Maintance

ইনফোজিলিয়নই দেবে এমএনপি সেবা

প্রকাশঃ ৩:৩১ অপরাহ্ন, অক্টোবর ১৬, ২০১৭ - সর্বশেষ সম্পাদনাঃ ৪:০৯ অপরাহ্ন, অক্টোবর ১৬, ২০১৭

আল-আমীন দেওয়ান, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : মোবাইল নাম্বার পোর্টেবিলিটি (এমএনপি) সেবা দেবে ইনফোজিলিয়ন বিডি টেলিটেক কনসোর্টিয়াম।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গত সপ্তাহে এই বিষয়ক প্রস্তাবে অনুমোদন দিয়েছেন। বিষয়টি নিশ্চিত করেছে ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের বিভিন্ন সূত্র।

স্লোভেনিয়ার টেলিটেকের জয়েন্ট ভেঞ্চার করা কোম্পানি ইনফোজিলিয়নের নাম প্রস্তাব করে চলতি বছরের সেপ্টেম্বরে প্রধানমন্ত্রীর দফতরে পাঠানো হয়। বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের ওই প্রস্তাব ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগ ঘুরে চলে যায় প্রধানমন্ত্রীর দফতরে।

আর এই চুড়ান্ত অনুমোদনের এর ফলে অল্প সময়ের মধ্যে বর্তমানের ১১ ডিজিটের মোবাইল নম্বরটি ঠিক রেখে অপারেটর পরিবর্তনের সুবিধা দেশে চালু হবে বলে বলছেন সংশ্লিষ্টরা।

ইনফোজিলিয়নের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মাবরুর হোসাইন টেকশহরডটকমকে জানান, অনুমোদনের জন্য প্রধানমন্ত্রীর দফতরে ইনফোজিলিয়নে নাম প্রস্তাব করা হয়েছে এ পর্যন্ত তথ্য ছিল। ইনফোজিলিয়নকেই যে চুড়ান্ত করা হয়েছে এমন খবর এখনও জানতে পারিনি।

তবে এটি সত্যি হলে অবশ্যই সুখবর। বিটিআরসির গাইডলাইন মেনে, সব শর্তপূরণ করে পেশাদারিত্ব ও দায়িত্বশীলতার সঙ্গে কাজ করবেন বলে জানান কোম্পানিটির এমডি।

এক দশক ধরে বাংলাদেশে এমএনপি চালুর আলোচনা থাকলেও  এখনও তা চালু করা যায়নি।

এর আগে ২০১৬ সালের সেপ্টেম্বরে একবার নিলাম আহবান করেও শেষ পর্যন্ত নিরাপত্তার কথা বলে তা বাতিল করা হয়। প্রযুক্তিটি অত্যন্ত স্পর্শকাতর বিবেচনায় লাইসেন্স দেওয়ার আগে কোম্পানিগুলোর বিষয়ে গোয়েন্দা সংস্থার নিরাপত্তা ছাড়াপত্র নেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়। পরে তো নিলামই অনিশ্চিত হয়ে পড়ে।

তারপর সিদ্ধান্ত বদলে নিলামের পরিবর্তে সরকার বিউটি কনটেস্টের আয়োজন করে। যেখানে আগের পাঁচটি কোম্পানিই আবেদন করে।

ইনফোজিলিয়ন ছাড়াও পোল্যান্ডের টিফোরবির সঙ্গে মিলে রিভ নম্বর, লিথুনিয়ার মিডিয়াফোনের সঙ্গে হয়ে গ্রিনটেক ইন্টারন্যাশনাল, ব্রাজিলের ক্লিয়ারটেককে নিয়ে ব্রাজিল-বাংলাদেশ কনসোর্টিয়াম ও নরওয়ের সিস্টোর গ্রুপের সঙ্গে রুটস ইনফোটেক স্বতন্ত্র কনসোর্টিয়াম করে আবেদন করেছিল।

সব কিছুর পর এখন সেবাটি দেয়ার জন্য কোম্পানি চুড়ান্ত করায় এর একটি বড় ধাপ সম্পন্ন হয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে । এবার এটি দ্রুতই চালু হওয়ার আশা করছেন খাত সংশ্লিষ্টরা।

আগের সিদ্ধান্ত অনুসারে এমএনপি সেবায় অন্য অপারেটরে যেতে হলে গ্রাহককে প্রতিবার ৩০ টাকা চার্জ দিতে হবে । আর একবার অপারেটর বদল করলে গ্রাহককে সেই অপারেটরে থাকতে হবে কমপক্ষে ৯০ দিন।

বর্তমানে পার্শ্ববর্তী দেশ ভারত, পাকিস্তানসহ প্রায় ৭২টি দেশে এই সেবা চালু রয়েছে।

এর আগে বিটিআরসির চেয়ারম্যানও বলেছিলেন, এমএনপি সেবা চালু হলে দেশে মোবাইল সেবা খাতে প্রতিযোগিতা আরও বৃদ্ধি পাবে এবং গ্রাহকের স্বাধীনতাও আরও বাড়বে।

*

*

Related posts/