Maintance

ফোরজি নীতিমালা নিয়ে দু’ডজন আপত্তি

প্রকাশঃ ৯:৪৫ অপরাহ্ন, সেপ্টেম্বর ২৪, ২০১৭ - সর্বশেষ সম্পাদনাঃ ১১:১৩ পূর্বাহ্ন, সেপ্টেম্বর ২৫, ২০১৭

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : ফোরজি নীতিমালায় গ্রাহকের ব্রাউজিং কার্যক্রমসহ বিভিন্ন তথ্য এক যুগ সংরক্ষণ রাখার ধারাসহ ২৩টির মতো বিষয়ে আপত্তি তুলেছে অপারেটগুলো।

রোববার সচিবালয়ে টেলিযোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিমের সঙ্গে বৈঠকে এসব আপত্তির কথা জানান মোবাইল ফোন অপারেটরগুলোর শীর্ষ কর্মকর্তারা।

বৈঠকে তারা জানান, গ্রাহক ডেটা ১২ বছর সংরক্ষণ রাখতে গেলে খরচ বাড়বে। তবে শেষ পর্যন্ত বলা হলে গ্রাহকের ওপর গিয়েই পড়বে। তখন তাদের খরচ বাড়বে।

অপারেটররা চাইলে দেশী ব্যাংক থেকে ঋণ নিয়ে বা স্থানীয় বিনিয়োগ করতে পারবেন নীতিমালায় এমন ধারা যুক্ত করার কথা বলা হয়েছিল। কিন্তু চূড়ান্ত নীতিমালায় বিনিয়োগের ক্ষেত্রে ফোরজিতে শুধুমাত্র সরাসরি বিদেশী বিনিয়োগের অনুমোদন দেওয়ার কথা বলা হয়েছে দেখে আপত্তি তোলেন তারা।

এছাড়া সামাজিক দায়বদ্ধতা তহবিল খরচের ক্ষেত্রে বিটিআরসির অনুমতি নেয়ার বিষয়ে আপত্তি জানানো হয়।

বিষয়গুলো নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে আলাপ করবেন বলে বৈঠকে অপারেটরগুলোর প্রতিনিধিদের আশ্বাস দেন তারানা হালিম।

সেপ্টেম্বরের শুরুর দিকে ফোরজি নীতিমালায় অনুমোদন দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আর এই অনুমোদনই ছিল দেশে ফোরজি চালুর প্রক্রিয়ায় অনত্যম অগ্রগতি।

গত বুধবার সচিবালয়ে ফোরজি নিয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে টেলিযোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী জানান, চলতি বছরের নভেম্বরে ফোরজি সেবার জন্য স্পেকট্রাম নিলাম করা হবে। আর এই নিলাম হতে ১১ হাজার টাকা কোটি টাকা আয়ের আশা রয়েছে।

নীতিমালা অনুযায়ী ২১০০ মেগাহার্জ, ১৮০০ মেগাহার্জ এবং ৯০০ মেগাহার্টজ তরঙ্গ নিলাম হবে। যার মধ্যে ২১০০ ব্যান্ডের প্রতি মেগাহার্জের নিলামের ফ্লোর মূল্য হবে ২ কোটি ৭০ লাখ ডলার। আর ১৮০০ ও ৯০০ ব্যান্ডের প্রতি মেগাহার্ডজ স্পেকট্রামের নিলামের ভিত্তি মূল্য হবে তিন কোটি ডলার।

এর বাইরে প্রযুক্তি নিরপেক্ষতার জন্য দিতে হবে প্রতি মেগাহার্জে ৭৫ লাখ ডলার।

জামান আশরাফ

*

*

Related posts/