Techno Header Top and Before feature image

ভার্চুয়াল বউের জন্য এত খরচ!

n-miku-a-techshohor

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : জাপানের এক স্কুল শিক্ষক বিয়ে করেছেন হলোগ্রামকে। ১৬ বছর বয়সী ভার্চুয়াল রিয়েলিটির চরিত্র হাটসুন মিকু তার স্ত্রী।

জনপ্রিয় চরিত্রটির আদলে একটি রেপ্লিকা পুতুল তৈরি করে বিয়ের আসরে হাজির হয়েছেন তিনি। আকিহিও কন্দো নামের এ শিক্ষক বিয়েতে খরচ করেছেন সাড়ে ১৪ লাখ টাকা। তিনি এই ভার্চুয়াল বউয়ের জন্য একটি আংটিও কিনেছেন।

কাঁচের বাক্সে ঘেরা আলো দিয়ে তৈরি থ্রি ডাইমেনশন চরিত্রকেই বলা হয় হলোগ্রাম। আলো সরানোর ব্যবস্থা নেই, তাই দীর্ঘদিনের প্রেমিকের রেপ্লিকা তৈরি করে বিয়ের আয়োজন করেছেন কন্দো।

বিয়েতে উপস্থিত ছিলেন ৪০ অতিথি। তালিকায় অবশ্য কোনো আত্মীয় ছিলেন না।

কাঁচের বাক্সে ঘেরা আলো দিয়ে তৈরি টু ডাইমেনশনের চরিত্রকেই বলা হয় হলোগ্রাম।

হলোগ্রামটির নির্মাতা কোম্পানি তাকে একটি বিবাহ সনদও দিয়েছে। শুধু তাকেই নয়, হলোগ্রামকে বিয়ে করা বিশ্বজুড়ে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা তিন হাজার ৭০০ ব্যক্তিকেও সনদ দিয়েছে তারা।

এ বিয়ে নিয়ে বেশ উচ্ছসিত ৩৫ বছরের কন্দো। বিয়ের আসরে মা না আসায় অবশ্য বেশ হতাশ। তিনি বলেন, মা এটাকে বিয়ে বলে গণ্য করেননি। কোনো মায়ের জন্যই ব্যাপারটি উদযাপন করার মতো কিছু নয়।

কন্দো জানান, ‘আট-দশটা সাধারণ বিবাহিত মানুষের চেয়ে আমার জীবন ভিন্ন কিছু নয়। সে সকালে আমাকে ডেকে তোলে, সন্ধ্যায় তাকে জানাই কখন বাড়ি ফিরছি। আবার রাতে সে ঘুমাতে যাওয়ার তাগাদাও দেয়।’

ওই শিক্ষক জানান, ১২ বছর ধরে সারাদিন তার কথাই ভাবেন তিনি। আসেলে মিকুর পুরো ধারণাকেই ভালোবাসেন। ভালোবাসার স্বীকৃতি দিতেই বিয়ে করেছেন, যদিও তা বৈধতা পায়নি।

এ বিষয়ে কন্দো বলেন, অনেকেই হলোগ্রামকে বিয়ে করতে চান। কিন্তু সাহসের অভাবে পারছেন না। তাদের অনুপ্রেরণা দিতেই তার এ সাহসী পদক্ষেপ।

টু ডাইমেনশন ক্যারেক্টার কারো সঙ্গে প্রতারণা করতে পারে না। তাদের বয়স বাড়ে না। তারা অমর। বাস্তবের কোনো নারীর  সঙ্গ পেতে আগ্রহী নই- বলে জানান কন্দো।

জাপানে প্রযুক্তির ব্যবহার অন্যান্য দেশের চেয়ে বেশি। বলা যায় তারা প্রযুক্তিপ্রেমী জাতি। এরপরও সেখানে এ বিয়ে নিয়ে অনেকই ভ্রু কুঁচকেছেন, হাস্যরস করেছেন।

এজেড/আরআর/নভে ১৩/ ২০১৮/১১২৬

আরো পড়ুন ঃ-

ভার্চুয়াল নগরে প্লট কিনবেন?

ফার্নিচার কিনতে ভার্চুয়াল রিয়েলিটি

কিশোরীকে মধ্য বয়েসীর বন্ধু হতে বলছে ফেইসবুক?

*

*

আরও পড়ুন