Header Top

এমআই ব্যান্ড ৩, ফিটনেস ট্র্যাকারে অতুলনীয় ডিভাইস

Evaly in News page (Banner-2)

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : চীনা নির্মাতা শাওমির তৈরি জনপ্রিয় এমআই ব্যান্ড ফিটনেস ট্র্যাকারের সর্বশেষ সংস্করণ এমআই ব্যান্ড ৩ সম্প্রতি বাজারে এসেছে।

হালকা, পাতলা, আর পানি নিরোধী ডিভাইসটি কী এমআই ব্যান্ড ২ এর জনপ্রিয়তাকে টেক্কা দিতে পারবে? চলুন দেখা যাক।

এক নজরে শাওমি এমআই ব্যান্ড ৩

  • ০ দশমিক ৭৮ ইঞ্চি ডিসপ্লে, ১২৮ x ৮০ পিক্সেল রেজুলেশন, ওলেড
  • ডিসপ্লেতেই টাচ সুবিধা
  • টাচ বাটন
  • ব্লুটুথ ৪ দশমিক ২ এলই প্রযুক্তি
  • প্রায় ১৫০ ফিট পর্যন্ত পানি নিরোধী
  • ২ সপ্তাহ থেকে ১ মাস ব্যাটারি লাইফ
  • নোটিফিকেশন দেখার সুবিধা
  • ব্যায়াম ও ঘুম ট্র্যাক করার সুবিধা
  • হৃদস্পন্দন মাপার সেন্স

ডিজাইন

নতুন এমআই ব্যান্ডের আকৃতি আগের চেয়ে বেশ বড়। পুরো বডির ডিজাইন আরও গোলগাল, অনেকটা চ্যাপ্টা হয়ে যাওয়া ক্যাপসুলের মত। সামনের পুরো অংশটিই এবার ২.৫ডি গ্লাসে তৈরি করা হয়েছে, যার জন্য দেখতে আরও দৃষ্টিনন্দন।

সঙ্গে থাকা ব্যান্ডের ডিজাইন অল্প পরিবর্তন হয়েছে, তবে খুব বেশি নয়। ব্যান্ড তৈরিতে ব্যবহার হওয়া সিলিকন রাবার আগের চেয়ে আরামদায়ক।

পুরো ব্যান্ডটির ওজন খুবই কম। হাতে আছে কি নেই তা এক সময় খেয়াল রাখাও অসম্ভব হয়ে যাবে। সব মিলিয়ে, দেখতে ও পরতে দুটি দিক থেকেই এমআই ব্যান্ড ৩ অনন্য।

ফিটনেস ট্র্যাকিং

কত ধাপ হাঁটলেন বা দৌঁড়ালেন ব্যবহারকারী, ঘুমিয়ে আছেন কী না, তার হার্ট কত দ্রুত চলছে, এ তিনটি জিনিস পরিমাপ করে এমআই ব্যান্ড ৩। অ্যাপের মাধ্যমে জেনে নেয় ব্যবহারকারীর লিঙ্গ, ওজন, উচ্চতা আর বয়স।

এসব থেকে কতটুকু দূরুত্ব দৌঁড়ানো হয়েছে বা কত ক্যালোরি ক্ষয় হয়েছে, তা সরাসরি ডিসপ্লেতে দেখাতে পারবে ডিভাইসটি।

হার্ট রেট সেন্সরটি এবার আরও নির্ভুলভাবে কাজ করে। তবে যাদের কব্জি মোটা তাদের বেগ পেতে হতে পারে। বেশিরভাগ ক্ষেত্রে হার্ট রেট কিছুটা বেশি দেখাবে ডিভাইসটি তাই সেভাবেই রিডিং করতে হবে।

নোটিফিকেশন

ফোনে আসা ম্যাসেজ, কল বা অন্যান্য নোটিফিকেশনের সঙ্গে ভাইব্রেট করবে এমআই ব্যান্ড ৩। ডিসপ্লেতে দেখা যাবে ফোন নম্বর বা কন্ট্যাক্টের নাম। ম্যাসেজের লেখাও ডিসপ্লেতে দেখানো হবে। তবে উত্তর দেয়া বা ফোন ধরা বা কেটে দেয়া যাবে না।

অ্যালার্মের সময়ও এমআই ব্যান্ড ভাইব্রেট করবে। ঘুম থেকে উঠতে যাদের কষ্ট হয় তাদের জন্য কাজের।

ব্যাটারি লাইফ

স্মার্টব্যান্ড হিসেবে ব্যাটারিলাইফ কিছুটা কম। পরীক্ষা করে দেখা গেছে, অন্তত দেড় সপ্তাহ ব্যান্ডটি এক চার্জে চালানো যাবে্ কিন্তু তা হালকা ব্যবহারে। ভারী ব্যবহারে তা খুব দ্রুত কমে যাবে।

অন্যান্য

ফোন হারিয়ে গেলে ব্যান্ড থেকে ফোনে রিং বাজানো যাবে। আর ঘড়ি হিসেবে ব্যবহার করার সুবিধা থাকছেই।

এক নজরে ভালো

  • ডিজাইন
  • পানি নিরোধী
  • তুলনামূলক নির্ভুল ফিটনেস ট্র্যাকিং
  • নোটিফিকেশন

এক নজরে খারাপ

  • ব্যাটারিলাইফ আরও ভালো হতে পারত

মূল্য

তিন হাজার ৩০০ টাকা।

এস এম তাহমিদ

*

*

আরও পড়ুন