ডেটা সেন্টারের ২০০ বিলিয়নের বাজারে নজর ইন্টেলের

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর :  দিন দিন বিশ্বব্যাপী ডেটা সেন্টারের পরিমাণ বাড়ছে। এই সুযোগকে কাজে লাগাতে চায় চিপ নির্মাতা প্রতিষ্ঠান ইন্টেল।

প্রতিষ্ঠানটির এক এক্সিকিউভ বলেছেন, ইন্টেল ২০২২ সালের মধ্যে অন্তত এই খাতে ২০০ বিলিয়নের বাজার তৈরি করবে।

ইন্টেল কর্পোরেশনের ডেটা সেন্টার গ্রুপের এক্সিকিউটিভ ভাইস প্রেসিডেন্ট ও জেনালের ম্যানেজার নাভিন শিনয় বলেন, ২০১৭ সালে ইন্টেল কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা নির্ভর জেওন প্রসেসর থেকে ১০০ কোটি ডলার আয় করেছে।

বুধবার ক্যালিফোর্নিয়ার সান্টা ক্লারায় ইন্টেলের প্রধান কার্যালয়ে ডেটা-কেন্দ্রিক উদ্ভাবনী সম্মেলনে শিনয় মূল উপস্থাপনা করেন। সেখানে তিনি দেখান, গত কয়েক বছরে যে পরিমাণ ডেটা সেন্টার তৈরি হয়েছে তার ৯০ শতাংশই গত দু’বছরে হয়েছে।

বিশ্লেষকরা আভাস দিচ্ছেন, ২০২৫ সালের মধ্যে ডেটার ব্যবহার আরো অন্তত ১০ গুণ বাড়বে। এই পরিমাণ বাড়লে তা পৌঁছাবে ১৬৩ জেটাবাইটে।

প্রতিষ্ঠানটি তাদের জেওন প্রসেসর ২০ বছর আগে বাজানে আনে।

গত জুলাইয়ে যখন ‘ইন্টেল জেওন স্কেলেবল প্লাটফর্ম’ চালু করা হয় তখন থেকেই এর চাহিদা বেড়েই চলেছে। চলতি বছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকে ২০ লাখ ইউনিট বিক্রি করেছে।এমনকি তৃতীয় প্রান্তিকে প্রথম চার সপ্তাহের মধ্যেই আরো ১০ লাখ ইউনিট বিক্রি করেছে বলেও জানান তিনি।

২০১৭ সালেই ডেটা সেন্টারে ব্যবহৃত এআই নির্ভর ইন্টেল জেওন প্রসেসর থেকে অন্তত ১০০ কোটি ডলার আয় করেছে প্রতিষ্ঠানটি।

ইন্টেল এখন এআই নিয়ে প্রশিক্ষণ এবং কর্মদক্ষতা উন্নয়নে কাজ করছে। ২০১৪ সাল থেকে এখন পর্যন্ত এই খাতে দক্ষতা ২০০ গুণ বৃদ্ধি পেয়েছে বলে জানান শিনয়।

বিশ্বখ্যাত এ চিপ নির্মাতা প্রতিষ্ঠান তাদের পোর্টফোলিওকে আরও সমৃদ্ধ করতে উদ্ভাবনে জোর দিচ্ছে। স্মার্টনিক পণ্য তালিকায় রয়েছে, ক্যাসকেড গ্লাসিয়ার কোডনামে একটি চিপ। এটাও ইন্টেল জেওন প্রসেসর কেন্দ্রিক হবে।

তারা এখন ফাইভজি নিয়ে কাজ করছে। কারণ সামনে আসছে এ প্রযুক্তির সময়। তখনকার দিনে প্রসেসর এবং চিপের চাহিদায় নতুন মাত্রা যুক্ত হবে। আর সেগুলোতে অবশ্যই এআই থাকা চাই।

শিনয় জানান, একই সঙ্গে তারা ডেটাতেও সবসময় নজর দিয়েছেন। তাই ডেটা কতটা সহজে সংরক্ষণ করা যায়, কতটা দ্রুত সেগুলো স্থানান্তর করা যায় সেদিকে নজর দেয়া এবং ক্লাউড নির্ভর করে ফেলার দিকে গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে।

আইএএনএস অবলম্বনে ইমরান হোসেন মিলন

*

*

আরও পড়ুন