ডিসেম্বরে ঢাকা-খুলনায় বিআইইএলের এলটিই সেবা

জামান আশরাফ, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : বছরের শেষ নাগাদ রাজধানী ঢাকা এবং শিল্পনগরী খুলনায় চতুর্থ প্রজন্মের এলটিই সেবা চালু করতে যাচ্ছে বাংলাদেশ ইন্টারনেট এক্সচেঞ্জ (বিআইইএল)। এটি হবে দেশে এলইটিইর প্রথম বাণিজ্যিক কার্যক্রম।

তবে এর আগে রাজধানীতে এলটিই (লং টার্ম ইভলিউশন) পরীক্ষামূলক যাচাই বাছাই করেছে রাশিয়ান মালিকানাধীন কোম্পানিটি। সোমবার রাজধানীর একটি হোটেলে পরীক্ষামূলকভাবে এ সেবা কার্যক্রম সংশ্লিষ্টদেরকে দেখিয়েছে বিআইইএল।

নকিয়া ও স্যামসাংসহ বিভিন্ন ডিভাইসে কয়েকটি ফাইল আপলোড এবং ডাউনলোড করে দেখানো হয় অনুষ্ঠানে।

lte_techshohor

অনুষ্ঠানে এনজিজিএলের প্রধান প্রযুক্তি কর্মকর্তা মোঃ মিজানুর রহমান বলেন, এলটিইতে প্রতিটি আপলোড এবং ডাউনলোডের ক্ষেত্রে গতি ১৫০ এমবিপিএস পর্যন্ত পাওয়া গেছে। কিন্তু অন্য কোনো প্রযুক্তিতে এমনকি ক্যাবলের মাধ্যমেও এ গতি সর্বোচ্চ ১০০ এমবিপিএস পর্যন্ত তোলা সম্ভব।

অনুষ্ঠান শেষে বিআইইএলের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) ইগর গ্রাকোভিচ জানান, ইতোমধ্যে পরীক্ষামূলক কার্যক্রম শেষ করেছেন তারা। এখন এটির নেটওয়ার্ক বিস্তারের কাজ চলছে। আগামী ছয় থেকে আট মাসের মধ্যে ঢাকায় এবং খুলনায় এলটিই সেবা দেওয়ার কথা জানান তিনি।

এলটিই চালুর ক্ষেত্রে ‘ওলো’ নাম থাকবে কিনা সেটি এখনও চূড়ান্ত হয়নি জানিয়ে সিইও বলেন, এ সেবা তারা এককভাবে দিচ্ছেন। কিন্তু বিআইইএল এবং নিউজ গ্রাফিকক্স জেনারেশনের (এনজিজিএল) যৌথ উদ্যোগে ওয়াইম্যাক্স সেবা দেওয়া হচ্ছে ওলো নামে।

‘এ ক্ষেত্রে সময় বলে দেবে এনজিজিএল আমাদের সঙ্গে এলটিইতে থাকবে কি না- জানান গ্রাকোভিচ।

বিআইইএল গত বছর অক্টোবরে বিতর্কিতভাবে ২৬’শ ব্যান্ডে স্পেকট্রাম বরাদ্দের মাধ্যমে এলটিইর লাইসেন্স পায়। এ বিষয়ে একটি মামলা এখনও উচ্চ আদালতে বিচারাধীন রয়েছে।

বাংলাদেশ ইন্টারনেট এক্সচেঞ্জ নাম হলেও এটি আসলে একটি রাশিয়ান কোম্পানি। ২০০৯ সালে বাংলাদেশে এ কোম্পানি ছাড়াও নিউ জেনারেশন গ্রাফিক্স লিমিটেড নামে অপর একটি কোম্পানি কিনে নেয় রাশিয়ার মাল্টি নেট। পরে চালু করে ওলো। এনজিজিএলের নামে এ সময় ৮০০ ব্যান্ডে বিনামূল্যে ২০ মেগাহার্ডস স্পেকট্রাম বরাদ্দ নেয় তারা।

জানা গেছে, বাণিজ্যিক কার্যক্রম শুরুর আগে বাজার তৈরির চেষ্টা করবে অপারেটরটি। সে জন্যে ডিভাইসে ভর্তুকি দেওয়া বা অন্যান্য আয়োজন করার পরিকল্পনা আছে বলেও জানান বিআইইএলের সিইও।

বিআইইলের আগে এলটিইর লাইসেন্স পেলেও ওয়াইম্যাক্স অপারেটর বাংলালায়ন ও কিউবি প্রয়োজনীয় সরঞ্জাম আনতে পারেনি।

এ তিন অপারেটর ছাড়াও থ্রিজি সেবা প্রদানকারী পাঁচটি মোবাইল ফোন অপারেটরও ফোর জির এলটিই সেবা দিতে পারবে। তবে এখনই তারা এ বিষয়ে খুব একটা আগ্রহী নয়।

Related posts

*

*

Top