থ্রিডি প্রিন্টেড বায়ো রিঅ্যাক্টরে ফিরবে হারানো অঙ্গ

Arm-Techshohor
Evaly in News page (Banner-2)

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : বিকলাঙ্গ চিকিৎসায় যুগান্তকারী উদ্ভাবনের দ্বারপ্রান্তে রয়েছেন বিজ্ঞানীরা। থ্রিডি প্রিন্টেড বায়ো রিঅ্যাক্টর ডিভাইসের মাধ্যমে তারা বিকলাঙ্গ ব্যাঙের পায়ে নতুন কোষ গজাতে সক্ষম হয়েছেন।

বিজ্ঞানীরা আশা করছেন, তাদের গবেষণা ভবিষ্যতে মানুষসহ সব স্তন্যপায়ী প্রাণীর হারানো বা অকার্যকর অঙ্গ নতুনভাবে বিন্যাসে বিশেষ ভূমিকা রাখবে।

গবেষণা প্রতিবেদনটি সেল রিপোর্টস সাময়িকীতে সম্প্রতি প্রকাশিত হয়।

প্রতিবেদনে বলা হয়, ব্যাঙের অঙ্গ খোয়া গেলে প্রাকৃতিকভাবেই জন্মায়। উদ্ভাবিত বায়ো রিঅ্যাক্টর ডিভাইসের মাধ্যমে গজানো অংশ প্রাকৃতিকভাবে জন্মানো টিস্যুর চেয়ে ছোট। তবে ধীরে ধীরে তা উন্নত হতে সক্ষম।

গবেষক দলের প্রধান যুক্তরাস্ট্রের টুফটস ইউনিভার্সিটির অ্যালান ডিসকভারি সেন্টারের মিখায়েল লেভিন বলেন, ব্যাঙগুলোর গজানো অঙ্গ এখনো পূর্ণাঙ্গ নয়। কিন্তু এটাও সত্য, হস্তক্ষেপ ছাড়াই হাড়সহ এটি পূর্ণ রূপ পেয়েছে।

ওই বিজ্ঞানী আরও জানান, সিলিকন থেকে থ্রিডি প্রিন্টারের মাধ্যমে বায়ো রিঅ্যাক্টর ডিভাইস তৈরি করা হয়েছে। ভেতরটা পলিমার থেকে তৈরি এক ধরনের চটচটে জেলে ভর্তি। ওই জেলে প্রজেস্টেরন নামের উপাদান রয়েছে।

প্রজেস্টেরন যে কোনো অঙ্গের ক্ষতিগ্রস্ত স্নায়ু, রক্তবাহী শিরা এবং হাড়ের টিস্যু সারিয়ে তুলতে সক্ষম বলে উল্লেখ করেন লেভিন।

গবেষণাটির জন্য কয়েকটি আফ্রিকান কয়েড প্রজাতির ব্যাঙ বেছে নেওয়া হয়। পরে অপারেশনের মাধ্যমে তাদের একটি পা বাদ দেওয়া হয়।

ওই ব্যাঙগুলোকে প্রথমে বায়ো রিঅ্যাক্টর ডিভাইসের নিচে রাখা হয়। ২৪ ঘণ্টার জন্য প্রজেস্টেরনের মধ্যে বায়ো রিঅ্যাক্টরগুলো ছাড়া হয়। এরপরও ব্যাঙগুলোকে আরও ৯ থেকে ১০ মাস পর্যবেক্ষণে রাখা হয়।

ওই সময় অস্ত্রোপচার করা স্থানে ধীরে ধীরে টিস্যু গজাতে শুরু করে।

ব্যাঙগুলোর নতুন পায়ের হাড়গুলো স্বাভাবিকের চেয়ে এখনও চিকন। তবে এগুলো দিয়ে তারা এখন অনায়াসে সাঁতার কাটছে।

ফক্স নিউজ অবলম্বনে এসআই/নভে১৯/২০১৮/১১.০১

*

*