কসাই মিলছে অনলাইনেই

তুসিন আহমেদ, টেক শহর কন্টেন্ট কাউন্সিলর : কোরবানির পশু কেনার পর তা কাটার জন্য কসাই খুঁজে পাওয়া ঈদের সময় কঠিন হয়ে পড়ে।

তবে প্রযুক্তির কল্যাণে কসাই খোঁজার কাজটি করা যাবে খুব সহজেই। ডিজিটাল প্রযুক্তির সঙ্গে পাল্লা দিয়ে অনলাইনে গরু বিক্রির পাশাপাশি মিলছে কসাই। অনলাইনেই কয়েক ক্লিকে বুকিং করা যাবে কসাই।

ঈদ-উল-আজহা উপলক্ষে ইন্টারনেটভিত্তিক সার্ভিস প্লাটফর্ম সেবা ডট এক্সওয়াইজেড এর মাধ্যমে কসাই ঠিক করা যাবে। কোরবানির পশুর মূল্য অনুযায়ী নির্ধারিত হবে কসাই পেশাজীবীর সেবামূল্য। এক্ষেত্রে গ্রাহকের পশুর মূল্যের ওপর প্রতি হাজারে তিনশত টাকা করে সেবামূল্য প্রদান করতে হবে। সেবাটি শুধু ঢাকার মধ্যেই পাওয়া যাবে।

সেবা ডটএক্সওয়াইজেড এর প্রধান নির্বাহী আদনান ইমতিয়াজ হালিম বলেন, শহরে অনেকেই পশু কোরবানির সময়ে মাংস প্রক্রিয়াকরণে দক্ষ কসাই পেশাজীবী খুঁজে পান না। তাদের পাশে থাকবে সেবা। আমরা চাই শহরের বর্জ্য ব্যবস্থাপনাও হবে পরিকল্পিত। এক্ষেত্রে  রয়েছে আমাদের ক্লিনিং সার্ভিস। কোরবানি পরবর্তী বর্জ্য ব্যবস্থাপনায় নিবন্ধিত পরিচ্ছন্নতা কর্মী সরবারহ করা হবে।

এই সেবাটি নিতে এই ঠিকানায় যেতে হবে। তারপর সাইটের ডান পাশে থাকা ‘কসাই বুকিং’ অপশনে গরুর মূল্য লিখলে দেখা যাবে কত টাকা ব্যয় হবে। এরপর ‘কসাই বুক করুন’ অপশনে ক্লিক করে বুকিং করা যাবে।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকেও পাওয়া যাচ্ছে কসাই। এর জন্য ‘বুচার শপ কসাই সাপ্লাই’ নামে একটি পেইজ আছে। পেইজে থাকা ফোন নম্বরে কল করে কিংবা ম্যাসেজ করে কসাই বুকিং করা যাবে।

এক্ষেত্রে গ্রাহকের পশুর মূল্যের উপরে প্রতি হাজারে ২০০ টাকা করে প্রদান করতে হবে। সেবাটি শুধু ঢাকার মধ্যেই পাওয়া যাবে। ফেইসবুকে এই পেইজের মাধ্যমে গত ৩ বছর ধরের সবাই সেবা দিচ্ছেন সোলায়মান হোসেন।

তিনি বলেন, ফেইসবুকের মাধ্যমে আমরা ভালো সাড়া পাচ্ছি। গেল বছর প্রায় ৭০টি অর্ডার পেয়েছি আমরা। এই বছর ১৫০ জন গ্রাহকে আমরা সেবা প্রদানে প্রস্তুত।

কোরবানির ঈদের পর ১ মাস মাংসের ব্যবসা বন্ধ থাকে। এ সময় কসাইরা বসে বসে দিন কাটায়। তাদের জন্য কিছু করার চিন্তা মাথায় আসার পর পেইজটি চালু করা হয়েছে। এখন প্রায় শতাধিক কসাই আমাদের সঙ্গে যুক্ত রয়েছে। 

গরুর মাংস প্রক্রিয়াজাত করে অনলাইনের মাধ্যমে বিক্রি করে আসছে দেশীয় প্রতিষ্ঠান বেঙ্গল মিট। প্রতিষ্ঠানটি অনলাইনে কোরাবানির পশুও বিক্রি করছে। পাশাপাশি পশু দিচ্ছে মাংস প্রসেসিং ও হোম ডেলিভারির সুবিধা। যেখানে তাদের নিজেদের কসাই দিয়েই মাংস কাটার কাজ করে দেবে তারা। বিস্তারিত জানা যাবে এই ঠিকানায়। 

ইমরান হোসেন মিলন

*

*

আরও পড়ুন