গেইমে শিশুদের আসক্তি কমাতে টেনসেন্টের কড়াকড়ি

ছবি : টেকশহর
Evaly in News page (Banner-2)

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : অল্প বয়েসী গেইমারদের মোবাইল গেইম আসক্তি কমাতে একটি ব্যবস্থা নেবার কথা জানিয়েছে গেইম নির্মাতা প্রতিষ্ঠান টেনসেন্ট।

চীন সরকারের দিক থেকে নির্দেশনা আসার পর খাত সংশ্লিষ্টরা খুব শিগগিরই বিষয়টি নিয়ে সরকারের প্রতিনিধির মুখোমুখি হবে।

একটি ‘স্বাস্থ্যকর গেইমিং’ সিস্টেম তৈরির চেষ্টা করছে টেনসেন্ট, যেখানে গেইমারদের জন্য প্রতিদিন খেলার সময় বেঁধে দেবে। এমন কি ফেসিয়াল রিকগনিশন যুক্ত করে গেইমারকে নিবন্ধন করতে হবে, তারপর দেবে আইডি।

ইতোমধ্যে টেনসেন্টের অন্যতম জনপ্রিয় স্মার্টফোন গেইম অনার অব কিংসে যুক্ত করা হয়েছে এমন প্রযুক্তি। খুব শিগগির আরও অন্তত নয়টি অন্যান্য মোবাইল গেইমে প্রয়োগ করা হবে এটি এবং আগামী বছর থেকে টেনসেন্টের সবগুলো গেইমেই তা করা হতে পারে বলে এক উইচ্যাট পোস্টে জানায় প্রতিষ্ঠানটি।

চীন সরকার গেইমিংয়ে আসক্তদের ‘শোনা ও দেখার’ সমস্যা দূর করতে কিছু পদক্ষপ নিয়েছে, যার মধ্যে ভিডিও গেইমে নিয়ন্ত্রণ আনা একটি।

এ জন্য গত আগস্টে দেশটির সরকার অনলাইনে ভিডিও গেইম পাবলিশের ক্ষেত্রে কিছু নীতিমালা করে দিয়ে কড়াকড়ি এনেছে। প্লাটফর্মগুলোতে যেন চীনারা খুব বেশি সময় দিতে না পারে সেদিকে নজর রাখতেও বলেছে সরকার।

বিশ্বের সবচেয়ে বড় গেইম নির্মাতা প্রতিষ্ঠান টেনসেন্ট। গেইম থেকে প্রতিষ্ঠানটি প্রতি বছর কয়েক বিলিয়ন ডলার আয় করে।

প্রতিষ্ঠানটিও তাদের প্লাটফর্মে গত মার্চ থেকে সরকারি অনুমোদন ব্যতীত গেইম নেওয়া থেকে বিরত থাকছে।

কোম্পানিটির বাজারে আনা ‘প্লেয়ার্স আননোনস ব্যাটেলগ্রাউন্ডস বা পাবজি’ মোবাইল গেইমটি যদি মনিটাইজেশন লাইসেন্স পায় তবে বছরে অন্তত ১০০ কোটি ডলার আয় করবে।

টেনসেন্ট সেপ্টেম্বরে ঘোষণা দিয়েছে, তারা প্রকৃত নাম ঠিকানা নিয়ে তবেই মোবাইল ব্যাটল গেইম অনার অব কিংসে নিবন্ধনের সুযোগ দেবে।

এমনকি ১২ বছরের নীচের শিশুরা সেখানে দিনে মাত্র এক ঘণ্টা গেইম খেলার সুযোগ পাবে। তবে সেটাও রাত নয়টা থেকে সকাল আটটার মধ্যে খেলতে পারবে না। আর ১২ বছরের উপরের শিশুরা একই শর্তে দিনে দুই ঘণ্টা গেইমটি খেলার সুযোগ পাবে।

সোমবার টেনসেন্ট জানিয়েছে, তাদের গেইমটি খেলতে যারা আগ্রহী ছিল তাদের নিবন্ধন ফেইস রিকগেনশনের মাধ্যমে হয়েছে। সুযোগটি বেইজিং ও শেনজেনের আগ্রহীরা অক্টোবর পর্যন্ত পেয়েছে।

রয়টার্স অবলম্বনে ইএইচ/নভে ০৫/২০১৮/১০১৪

*

*

আরও পড়ুন