ইন্টারনেটে বিপ্লব ঘটাতে ভ্যাট প্রত্যাহার চায় অ্যামটব

অনন্য ইসলাম, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : দেশে থ্রিজি চালু হওয়ার পর প্রথম বাজেটে ইন্টারনেটের ওপর থেকে সম্পূর্ণরূপে ভ্যাট প্রত্যাহার চেয়েছে মোবাইল ফোন অপারেটররা।

অপারেটররা বলছে, ইন্টারনেটের ওপর থেকে ভ্যাট প্রত্যাহারের পাশাপাশি মডেম ও সংশ্লিষ্ট অন্যান্য খাতের ওপর থেকে ভ্যাট এবং শুল্ক কিছু দিনের জন্য প্রত্যাহার করে নিলে দেশের লাভ হবে।

5g internet speed-TechShohor

সম্প্রতি জাতীয় রাজস্ব বোর্ডে (এনবিআর) এ সংক্রান্ত এক প্রস্তাবে মোবাইল ফোন অপারেটদের সংগঠন অ্যামটব মোবাইল ফাইন্যান্সিয়াল সার্ভিসের ওপর থেকেও ভ্যাট প্রত্যাহারের দাবি জানিয়েছে।

এসব প্রস্তাবের বিষয়ে অ্যামটবের সাধারণ সম্পাদক টিআইএম নূরুল কবীর বলেন, ইন্টারনেটের ব্যবহার বাড়াতে এর ওপর থেকে ভ্যাট এবং অন্যান্য শুল্ক প্রত্যাহার ভিন্ন অন্য কোনো পথ নেই।

প্রস্তাবে বলা হয়েছে, বর্তমানে মোবাইল ফোন ব্যবহারের হার বিবেচনায় নিয়ে বলা যায় প্রতি ১০ শতাংশ গ্রাহক টুজি থেকে থ্রিজিতে স্থানান্তরিত হওয়ায় জিডিপি অন্তত দশমিক ১৫ শতাংশ বৃদ্ধি পাবে। তবে সব মিলে থ্রিজিকে কাজে লাগিয়ে সরকার প্রবৃদ্ধির পরিমান দুই থেকে চার শতাংশ পর্যন্ত বৃদ্ধির সুযোগ নিতে পারে।

নূরুল কবীর বলেন, ‘ইন্টারনেট ফর অল’ এখন সময়ের দাবি। এ দাবি পূরণের জন্য সরকারের এ খাতের ওপর থেকে শুল্ক ও ভ্যাট প্রত্যাহার করে নেওয়া উচিত।

অ্যামটবের তথ্য অনুসারে, একটি মডেমের ওপর সব মিলে ২৬ শতাংশ শুল্ক দিতে হয়। এটি প্রত্যাহার না করলে মডেমের দাম কমবে না। এতে সকলের পক্ষে থ্রিজি মডেম কেনা সম্ভব নাও হতে পারে।

মোবাইল ফোন অপারেটররা বলছে, সব মোবাইল ফাইন্যান্সিয়াল সার্ভিসের ওপর ১৫ শতাংশ ভ্যাট আছে। যেটি আসলে শেষ পর্যন্ত গ্রাহককে বহন করতে হয়।

এর বাইরে অপারেটররা সিম কর তিনশ টাকা থেকে নামিয়ে শূন্য করাসহ আরও বেশ কিছু প্রস্তাব দেন। অপারেটরদের প্রস্তাব অনুসারে সিমের ওপর কর না থাকলে ২০১৫ সালের মধ্যে দেশে মোবাইল ফোন ব্যবহার ৮৫ শতাংশে উন্নীত হবে। বর্তমানে তা ৭২ শতাংশে রয়েছে।

Related posts

*

*

Top