কল সেন্টারগুলো কর্মীর বদলে এআই ব্যবহারে আগ্রহী

chatbot-techshohor

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : গায়ে গতরে দশাসই রোবট নয় বরং কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা বা এআই সমৃদ্ধ সফটওয়্যারই চাকরির বাজারে সবচেয়ে বড় হুমকি।

এআই এখন মানুষের প্রশ্ন বুঝে উত্তর দিতে পারায় কল সেন্টার কর্মীদের চাকরি হুমকির মুখে পড়েছে।

গত সপ্তাহেই যুক্তরাজ্যের রিটেইল জায়ান্ট মার্কস অ্যান্ড স্পেন্সার তাদের ১০০ কল সেন্টার কর্মীকে অন্যত্র সরিয়ে নিয়েছে। তাদের জায়গায় মার্ক অ্যান্ড স্পেন্সারের ৬৪০ টি স্টোরে এখন থেকে ক্রেতাদের অভিযোগ শুনবে টুইলিওর তৈরি চ্যাটবট। এই কাজে গুগলের ডায়ালগফ্লো এআই টুল ক্রেতাদের মৌখিক অভিযোগ লিখে নেবে এবং তাদের অভিমত বুঝতে চেষ্টা করবে। এরপর ক্রেতাদের কলটি নির্দিষ্ট ডিপার্টমেন্ট বা শপে ট্রান্সফার করা হবে।

Techshohor Youtube

টুইলিও হচ্ছে ক্যালিফোর্নিয়াভিত্তিক একটি সফটওয়্যার কোম্পানি। তারা জানিয়েছে, বছরে তাদের তৈরি সফটওয়্যারটি ১২ মিলিয়ন বা ১ কোটি ২০ লাখ কল ধরতে পারবে।

মার্কেট রিসার্চ ফার্ম গার্টনারের বাজার বিশ্লেষক ব্রিয়ান মানুসামা বলেছেন, বহু বছর ধরেই কল সেন্টারের কর্মীদের চাকরি ঝুঁকিতে থাকার বিষয়টি নিয়ে আলোচনা হয়েছে। এবার এটি বাস্তবেই ঘটতে শুরু করেছে।

তিনি জানিয়েছেন, জটিল কাজ যেমন গ্রাহককে বিনিয়োগের ঝুঁকি সম্পর্কে পরামর্শ দেওয়ার পর্যায়ে এআই প্রযুক্তি এখনো পৌঁছাতে পারেনি। এক্ষেত্রে মানব কর্মীই ভরসা। কিন্তু তারপরও কোম্পানিগুলো প্রযুক্তি ব্যবহারে মরিয়া। এর প্রধান ও একমাত্র কারণ হলো খরচ। মানব কর্মীর পেছনে কোম্পানিগুলোর প্রচুর খরচ হয়। তাই চ্যাটবটের মতো প্রযুক্তি বৃহৎ পরিসরে ছড়িয়ে পরাটা এখন কেবল সময়ের ব্যাপার।

এখন পর্যন্ত আমরা ৭০০ কোম্পানির কথা জানি যারা এআই সমৃদ্ধ চ্যাটবট ব্যবহারে মরিয়া। প্রতিদিনই কোনো না কোনো কোম্পানি এর সুবিধা নিতে আগ্রহ প্রকাশ করছে।

যুক্তরাজ্যের আইপিসফট কোম্পানিতে ব্যবহার করা হচ্ছে ডিজিটাল অ্যাসিস্ট্যান্ট অ্যামিলিয়া। এটি কল রিসিভ করে গ্রাহকের সঙ্গে কথা বলতে পারে আবার বিদেশেও ফোন করতে পারে।

তবে ঝুঁকি বিশ্লেষণ বা ক্রেডিট কার্ড লেনদেনের সমন্বয়সাধন করা অ্যামিলিয়ার পক্ষে সম্ভব নয় বলে এ প্রযুক্তি নিয়ে সন্তুষ্ট নন আইপিসফট প্রধান চেতন দুবে।

শুধু যুক্তরাষ্ট্র বা যুক্তরাজ্যেই নয় ভারত বা ফিলিপাইনেরও লাখ লাখ কর্মী চাকরি হারানোর ঝুঁকিতে আছে। চাকরি বাঁচাতে দ্রুতই তাদের অন্যান্য কাজ শিখে ফেলা উচিত বলে মত দিয়েছেন বিশ্লেষকরা।

আরও পড়ুন : এআইয়ের কারণে হুমকির মুখে কল সেন্টারের চাকরি

বিবিসি অবলম্বনে আনিকা জীনাত

*

*

আরও পড়ুন