অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোন নিরাপদ রাখার উপায়

তুসিন আহমেদ, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : স্মার্টফোন এখন যাপিত জীবনের অংশ। যোগাযোগের মাধ্যম ছাড়াও এটি দৈনন্দিন বহুবিধ কাজে ব্যবহার হচ্ছে। কন্টাক্ট নম্বর ছাড়াও ব্যক্তিগত জীবনের নানা তথ্য, ছবি, ভিডিও সংরক্ষণ করা হয় এতে। তাইতো এটির নিরাপদ রাখার চেষ্টা থাকে সকলের। কিছু কৌশল জানা থাকলে আগের চেয়ে এটিকে আরও নিরাপদ রাখা যাবে।

অ্যান্ড্রয়েডচালিত স্মার্টফোন ব্যবহারে সতর্কতা এবং আরো নিরাপদ রাখার উপায় নিয়ে এ টিউটোরিয়াল।

techshohor

গুগল ব্যবহার করে
অনেক সময় মোবাইল ফোন হারিয়ে কিংবা চুরি হয়ে যেতে পারে। তখন অন্য কোনো ব্যক্তির কাছে চলে যাতে পারে নিজের ব্যক্তিগত তথ্য, ছবি , ফোন নম্বর ইত্যাদি। যদি এমন হয় ফোনটি চুরি যাওয়ার পর সেটি ট্রেস করতে পারেন। কোথায় আছে তা জেনে নিতে পারেন। তাহলে কেমন হয়। অ্যান্ড্রয়েডে রয়েছে এমন চমৎকার একটি সুবিধা।

সেটি ফিরে পাওয়া সম্ভব না হলেও সকল ডাটা মুছে ফেলা সম্ভব। তাতে অন্য ব্যক্তির হাতে স্মার্টফোন চলে গেলেও গুরুত্বপূর্ণ ও ব্যক্তিগত তথ্য বেহাত হওয়া থেকে রক্ষা পাওয়া সম্ভব। জানতে চান কিভাবে?

Enable_Android_Device_Manager_techshohor

এ জন্য প্রথমে গুগল সেটিংস মেনু্রতে গিয়ে অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইস ম্যানেজার অপসনটি সিলেক্ট করতে হবে। এরপর remotely locating, locking and resetting your phone এ বক্সগুলোতে টিক চিহ্ন দিতে হবে। এবার অ্যান্ড্রয়েড মোবাইল ফোন দিয়ে ট্রেস করা স্থান বা হারানো ফোনটি খুঁজে বের করার জন্য প্রথমে Android Device Manager site এ গুগল আইডি দিয়ে লগ ইন করতে হবে।

এরপর সেখানে একই ধরনের অনেকগুলো ডিভাইস দেখা যাবে। প্রতিটি ডিভাইসে ক্লিক করলে গুগল ম্যাপে লোকেশন দেখা যাবে। আপনি চাইলে সেখানে থেকে ফোনটি লক করে দেওয়া যাবে বা ডাটাগুলো মুছে দেওয়া যাবে।

ম্যালওয়ার থেকে রক্ষা
অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইসে ম্যালওয়ারের আক্রমণ ক্রমাগত বাড়ছে। প্রায়ই স্মার্টফোনটি ম্যালওয়ার আক্রমণের শিকার হয়ে নানা বিঘ্ন তৈরি হয়। এ থেকে রক্ষার জন্য এখন এন্টিভাইরাস অ্যাপস রয়েছে। আপনার প্রিয় ডিভাইসটি ম্যালওয়ারের আক্রমণ থেকে রক্ষা করতে এন্টিভাইরাস অ্যাপ্লেকেশনগুলো ব্যবহার করতে পারেন।

Free-Antivirus-Download-for-Android_techshohor

অনেক এন্টিভাইরাসে ফোন ট্রেসিং অপসনও রয়েছে । অ্যান্ড্রয়েডের জন্য রয়েছে ফ্রি এবং বেশ কাজের অনেক এন্টিভাইরাস।

এগুলোর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো এভিজি মোবাইল সিকিউরিটি, এভাস্ট ইন্টারনেট সিকিউরিটি, নটরন সিকিউরিটি, এন্টিভাইরাস ইত্যা‌দি। তবে একটি ডিভাইসে একের অধিক এন্টিভাইরাস ব্যবহার করা উচিত নয়।

ছবির মাধ্যমে চোর শনাক্তকরণ
আপনি চোর সনাক্ত করতে চান তবে সেটিও সম্ভব হতে পারে যদি ফোনটি অ্যান্ড্রয়েডচালিত হয়। এ জন্য রয়েছে ‘লকওয়াচ এন্টি থিফ’  নামে চমৎকার একটি অ্যাপ।

lockwatch-antitheft_techshoshor

অ্যাপটি ইন্সটল করা থাকলে ফোনটি চুরির পর লক খুলতে ভুল প্যান্টান কিংবা পাসওয়ার্ড দেওয়া হলে ফন্ট ক্যামেরা ব্যবহার করে অ্যাপটি সেই ব্যক্তির ছবি তুলবে এবং ই-মেইলের মাধ্যমে জিপিএস লোকেশনে পাঠিয়ে দেবে। এতে চোরকে চিহ্নিত করা সহজ হবে।

অ্যাপটির সবচেয়ে বড় সুবিধা হলো কোনো শব্দ ছাড়া তা নীরবে ছবি তুলেতে সক্ষম। ফলে ব্যক্তিটি জানতেই পারবে না যে ছবি তোলা হয়েছে।

স্মার্টফোনের উচিত ও অনুচিত
অপরিচিত কোনো ই-মেইল থেকে কোনো অ্যাপস ডাউনলোড করা উচিত নয়। অনেকে ই-মেইলের মাধ্যমে ভাইরাস কিংবা ম্যালওয়ার পাঠিয়ে থাকে। তাই ই-মেইল ডাউনলোড করে ক্লিক করলে সেই ভাইরাস ছড়িয়ে পড়তে পারে স্মার্টফোনে।

গুগল ছাড়া অন্য ওয়েবসাইট থেকে অ্যাপ্লিকেশন ডাউনলোডের সময় সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে। সন্দেহজনক ওয়েবসাইটগুলো এড়িয়ে যেতে হবে। গুগল মার্কেট থেকে যেসব অ্যাপ্লিকেশন ডাউনলোড করা হবে সেগুলো ব্যবহারের নির্দেশিকা ভালোভাবে পড়তে হবে।

স্মর্টফোন লক করে রাখার জন্য প্যাটার্ন লক পদ্ধতি ব্যবহার না করে পাসওয়ার্ড ব্যবহার করা উচিত। প্যাটার্ন লক থেকে পাসওয়ার্ড পদ্ধতি বেশি নিরাপদ।

Related posts

Comments are closed.

Top