নিজেদের কাজ ছড়িয়ে দিতে চায় সেবা ডটএক্সওয়াইজেড

টেলিযোগাযোগ খাতে কাজ করেছেন দীর্ঘ ১২ বছর। সেই অভিজ্ঞতাকে পুঁজি করে নিজে কিছু করতে উদ্যোগী হোন আদনান ইমতিয়াজ হালিম।

বেছে নেন নিশ্চয়তা থেকে অনিশ্চয়তার পথ, নেন চ্যালেঞ্জ। প্রযুক্তির মাধ্যমে যোগাযোগ কাজে লাগিয়ে বাসাবাড়ি, করপোরেট অফিসে বিভিন্ন পরিসেবা পৌঁছে দেওয়া শুরু করে ‘সেবা ডটএক্সওয়াইজেড’। নিজেরা স্টার্টআপ থেকে প্রতিষ্ঠার পথে, তাই অন্যদেরও তুলে আনতে চায় তাদের সহযোগী হিসেবে। বিস্তারিত জানাচ্ছেন ইমরান হোসেন মিলন।

উদ্যোগের শুরু

উদ্যোগের শুরুটা ২০১৫ সালে। তবে তার অনেক আগে থেকেই দেশে এমন পরিসেবা দেবার নিমিত্তে কাজ শুরু করেন আদনান ইমতিয়াজ হালিম। তিনি বলেন, আমরা প্রযুক্তিকে কাজে লাগিয়ে মানুষের কাছে যাবার চেষ্টা শুরু করি অনেক আগে। এজন্য একটি পরিসেবা দেবার প্লাটফর্ম হিসেবে শুরু করছিলাম সেবা ডটএক্সওয়াইজেড এর কার্যক্রম। যার শুরু দীর্ঘদিনের বাজার গবেষণা থেকে।

আমরা যতোটা তাড়াতাড়ি বাজারে এসেছি তার চেয়ে বেশি সময় ধরে বাজার পর্যালোচনা করেছি। নিজের আত্মীয়-স্বজন, বন্ধু-বান্ধবদের মধ্যে এই পরিসেবা দিয়ে দেখার চেষ্টা করেছি এটা কতোটা কাজ করে, বলছিলেন আদনান ইমতিয়াজ।

এর পর মোবাইল অপারেটর গ্রামীণফোন চালু করে তাদের প্রথম অ্যাক্সেলারেটর প্রোগ্রাম। সেটা শুরু হয় ২০১৬ সালে। বিভিন্ন উদ্যোগ স্টার্টআপ হিসেবে সাড়ে তিনশো অ্যাপ্লিকেশন করে ওই প্রোগ্রামে। আর আমরা প্রথমবারেই সেরা পাঁচে জায়গা করে নিই, বলছিলেন আদনান।

কাজ শুরু হয়

প্রথমেই সেবা ডটএক্সওয়াইজেডের কাজ শুরু হয় পরিচিত জনদের মধ্যে। কারণ তখনও সাহস হচ্ছিল না আমরা কতোটা প্রস্তুত এটা করার জন্য। আমাদের লোকবল তখন কম ছিল। মোট কথা যারা সেবাটি নিশ্চিত করবেন সেই টেননিশিয়ান বা কারিগররা এটা কতোটা দক্ষতার সঙ্গে করবেন সেটাও বড় চ্যালেঞ্জের ছিল, বলছিলেন আদনান।

আদনান জানান, তাদের প্রথম গ্রাহক হয় গ্রামীণফোন। প্রতিষ্ঠানটির কর্মী এবং প্রতিষ্ঠানটি নিজেই তাদের সঙ্গে চুক্তি করে গ্রাহক হয়। এতে করে তাদের উদ্যোগটি এগিয়ে নেবার যে প্রয়াস সেটি বাড়তে থাকে।

এর পর এক বছর প্রতিষ্ঠানটি গ্রামীণফোনের অ্যাক্সেলারেটর প্রোগ্রামের মাধ্যমে কো-ওয়ার্কিং স্পেস পায় জিপি হাউজে। সেখান থেকে তাদের কার্যক্রম শুরু করে।

সেবাগুলো অ্যাপ, ওয়েবসাইটের মাধ্যমে

সহজে মানুষের দোরগোড়ায় পরিসেবা পৌঁছে দিতে মোবাইল অ্যাপ এবং ওয়েবসাইটের মাধ্যমে কাজের অর্ডার নেয় সেবা ডটএক্সওয়াইজেড। এ ছাড়াও কাজের অর্ডারের পর তা কনফার্ম করা, কাজের তদারকি এবং যেকোনো সমস্যায় কল সেন্টারের সহায়তা দেয় সেবা ডটএক্সওয়াইজেড।

অ্যাপের মাধ্যমে সেবা দিতে কয়েকটি ভিন্ন ভিন্ন অ্যাপ রয়েছে বলে জানান আদনান ইমতিয়াজ। তিনি জানান, তাদের সাধারণ অ্যাপের পাশাপাশি রয়েছে ‘সেবা বন্ধু’ অ্যাপ। যার মাধ্যমে শিক্ষার্থীরা ঘরে বসেই টাকা আয় করতে পারবেন।

যেসব পরিসেবা দিচ্ছে সেবা ডটএক্সওয়াইজেড

সেবা ডটএক্সওয়াইজেড মূলত ঘর গৃহস্থালীর কাজের সব ধরনের পরিসেবা দিয়ে থাকে। তবে সেবা ডটএক্সওয়াইজেডর পরিসেবা বাসাবাড়ি ছাড়াও করপোরেট অফিসের জন্য দেওয়া হয়। করপোরেট সাইটে ডিজিটাল সিকিউরিটি সার্ভিস, অফিস শিফট, লিফট অ্যান্ড জেনারেটর সার্ভিস, অফিস ক্লিনিং, আইটি অ্যান্ড গ্যাজেট সার্ভিস। এ ছাড়াও করপোরেট প্রতিষ্ঠানগুলোর জন্য অন-ডিমান্ড গাড়ি সার্ভিসও দেয় সেবা ডটএক্সওয়াইজেড।

বাসাবাড়ির জন্য সেবা ডটএক্সওয়াইজেড দেয় এয়ার কন্ডিশন সার্ভিস, ইলেক্ট্রিক অ্যান্ড হোম অ্যাপ্লায়েন্স, ইলেক্ট্রিক্যাল সার্ভিস, প্লাম্বিং ও স্যানিটারি, ফার্নিচার তৈরি ও মেরামত, ওয়াল পেইন্টিং, বাসাবাড়ি পরিষ্কারসহ বেশকিছু সার্ভিস দেয়।

এসব সার্ভিস ছাড়াও সেবা ডটএক্সওয়াইজেড কিছু ট্রেন্ডিং সেবা চালু করেছে। কিছু করারর প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। এর মধ্যে বিউটি সার্ভিস, অন ডিমান্ড গাড়ি, অন ডিমান্ড ড্রাইভার, ক্লিংনিংসহ বেশকিছু সেবা দেওয়া হচ্ছে। সেবা ডটএক্সওয়াইজেডে কিছু দিনের মধ্যে লন্ড্রি সার্ভিসও যুক্ত হবে বলে জানান আদনান ইমতিয়াজ।

যেভাবে কাজ করে সেবা ডটএক্সওয়াইজেড

সেবা ডটএক্সওয়াইজেডের কাছ থেকে কোনো সার্ভিস নিতে গেলে অবশ্যই তা মোবাইল অ্যাপ বা সাইটের মাধ্যমে অর্ডার দিতে হবে। এরপর সেবা ডটএক্সওয়াইজেড সেই অর্ডারটি কনফার্ম করবে সেবাগ্রহীতাকে। তার বাসা বা অফিসের ঠিকানায় একটা নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে লোক পৌঁছে যাবে সেবার পক্ষ থেকে। সমস্যা সমাধান হয়ে গেলে হাতে হাতে অথবা বিকাশ, রকেটের মাধ্যমেও বিল পরিশোধ করতে পারবেন সেবা গ্রহীতা।

sheba-techshohor

দলে কতজন

এখন সেবা ডটএক্সওয়াইজেডে ৭০ জন কর্মী কাজ করছেন। প্রতিষ্ঠানটির প্রধান নির্বাহী আদনান ইমতিয়াজ বলেন, আমরা ছোট একটা দল নিয়ে কাজ শুরু করি। একটা নিশ মার্কেট ছিল বাংলাদেশ, এমনকি দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোতেও এটা নতুন একটা ধারণা। ফলে এই সেবা বিস্তারে এখন কর্মী সংখ্যা বাড়াতে হয়েছে অনেক।

সেবা দেয় সেবার অন্তর্ভুক্ত প্রতিষ্ঠানের কর্মীরা

সেবা থেকে যেসব পরিসেবা দেওয়া হয় তার জন্য কাজ করেন অনেক কর্মী। যারা কোনো না কোনো প্রতিষ্ঠানের টেকনিশিয়ান বা সংশ্লিষ্ট। বর্তমানে সেবা ডটএক্সওয়াইজেড এমন নিবন্ধিত কর্মীর সংখ্যা রয়েছে চার হাজারের বেশি। যা অন্তত ১৬টি কোম্পানির অধীনে। এরা সেবায় যেকোনো সময় কাজ করে থাকেন।

লক্ষ্য উদ্যোক্তা তৈরি

দেশের সবগুলো জেলায় উদ্যোক্তা তৈরির লক্ষ্য নিয়ে এগোচ্ছে প্রতিষ্ঠানটি। এজন্য সেবা ডটএক্সওয়াইজেড অল্প সময়ের মধ্যেই প্রতিটি জেলা শহরে তাদের কার্যক্রমের পরিধি বাড়াবে। আর ঢাকার অভ্যন্তরে নারীদের উদ্যোক্তা বানাতে বিভিন্ন প্রশিক্ষণ দিচ্ছে। এর মধ্যে রয়েছে বিউটিশিয়ান তৈরি, ঘরে বসেই খাবার তৈরি, লন্ড্রি সার্ভিসের জন্য উদ্যোক্তা তৈরির প্রশিক্ষণ।

ঠিকানা

ডেভোটেক টেকনোলজি পার্ক লেবেল ১,

হাউস ১১, রোড ১১৩/এ, গুলশান-২

ঢাকা।

ওয়েবসাইট : www.sheba.xyz

১ টি মতামত

  1. Luthfar Rahman said:

    তথ্য প্রযুক্তির এই যুগে খুব দারুন একটি উদ্যোগ বলে আমি মনে করি l শুভকামনা রইলো উদ্যোক্তাদের জন্য l

*

*

আরও পড়ুন