Maintance

‘ক্যান্সারের মতো সমস্যা টেলিযোগাযোগ বিভাগে’

প্রকাশঃ ৭:৪২ অপরাহ্ন, জানুয়ারি ৩, ২০১৮ - সর্বশেষ সম্পাদনাঃ ১:০৬ অপরাহ্ন, জানুয়ারি ৪, ২০১৮

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের ভেতরে ক্যান্সারের মতো সমস্যা রয়েছে বলে জানিয়েছেন নব নিযুক্ত ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার।

বুধবার বিকালে বেসিসে এক সম্বর্ধনা অনুষ্ঠানে মন্ত্রী বলেন, ‘আমি বাইরে হতে যা জানতাম, আমাদের সরকারের আইটি রিলেটেড এরিয়াতে তার চেয়ে হাজার গুণ বেশি সমস্যা আছে।’

‘আমি ধারণা করতে পারিনি টেলিকম ডিভিশনের ভেতরে ক্যান্সারের মতো সমস্যা বিরাজ করে এবং তা সমাধানে কোনো উদ্যোগ নেয়া হয়নি।’

মোস্তাফা জব্বার বলেন, ‘আমার নিজের কাছে এটা খুব দুর্ভাগ্যজনক মনে হয়েছে, মন্ত্রীর হওয়ার পর এক রাত্র মাত্র কাটিয়েছি এর মধ্যে মন্ত্রণালয়ের সাথে ‍যুক্ত, সরকারি কর্মকর্তা হতে শুরু করে আমাদের নুরুল কবীর পর্যন্ত যারা যারা আমার সঙ্গে কথা বলেছেন, তারা প্রত্যেকে এই এক্সপ্রেশনটা দিয়েছেন।’

আমরা কোনো না কোনো ভাবে একটা কানাগলির ভেতরে বসে আছি যেখান হতে আমরা যদি বের হতে না পারি তাহলে যে স্বপ্নটা দেখেছি সেটা নি:সন্দেহে বাস্তবায়ন করতে পারবো না-বলছিলেন এই তথ্যপ্রযুক্তিবিদ।

মন্ত্রণালয়ে কোনো বিদেশি প্রতিষ্ঠান একতরফা কাজ করবে এটা কোনোভাবে হতে দেয়া হবে না জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, আমাদের দেশকে ডিজিটাল রূপান্তর করা আমার অধিকার। সেখানে আমার অগ্রাধিকার। আমি না পারলে পরে তারা।

Symphony 2018

নিজে ইংরেজিবিরোধী না উল্লেখ করে তিনি বলেন, ইংরেজি চর্চাও দরকার, বিশ্বের সাথে যোগাযোগ রক্ষা করতে, বিদেশীদের সঙ্গে কথা বলতে ইংরেজি বলবো।

‘জাপানে ব্যবসা করলে জাপানি ভাষা জানতে হবে, কোরিয়ায় কোরীয় জানতে হবে। বিষয়টি শুধু ইংরেজির মধ্যে নয়। আমাদের দেশের ৯৬ ভাগ মানুষ ইংরেজি বোঝে না। তাদের জন্য বাংলা কনটেন্ট লাগবে।’

‘ দেশে যদি গ্রামীণফোন ব্যবসা করে এবং তার যদি টেলিকম ডিভিশনে চিঠি দেয়া দরকার হয়, সে কি কারণে বাংলায় চিঠি দেবে না ? আমি কাওকে বাধ্য করছি না। এটা এই দেশের মানুষের প্রতি সম্মান। এই দেশের মানুষ ভাষার জন্য রক্ত দিয়েছে-বলেন মোস্তাফা জব্বার।

কারও প্রতি কোনো অন্যায় হতে দেবেন না জানিয়ে মোস্তাফা জব্বার বলেন, কোনো অন্যায় সুপারিশ রাখতে পারবো না। এক বছরের মন্ত্রিত্বের জন্য ৬৯ বছরের অর্জন নষ্ট করতে করবো না।

টেলিযোগাযোগ বিভাগ এবং তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগ দুই জায়গাতে অফিস করলেও তিনি বেশি থাকবেন আগারগাঁওয়ের তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগে। আর টেলিযোগাযোগ বিভাগে প্রতিমন্ত্রী না থাকায় সেখানে কাজের সময় বেশি দেবেন। তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগে প্রতিমন্ত্রী থাকায় সেখানে চাপ কম থাকবে বলে জানান মন্ত্রী।

সম্বর্ধনায় মোস্তফা জব্বারকে ফুল এবং ক্রেস্ট  দিয়ে শুভেচ্ছা জানায় বেসিস কার্যনির্বাহী পরিষদের সদস্য, বেসিস সচিবালয়, বিআইটিএম ও তথ্যপ্রযুক্তি খাতের নানা সংগঠন, কোম্পানি ও প্রতিষ্ঠান।

বেসিসের জ্যেষ্ঠ সহ-সভাপতি রাসেল টি আহমেদের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন বেসিসের সাবেক সভাপতি এ তৌহিদ, মাহবুব জামান, এস এম কামাল, হাবিবুল্লাহ এন করিম, সারওয়ার আলম, একেএম ফাহিম মাসরুর, শামীম আহসানসহ অন্যান্য সংগঠনের নেতারা।

আল-আমীন দেওয়ান

*

*

Related posts/