উইকিপিডিয়ার ৯০% নিবন্ধ পুরুষের লেখা

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : উইকিপিডিয়ার ৯০ শতাংশ বিষয়বস্তু পুরুষরা লেখে। আর সেখানে নারীদের তুলনায় পুরুষ সম্পর্কিত নিবন্ধ ৪ গুণ বেশি বলে উল্লেখ করেছেন উইকিপিডিয়ার সংশ্লিষ্টরা।

 ঢাকায় সুইডিশ দূতাবাসে উন্মুক্ত বিশ্বকোষ উইকিপিডিয়া নিয়ে এক কর্মশালায় এই তথ্য তুলে ধরেন বাংলাদেশে নিযুক্ত সুইডেনের রাষ্ট্রদূত সার্লোট্টা স্লাইটার।

আন্তর্জাতিক নারী দিবস উদযাপনকে সামনে রেখে গত সোমবার  ‘উইকিপিডিয়া ওয়ার্কশপ ফর ড্রিভেন কমিউনিকেটরস’ শীর্ষক একটি কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়।

সেখানে বাংলাদেশের নারী অধিকার ও লিঙ্গ সমতা নিয়ে কাজ করা ২০টি সংস্থার নারী প্রতিনিধিরা অংশ নেন। সুইডিশ দূতাবাসের আয়োজনে অনুষ্ঠিত কর্মশালাটির আয়োজনে সহযোগী ছিল উইকিমিডিয়া বাংলাদেশ।

কর্মশালার উদ্বোধনও করেন সুইডেনের রাষ্ট্রদূত সার্লোট্টা স্লাইটার।

তিনি বলেন, সুইডেন বিশ্বের প্রথম দেশ যারা নারীবান্ধব পররাষ্ট্রনীতি গ্রহণ করেছে এবং সে লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছে। বিশেষ করে মানবাধিকার ও ন্যায় বিচারের ক্ষেত্রে লিঙ্গ বৈষম্য দূর করতে আমরা কাজ করছি কারণ, লিঙ্গ সমতা শান্তি, নিরাপত্তা ও টেকসই উন্নয়নের একটি মৌলিক শর্ত।

কর্মশালায় উইকিমিডিয়া বাংলাদেশের নির্বাহী সদস্য শাবাব মুস্তাফা বলেন, ইংরেজি উইকিপিডিয়ার তুলনায় বাংলা উইকিপিডিয়ায় লিঙ্গ বৈষম্য আরও বেশি পরিমাণে বিদ্যমান। উইকিমিডিয়া বাংলাদেশ নারীদের অংশগ্রহণ বৃদ্ধির জন্য বিভিন্ন কার্যক্রম পরিচালন করে যাচ্ছে এবং ধীরে ধীরে এ অবস্থার উন্নতি হচ্ছে।

কর্মশালায় উইকিপিডিয়ায় নিবন্ধ তৈরি, সম্পাদনা, ছবি যোগ করা এবং এ কার্যক্রমের সঙ্গে যুক্ত হওয়ার নানা বিষয় নিয়ে আলোচনা করেন উইকিপিডিয়ার প্রশাসক নাহিদ সুলতান, নুরুন্নবী চৌধুরী হাছিব এবং মো. ইব্রাহীম হোসেন।

কর্মশালায় অংশগ্রহণকারী সংস্থাগুলোর মধ্যে রয়েছে রয়েছে ঢাকার ব্রিটিশ হাইকমিশন, আইন ও সলিশ কেন্দ্র, সেইভ দ্য চিল্ড্রেন, কেয়ার বাংলাদেশ, বাংলাদেশ লিগ্যাল এইড অ্যান্ড সার্ভিসেস ট্রাস্ট (ব্লাস্ট), দ্য হাঙ্গার প্রজেক্ট-বাংলাদেশ, সলিডারিডেড এশিয়া নেটওয়ার্ক, একশন এগেনিস্ট হাঙ্গার, হোপ’৮৭ বাংলাদেশ, সেইফটি অ্যান্ড রাইটস, দিয়াকোনিয়া বাংলাদেশ, বাংলাদেশ ইয়ুথলিডার শিপ সেন্টার, ওয়েভ ফাউন্ডেশন, সাজিদা ফাউন্ডেশন ও নারীপক্ষ।

৮ মার্চ আন্তর্জাতিক নারী দিবস উপলক্ষ্যে উইকিমিডিয়া বাংলাদেশ ও সুইডিশ দূতাবাস যৌথভাবে বাংলা উইকিপিডিয়াতে নারী সম্পর্কিত নিবন্ধ সমৃদ্ধ করার একটি অনলাইন অনুষ্ঠানেরও আয়োজন করেছে যা দিনব্যাপী চলবে।

ইমরান হোসেন মিলন

*

*

আরও পড়ুন