প্রোগ্রামিংয়ের জন্য তিন অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপস

তুসিন আহমেদ, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : প্রোগ্রামিং শব্দটার সাথে কম্পিউটারে হাতে খড়ি আছে এমন সবাই কম বেশি পরিচিত। প্রোগ্রামার হওয়ার সুপ্ত বাসনাও অনেকে বয়ে বেড়াচ্ছেন দীর্ঘদিন থেকে। এখন সময়ের সাথে প্রোগামিং বিষয়টিও জনপ্রিয় হচ্ছে। প্রযুক্তি যত উন্নতি হচ্ছে চাকরি বাজারে প্রোগ্রামারদের চাহিদা তত বাড়ছে।

এতদিন প্রোগ্রামিং বিষয়টি কম্পিউটারের মধ্যে সীমাবন্ধ ছিল। প্রোগ্রাম লেখার জন্য প্রোগ্রামাররা ডেক্সটপ কিংবা ল্যাপটপ ব্যবহার করতেন। এ জন্য ডেক্সটপ কিংবা ল্যাপটপের অপারেটিং সিস্টেম অনুযায়ী রয়েছে নানা ধরনের এডিটর, সফটওয়্যার, কম্পাইলার। স্মার্টফোনের জনপ্রিয়তার সাথে সাথে এখন তা শুধু কম্পিউটারে সীমাবদ্ধ নেই। চাইলে স্মার্টফোনটির সাহায্যে অনায়াসে চালিয়ে যাওয়া যাবে প্রোগ্রামিং কার্যক্রম।

andriod_techshohor

অ্যান্ড্রয়েডচালিত স্মার্টফোনের জন্য রয়েছে প্রোগ্রামিং ল্যাংগুয়েজ লেখার বিভিন্ন ধরনের অ্যাপস। এসব অ্যাপ্লিকেশন ব্যবহার করে প্রোগ্রামগুলোকে রান করানো যায়। অ্যান্ড্রয়েডের এমন তিনটি এডিটর, কম্পাইলার অ্যাপসের কথা তুলে ধরা হলো এ প্রতিবেদনে।

ড্রয়েড এডিট (Droid Edit)
প্রোগ্রামিং সোর্স কোড এডিটর অ্যাপ্লিকেশনের মধ্যে অন্যতম সেরা হিসাবে বিবেচিত ড্রয়েড এডিট। এটির সাহায্যে জাভা, পাইথন, রুবি, সিশার্প, এইচটিএমএল, জাভাস্ক্রিপ্ট, এসকিউলের মতো প্রোগ্রামিং ল্যাঙ্গুয়েজ নিয়ে কাজ করা যাবে।

এতে রয়েছে কালার থিম, সার্চ, রিপ্লেস, অটো অ্যান্ড রক আইডেনটিফিকেশন ফিচার। ব্লুটুথ কিংবা ওটিজি ক্যাবলের মাধ্যমে সংযুক্ত কিবোর্ড সার্পোট করবে এটি। ফলে কিবোর্ডের সাহায্যে অনায়াসে কম সময়ে প্রোগ্রাম কোড লেখা যাবে।

Droid Edit_techshohor

দারুণ এ অ্যাপ্লিকেশনটি বিনামূল্যে ডাউনলোড করে ব্যবহার করা যাবে। ড্রয়েডএডিট অ্যাপ্লিকেশনটির রয়েছে প্রো সংস্করণ যার মূল্য ২.৩ ডালার। অ্যান্ড্রয়েড ২.১ থেকে সবশের্ষ কিটক্যাট সংস্করণে কাজ করবে এটি।

এইড (AIDE)
অ্যান্ড্রয়েডের হাজার হাজার অ্যাপস দেখে অনেকের নিশ্চয় ইচ্ছা করে- ইস! আমি যদি একটি অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ বানাতে পারতাম। কেমন করে বানায় অ্যাপস? সেই সমাধান কিছু হলেও দেবে এইড অ্যাপ্লিকেশনটি। অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইসের জন্য অ্যাপ্লিকেশন তৈরির চমৎকার একটি অ্যাপ এটি।

এইড অ্যাপটি ব্যবহার করে কম্পিউটার ব্যবহার না করে অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইসের সাহায্যে অ্যান্ড্রয়েডের জন্য অ্যাপস তৈরি করা যায়। এক্লিপস প্রজেক্ট পূর্ণাঙ্গরূপে সমর্থন করে বলে এটি ব্যবহার করে কম্পিউটার থেকে অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপস স্থানান্তর করাও সুবিধাজনক।

AIDE-Android-IDE_techshohor

এর সবচেয়ে ভাল ফিচারের মধ্যে রয়েছে ড্রপবক্স সমর্থন। ফলে এতে কাজ করে ফোন স্টোরেজের পাশাপাশি ড্রপবক্সেও জমা রাখা যাবে। চমৎকার এ অ্যাপটি বিনামূল্যে ডাউনলোড করে ব্যবহার করা যাবে এখান থেকে।

তাহলে আর দেরি কেন? এখনি ডাউনলোড করে আপনার প্রিয় অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইসের জন্য অ্যাপস বানানো শুরু করুন।

সিনটেক্স হাইলাইটেড কোড এডিটরর (Synatx Highlighted code editor)
সিনটেক্স হাইলাইটেড কোড এডিটর অ্যাপ্লিকেশনটি বিশেষভাবে তৈরি করা হয়েছে ওয়েব ডেভেলপারদের জন্য। এটি কাজ করে প্রোগ্রামিং কোডগুলোর সিনটেক্স হাইলাইট করার মাধ্যমে।

caryon-syntax-highlighter_techshohor

এটির মাধ্যমে এইচটিএমএল, সিএসএস, জাভাস্ক্রিপ্ট ও পিএইচপির মতো শক্তিশালী সব প্রোগ্রামিং ল্যাংগুয়েজ নিয়ে   কাজ করা যাবে। ওয়েব ডেভেলপারদের জন্য এটি বিশেষভাবে তৈরি করা হয়েছে, যে কারণে এটি সি/সি++, জাভা এবং পাইথনও সমর্থন করে।

এতে সার্চ, রিপ্লেস, আনডু, রিডু, অন-স্ক্রিন কিবোর্ড হেলপার প্রভৃতি ফিচার রয়েছে। চমত্কার এ অ্যাপটি অ্যান্ড্রয়েড ২.২ ও সবশের্ষ কিটক্যাটে কাজ করবে। বিনামূল্য এটি ডাউনলোড করা যাবে এখান থেকে।

Related posts

*

*

Top