দেশে হ্যান্ডসেট সংযোজনে সাত আবেদন

Evaly in News page (Banner-2)

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : সাময়িক লাইসেন্স পেয়ে দেশে ইতোমধ্যে হ্যান্ডসেট সংযোজন শুরু করেছে ওয়ালটন। সেই হ্যান্ডসেট বাজারেও এসেছে।

শিগগির দেশে হ্যান্ডসেট সংযোজনের এই পথে আছে স্যামসাং ও সিম্ফোনি। আছে আরও কয়েকটি দেশী-বিদেশি কোম্পানিও।

বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন বাংলাদেশে হ্যান্ডসেট সংযোজন কারখানার জন্য সব মিলে সাতটি আবেদন পেয়েছে। তালিকার পরের নামগুলো হল-আমরা নেটওয়ার্কস, ট্রানশান বাংলাদেশ লিমিটেড এবং আরও দুটি কোম্পানি।

নাম উল্লেখ করা কোম্পানিগুলো মে থেকে জুলাইয়ের মধ্যে ডিভাইস সংযোজন শুরু করবে বলে জানা গেছে।

চলতি বছরের মে থেকে দেশে স্যামসাংয়ের হ্যান্ডসেট সংযোজন শুরু হবে । ঢাকার অদূরে নরসিংদীর কারখনায় এজন্য সব আয়োজন চূড়ান্ত করেছে জনপ্রিয় ব্র্যান্ডটির স্থানীয় সহযোগী প্রতিষ্ঠান।

বছরে অন্তত ৫০ লাখ বিভিন্ন মডেলের হ্যান্ডসেটের সংযোজন হবে এ কারখানায়। তবে শুরুতেই গ্যালাক্সি ব্র্যান্ডের ফ্ল্যাগশিপ মডেলের কোনো সেটের সংযোজন হবে না এখানে।

সিম্ফোনি কারখানা করবে বঙ্গবন্ধু হাইটেক পার্কে। এজন্য মোবাইল কারখানায় অবকাঠামোগত সহায়তায় ইতোমধ্যে সামিট টেকনোপলিশের চুক্তিও করেছে।

সিম্ফনির মোবাইলের কারখানা প্রায় ২ একর জমির ওপর নির্মিত হবে এবং এই কারখানায় প্রায় দুই হাজার মানুষের কর্মসংস্থান হবে। এই কারখানাটির নির্মাণ ব্যয় প্রায় ১০০ কোটি টাকা।

সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে ২০১৮ সালের প্রথমার্ধে উৎপাদনে যাবে ট্রানশান ।

ট্রানশান হোল্ডিংস বাংলাদেশের সিইও রেজওয়ানুল হক আগেই জানিয়েছেন, গাজীপুরে এই কারখানা হবে। ট্রানশানের টেকনো ও আইটেল দুটি ব্র্যান্ডই এখানে উৎপাদন করা হবে।

দেশে মোবাইল ফোন কারখানা স্থাপনের কাজ গুছিয়ে এনেছে স্থানীয় ব্র্যান্ড উই’য়ের নির্মাতা প্রতিষ্ঠান আমরা কোম্পানিজ।

শুরুতে বছরে দেড় লাখ ইউনিট হ্যান্ডসেট উৎপাদন লক্ষ্য ঠিক করেছে তারা।

আমরা কোম্পানিজের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সৈয়দ ফারহাদ আহমেদ টেকশহরডটকমকে জানিয়েছিলেন, শুরুতে চারটি প্রোডাকশন লাইনের প্রতিটিতে প্রতিদিন এক হতে দেড় হাজার মোবাইল উৎপাদন করা হবে।

উইয়ের প্রাথমিক বিনিয়োগ ১৫ কোটি টাকা। আমরার এই হ্যান্ডসেট কারখানা হচ্ছে রাজধানীর মিরপুরে।

দক্ষিণ কোরিয়ার বহুজাতিক কম্পানি এলজি ইলেকট্রনিকস যৌথ বিনিয়োগে দেশে মোবাইল ফোন উৎপাদনে যাচ্ছে বলে জানা গেছে।

মেট্রোসেম নামের একটি কোম্পানি এলজির হয়ে প্লান্ট তৈরির কার্যক্রম শুরু করেছে। তারা দেশীয় বাজারে জনপ্রিয় এ ব্র্যান্ডের মোবাইল ফোন উৎপাদনের পাশাপাশি শিগগির নিজস্ব ব্র্যান্ডের মোবাইল হ্যান্ডসেট বাজারে আনাবে বলে পরিকল্পনা করছে।

আল-আমীন দেওয়ান

*

*

আরও পড়ুন