।

সোমবার সচিবালয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে মন্ত্রিসভার নিয়মিত বৈঠকে নতুন এই নামের অনুমোদন দেয়া হয়।

ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার ফেইসবুক স্ট্যাটাসে জানান, গত বছর ১২ ডিসেম্বর জাতীয় তথ্য ও যোগা‌যোগ প্রযু‌ক্তি দিবস হি‌সে‌বে প্রথম ও একমাত্রবার পা‌লিত হয়েছে। এখন থে‌কে ডি‌জিটাল বাংলা‌দেশ দিবস হি‌সে‌বে পা‌লিত হ‌বে।

প্রথমবার দিবসটি উদযাপনে তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগের পাশাপাশি সরকারি ও বেসরকারি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান নানা কর্মসূচি পালন করে।

ওইদিন সকালে তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগ ধানমন্ডির ৩২ নম্বরে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা জানিয়ে দিবসটি পালন শুরু করেছিল।

এরপর আটটায় শাহবাগের জাতীয় জাদুঘরের সামনে থেকে একটি  র‍্যালি বের করা হয়। পরে সেটি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকার বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে।

বিকালে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে (বিআইসিসি) আলোচনা সভার অনুষ্ঠিত হয়। সেখানে প্রধান অতিথি ছিলেন জাতীয় সংসদের স্পিকার ডক্টর শিরিন শারমিন চৌধুরী।

এরপর সাড়ে পাঁচটা থেকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মল চত্ত্বরে একটি কনসার্টও হয়। এছাড়া জেলা পর্যায়ে র‍্যালি ও অন্যান্য কার্যক্রম নেয়া হয়।

২০১৭ সালের নভেম্বরে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত মন্ত্রিসভার বৈঠকে প্রথম জাতীয়ভাবে তথ্যপ্রযুক্তি দিবস পালনের প্রস্তাবে অনুমোদন দেয়া হয়েছিল।

২০০৮ সালের ১২ ডিসেম্বর রূপকল্প ২০২১ ঘোষণা করা হয়। যার মূল উপজীব্য ছিল ডিজিটাল বাংলাদেশ ভিশন। তাই জাতীয় তথ্যপ্রযুক্তি দিবস নির্ধারণে তখন এ বিষয়টিকেই ভিত্তি ধরা হয়েছে।

এবার নাম পরিবর্তন করে ডিজিটাল বাংলাদেশ দিবস করায় ভিশনের সঙ্গে আর সম্পৃক্ততা বাড়লো বলে বলছেন সংশ্লিষ্টরা। এতে তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগের সঙ্গে টেলিযোগাযোগ বিভাগসহ ডিজিটাল বাংলাদেশ কার্যক্রমের সঙ্গে প্রত্যক্ষ-পরোক্ষভাবে যুক্ত সবাই উদযাপনে যুক্ত হবে।

এডি/নভে২৬/২০১৮/১৬১০

*

*

আরও পড়ুন