কী দেবে বঙ্গবন্ধু-১ স্যাটেলাইট

Evaly in News page (Banner-2)

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : বাংলাদেশের জন্যে নতুন ইতিহাসের জন্ম দেওয়া বঙ্গবন্ধু-১ স্যাটেলাইট নিয়ে শুধু দেশে নয় আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলেও চলছে ব্যাপক আলোচনা।

কিন্তু কী হবে এই স্যাটেলাইট দিয়ে? সেই প্রশ্নও আছে লাখো মনে? কেনই বা এতো টাকা খরচ করে এই স্যাটেলাইট উড়ানো হচ্ছে? সে কি কেবলই দেশের সম্মান বাড়ানো নাকি এর সঙ্গে আরও কিছু বিষয় আছে?

চলুন জেনে নেওয়া যাক এসবের উত্তর :

স্যাটেলাইট নিয়ে যে প্রকল্প তৈরি করা হয়েছে সেখানে বলা হয়েছে, দেশের স্যাটেলাইট টেলিভিশনগুলোর জন্যে এটি একটি বড় কাজের হবে। কমিউনিকেশন স্যাটেলাইট হওয়ায় যোগাযোগই এর প্রধানতম কাজ।

সেক্ষেত্রে এটি নিজেরা যোগাযোগের কাজে ব্যবহার করা, টেলিভিশন বা প্রত্যন্ত অঞ্চলে ইন্টারনেট সংযোগ দেওয়া বা এই স্যাটেলাইটের ক্ষমতা অন্য দেশের কাছে বিক্রি করার বিষয় রয়েছে ।

প্রকল্পে বলা আছে, বর্তমানে টেলিভিশন চ্যানেলগুলো বিদেশের স্যাটেলাইট ভাড়া হিসেবে বছরে এক কোটি ৪০ লাখ ডলার খরচ করে। বাংলাদেশের টেলিভিশনগুলো এই স্যাটেলাইট ব্যবহার করলে সরাসরি এই টাকাগুলো বাঁচবে।

তাছাড়া বিদেশের টেলিভিশনগুলোর কাছে ভাড়া দিয়ে আয় হবে অনেক টাকা।

দুর্যোগ পরিস্থিতি মোকাবেলা ও ব্যবস্থাপনায় দারুণ কার্যকর ভূমিকা রাখবে এই স্যাটেলাইট। তাছাড়া সীমান্ত এলাকায় বা উপকূলে অথবা অন্য প্রত্যন্ত অঞ্চলে যেখানে ফাইবার অপটিক্যাল ক্যাবল নেওয়া সম্ভব নয় সেখানে ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট সেবা নিশ্চিত করা যাবে সহজেই। তাছাড়া জাতীয় নিরাপত্তা নিশ্চিত করার কাজেও এ স্যাটেলাইটকে কাজে লাগানো সম্ভব হবে বলে বলছেন সংশ্লিষ্টরা।

যদিও তারা বলছেন, স্যাটেলাইটের মাধ্যমে যে ব্যান্ডউইডথ পাওয়া যাবে তা অত্যন্ত ব্যয়বহুল। ফাইবার অপটিক দিয়ে সরবরাহ করা ব্যান্ডউইডথের তুলনায় স্যাটেলাইট নিয়ন্ত্রিত ইন্টারনেট ব্যান্ডউইডথের খরচ প্রায় ১০০ গুণ বেশি। তারপরেও দেশের যে ৭৫০ ইউনিয়নে এখন ফাইবার অপটিক ইন্টারনেটের সংযোগ নেই, সেখানকার ইন্টারনেট বঞ্চিত জনগণকে সহজেই ইন্টারনেট সেবা দেবে এই স্যাটেলাইট।

তবে আবহাওয়ার বিষয়ে এটি কোনো কাজেই লাগবে না বলেও মনে করিয়ে দেন তারা।

বলা হচ্ছে, স্যাটেলাইট আসলে একটি প্লাটফর্ম। এখন এই প্লাটফর্মকে কেন্দ্র করে আরও শত-সহস্র কার্যক্রম শুরু হবে। আর সব কিছুর উপরে  বাংলাদেশের অর্জন হবে ৫৭তম দেশ হিসেবে স্যাটেলাইট ক্লাবে প্রবেশ।

জামান আশরাফ

*

*

আরও পড়ুন