Maintance

ফোরজি গাইডলাইনের ভুল ব্যাখ্যা করছে অপারেটররা

প্রকাশঃ ৩:৪২ অপরাহ্ন, অক্টোবর ৩, ২০১৭ - সর্বশেষ সম্পাদনাঃ ২:০৯ অপরাহ্ন, অক্টোবর ৭, ২০১৭

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : অপারেটররা ফোরজি গাইড লাইনের আংশিক ব্যাখ্যা করে বিভ্রান্তি তৈরি করছে বলে জানিয়েছেন টেলিযোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম।

তারানা হালিম বলেন, অপারেটররা যে ২৩টি আপত্তির কথা বলেছে তার অধিকাংশই তারা ভুলভাবে ব্যাখ্যা করছে।

মঙ্গলবার টেলিকম রিপোর্টার্স নেটওয়ার্ক বাংলাদেশ (টিআরিএনবি)-এর প্রতিনিধিদের সঙ্গে মতবিনিময়কালে তারানা হালিম এসব কথা বলেন।

এর আগে ফোরজি নীতিমালায় গ্রাহকের ব্রাউজিং কার্যক্রমসহ বিভিন্ন তথ্য এক যুগ সংরক্ষণ রাখার ধারাসহ ২৩টির মতো বিষয়ে আপত্তির কথা জানায় অপারেটগুলো।

TRNB-TECHSHOHOR2

তবে আপত্তিগুলো বেশিরভাগই ভুল ব্যাখ্যার ফলে হয়েছে বলে সেগুলো বিভ্রান্তি তৈরি করার কথা জানান প্রতিমন্ত্রী।

টিআরএনবির সঙ্গে মতবিনিময়কালে তারানা হালিম বলেন, যা কিছুই হোক ফোরজি বিলম্বিত হওয়ার কোনো কারণ নেই। এ বছরের মধ্যেই ফোরজি চালু হবে। অপারেটররা সেটা করবে। কারণ আমরা জানি, অপারেটররা ভিতরে ভিতরে ফোনজি চালু করার সব ধরনের প্রস্তুতি শেষ করেছে।

ফোরজির নীতিমালা অনুযায়ী ২১০০ মেগাহার্জ, ১৮০০ মেগাহার্জ এবং ৯০০ মেগাহার্টজ তরঙ্গ নিলাম হবে। যার মধ্যে ২১০০ ব্যান্ডের প্রতি মেগাহার্জের নিলামের ফ্লোর মূল্য হবে ২ কোটি ৭০ লাখ ডলার। আর ১৮০০ ও ৯০০ ব্যান্ডের প্রতি মেগাহার্ডজ স্পেকট্রামের নিলামের ভিত্তি মূল্য হবে তিন কোটি ডলার।

এর বাইরে প্রযুক্তি নিরপেক্ষতার জন্য দিতে হবে প্রতি মেগাহার্জে ৭৫ লাখ ডলার।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, স্পেকট্রামের দাম নিয়ে অপারেটরদের কোনো আপত্তি নেই।

ফোরজি গাইড লাইনের কয়েকটি জায়গায় এখন কিছু ব্যাখ্যা সংযোজন করা হবে জানিয়ে তারানা হলিম বলেন, ব্যাখ্যা সংযোজনের কাজ কয়েকদিনের মধ্যেই শেষ হবে। এটা বলতে পারি যে, ডিসেম্বরের মধ্যেই দেশে ফোরজি চালু হবে।

সেপ্টেম্বরের শুরুর দিকে ফোরজি নীতিমালায় অনুমোদন দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আর এই অনুমোদনই ছিল দেশে ফোরজি চালুর প্রক্রিয়ায় অনত্যম অগ্রগতি।

মতবিনিময়কালে টিআরএনবি সভাপতি রাশেদ মেহেদি ও সাধারণ সম্পাদক শামীম আহমেদ বক্তব্য রাখেন। এছাড়াও সংগঠনটির অন্যান্য সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

আর এস হুসেইন

*

*

Related posts/