কীবোর্ডের ফাংশন কী’র ব্যবহার

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : কীবোর্ড ছাড়া কম্পিউটার ব্যবহার দুরূহ বটে। কীবোর্ডের উপরের দিকে F1, F2,F3,F4 এই ভাবে মোট ১২টি কী আছে। এগুলোকে ফাংশন কী বলা হয়। এই কী’গুলোর ব্যবহার এবং কোনটি দিয়ে কি করা যায় তা জেনে নেওয়া যাক।

F1 : সাহায্যকারী কী হিসেবে ব্যবহৃত হয়। F1 চাপলে প্রতিটি প্রোগ্রামের ‘হেল্প’ চলে আসবে।

F2 : সাধারণত কোনো ফাইল বা ফোল্ডারের নাম বদলের (রিনেম) জন্য ব্যবহূত হয়।

Alt+Ctrl+F2 : এটি চেপে মাইক্রোসফট ওয়ার্ডের নতুন ফাইল খোলা যায়।

Ctrl+F2 : এটি চাপলে মাইক্রোসফট ওয়ার্ডের প্রিন্ট প্রিভিউ দেখা যায়।

F3: এটি চাপলে মাইক্রোসফট উইন্ডোজসহ অনেক প্রোগ্রামের সার্চ সুবিধা চালু হয়।

Shift+F3: এই কী চেপে এমএস ওয়ার্ডের লেখা বড় হাতের থেকে ছোট হাতের বা প্রত্যেক শব্দের প্রথম অক্ষর বড় হাতের বর্ণ দিয়ে শুরু ইত্যাদি কাজ করা যায়।

Morning Tips-TechShohor

F4 : Alt+F4 চেপে সক্রিয় সব প্রোগ্রাম বন্ধ করা হয়। Ctrl+F4 চেপে সক্রিয় সব উইন্ডো বন্ধ করা যায়।

F5 : মাইক্রোসফট উইন্ডোজ, ইন্টারনেট ব্রাউজার ইত্যাদি রিফ্রেশ করা হয় F5 চেপে। পাওয়ার পয়েন্টের স্লাইড শো শুরু করা যায়।
ওয়ার্ডের find, replace, go to উইন্ডো খোলা যায়।

F6 : এটা দিয়ে মাউস কার্সারকে ওয়েব ব্রাউজারের ঠিকানা লেখার জায়গায় (অ্যাড্রেসবার) নিয়ে যাওয়া যায়।

Ctrl+Shift+F6 : এটি চেপে ওয়ার্ডে খোলা অন্য ডকুমেন্টটি সক্রিয় করা যায়।

F7 : ওয়ার্ডে লেখার বানান ও ব্যাকরণ ঠিক করা হয় এ কি চেপে। ফায়ারফক্সের Caret browsing চালু করা যায়।

Shift+F7 : এই কী চেপে ওয়ার্ডে কোনো নির্বাচিত শব্দের প্রতিশব্দ, বিপরীত শব্দ, শব্দের ধরন ইত্যাদি জানার অভিধান চালু করা যায়।

F8 : অপারেটিং সিস্টেম চালু হওয়ার সময় কাজে লাগে এই কী। সাধারণত উইন্ডোজ Safe Mode-এ চালাতে এটি ব্যবহার করতে হয়।

F9 : কোয়ার্ক এক্সপ্রেস ৫.০-এর মেজারমেন্ট টুলবার খোলা যায় এই কী দিয়ে।

F10 : ওয়েব ব্রাউজার বা কোনো খোলা উইন্ডোর মেনুবার নির্বাচন করা হয় এ কী চেপে।

Shift+F10 : এটি চেপে কোনো নির্বাচিত লেখা বা সংযুক্তি, লিংক বা ছবির ওপর মাউস রেখে ডান বাটনে ক্লিক করার কাজ করা যায়।

F11: ওয়েব ব্রাউজার পর্দাজুড়ে দেখা যায় ।

F12 : ওয়ার্ডের Save as উইন্ডো খোলা হয় এ কী চেপে। Shift+F12 চেপে মাইক্রোসফট ওয়ার্ডের ফাইল সেভ করা যায়।
এবং Ctrl+Shift+F12 চেপে ওয়ার্ড ফাইল প্রিন্ট করা যায়।

– তুসিন আহমেদ

*

*

Top