মহাকাশ যাত্রার অপেক্ষা বাড়ল এক দিন

BSSC-1-techshohor

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : যাত্রা শুরুর কাউন্ট ডাউনের শেষ এক মিনিটের মাথায় উড়াল দেয়া থামাল বঙ্গবন্ধু-১ স্যাটেলাইট।

মহাকাশ পানে যাত্রা শুরু বা লঞ্চিং প্যাড হতে উৎক্ষেপণের প্রক্রিয়াটি পুরোটাই স্বয়ংক্রিয়। রকেট ওড়ার মুহূর্তে কম্পিউটারে যদি কোনো সমস্যা ধরা পরে, তাহলে স্বয়ংক্রিয়ভাবেই কাউন্ট ডাউন থেমে যায়, উৎক্ষেপণ আটকে যায়। এতে উৎক্ষেপণকারী প্রতিষ্ঠান স্পেসএক্স বা কারও কোনো হাত থাকে না।

দেশের প্রথম স্যাটেলাইটের ক্ষেত্রেও এমনটি ঘটেছে।

Evaly in News page (Banner-2)

এখন সংরক্ষিত দিনের একই সময়ে, মানে শুক্রবার রাত ১টা ৪৭ মিনিট থেকে ৪টা ২২ মিনিটের মধ্যে যে কোনো সময় আবারও যাত্রা শুরু করবে বঙ্গবন্ধু-১ স্যাটেলাইট।

যে রকেটে করে মহাকাশের পথে ছুটবে স্যাটেলাইট সেই ফ্যালকন ৯ শুক্রবার নির্দিষ্ট সময়েই ফুয়েল নিয়ে যাবতীয় প্রস্তুতি সম্পন্ন করে যুক্তরাষ্ট্রের কেনেডি স্পেস সেন্টারের লঞ্চ প্যাডে দাঁড়িয়ে ছিল।

যান্ত্রিক পরীক্ষা-নিরীক্ষা, আবহাওয়া সব কিছুই ঠিকঠাক ছিল। প্রথম দিনের উৎক্ষেপণ কেনো থেমে গেলো এখন তার কারণ খুঁজে দেখবেন প্রকৌশলীরা।

উৎক্ষেপণ কার্যক্রম স্থগিতের পর তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক সাংবাদিকদের বলেন, গ্রাউন্ড স্টেশনের কিছু কারিগরি জটিলতায় বৃহস্পতিবারের মতো উৎক্ষেপণ স্থগিত করা হয়। তবে স্যাটেলাইট বা রকেট একেবারেই ত্রুটি মুক্ত আছে।

ফ্লোরিডায় উৎক্ষেপণ দেখতে কেনেডি স্পেস সেন্টারে প্রধানমন্ত্রীর তথ্য প্রযুক্তি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয় তার ফেইসবুকে লিখেছেন, “উৎক্ষেপণের শেষ মিনিট পুরোপুরি নিয়ন্ত্রিত হয় কম্পিউটারের মাধ্যমে। কম্পিউটারের হিসাবে কোনো কিছু স্বাভাবিকের বাইরে ধরা পড়লে তা উৎক্ষেপণ কার্যক্রম স্থগিত করে দেয়। আজকে উৎক্ষেপণের মাত্র ৪২ সেকেন্ড আগে তা বন্ধ করে দেয়।”

জয় লেখেন, “স্পেসএক্স আবার সব কিছু পরীক্ষা করবে এবং আগামীকাল একই সময়ে আবার উৎক্ষেপণের চেষ্টা করবে।”

রকেট উৎক্ষেপণের ক্ষেত্রে কোনো ধরনের ঝুঁকি নেওয়া হয় না, তাই এ রকম হওয়াটা ‘খুবই স্বাভাবিক’ বলে মন্তব্য করেন জয়।

রকেট উৎক্ষেপণ, স্যাটেলাইট নিয়ে কাজ করা বিশেষজ্ঞরা বলছেন, হঠাৎ উৎক্ষেপন আটকে যাওয়া অস্বাভাবিক কিছু নয়। কোনো ক্রুটি নিয়ে কোনোভাবেই স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণ করা হয় না। আর মহাকাশে কক্ষপথ পর্যন্ত পৌঁছতে পাড়ি দিতে হবে ৩৬ হাজার কিলোমিটার পথ।

যান্ত্রিক বিষয় ছাড়াও স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণের সঙ্গে আবহাওয়া ও পৃথিবীর অভিষর্কের হিসাব-নিকাশ খুব গুরুত্বপূর্ণ। পৃথিবী হতে অন্তত ১৫০ কিলোমিটার পথ পার হতে পারলে পরবর্তী পথ নিয়ে ভাবনা কম।

বৃহস্পতিবার ভোর রাতে সরাসরি উৎক্ষেপন দেখতে কেনেডি স্পেস সেন্টারে উপস্থিত বাংলাদেশের প্রতিনিধি দলের নেতৃত্বে ছিলেন প্রধানমন্ত্রীর তথ্যপ্রযুক্তি উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়।

তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক, তথ্য প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম, বিটিআরসি চেয়ারম্যান ড. শাহজাহান মাহমুদ, টেলিযোগাযোগ সচিব শ্যাম সুন্দর সিকদার, প্রধানমন্ত্রীর উপ-প্রেস সচিব আশরাফুল আলম খোকনসহ ৩০ জনের প্রতিনিধি দল এতে যোগ দিয়েছিলেন।

*

*

আরও পড়ুন