Maintance

অবশেষে দ্বিতীয় সাবমেরিন ক্যাবল উদ্বোধন রোববার

প্রকাশঃ ৯:০৫ পূর্বাহ্ন, সেপ্টেম্বর ৭, ২০১৭ - সর্বশেষ সম্পাদনাঃ ১২:২৩ অপরাহ্ন, সেপ্টেম্বর ৮, ২০১৭

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : অবশেষে বহুল প্রতীক্ষিত দ্বিতীয় সাবমেরিন ক্যাবল উদ্বোধন হচ্ছে। এর আগে দুই দফা উদ্বোধনের তারিখ দিয়েও শেষ পর্যন্ত তা করা হয়নি।

রোববার সকাল ১০টায় গণভবন হতে ভিডিও কনফারেন্সে কুয়াকাটায় অবস্থিত দ্বিতীয় সাবমেরিন ক্যাবলসহ কার্যক্রমের উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

টেলিযোগাযোগ বিভাগ এবং বিএসসিসিএল সূত্র এ তথ্য নিশ্চিত করেছে।

দ্বিতীয় সাবমেরিন ক্যাবলে সংযুক্ত হওয়ায় বাংলাদেশ নতুন করে ১ হাজার ৫০০ গিগাবাইটের (জিবি) বেশি ব্যান্ডউইডথ পাচ্ছে। নতুন এ সাবমেরিন ক্যাবলের মেয়াদকাল ২০ থেকে ২৫ বছর।

submarine cable-TechShohor

চলতি বছরের ৩১ জুলাই একবার এই ক্যাবলের উদ্বোধনের তারিখ দেয়া হয়েছিল। তার আগে মার্চের দ্বিতীয় সপ্তাহে ক্যাবলটি উদ্বোধনের প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম। এছাড়া একাধিক সম্ভাব্য সময় ঘোষণা করেও কাজ শেষ করতে না পারায় এটি উদ্বোধন যাচ্ছিল না।

রাষ্ট্রায়ত্ব কোম্পানি বিটিসিএল সঞ্চালন লাইনের কাজ ঠিকমতো শেষ করতে না পারায় এতদিনের এই বিলম্ব।

গত ২৭ মার্চ ডিজিটাল বাংলাদেশ টাস্কফোর্সের নির্বাহী কমিটির সভার আলোচনায় বলা হয়, দ্বিতীয় সাবমেরিন ক্যাবল প্রকল্পের কাজ শেষ করার জন্য ২০১৬ সালের জুন পর্যন্ত সময় নির্ধারণ করা হয়েছিল। এখন কেনো এত বিলম্ব হচ্ছে। তবে বিষয়টি নিয়ে বিটিসিএল প্রতিনিধি তখন বলেছিলেন, এপ্রিলের মধ্যেই তারা ঢাকায় সংযোগ দিতে পারবেন।

বর্তমানে ভারত থেকে প্রায় ২৫০ জিবিপিএস ব্যান্ডউইথ আসছে। আর বিএসসিসিএলের প্রথম ক্যাবল ১৮০ জিবিপিএস ব্যান্ডউইথ দেশে ব্যবহার হচ্ছে।

বাংলাদেশের ব্যবহারকারী এবং ব্যবসায়ীরা এখনও সিই-মি-উই-৫ ক্যাবল থেকে কেনো সুবিধা না পেলেও ক্যাবলটির সঙ্গে সংযুক্ত ১৯টি কোম্পানির অধিকাংশই গত ১৬ জানুয়ারি ক্যাবলটি থেকে সেবা গ্রহণ করতে শুরু করেছে। আর বিএসসিসিএল এর সঙ্গে যুক্ত হয়েছে ২১ ফেব্রুয়ারি।

মার্চে ল্যান্ডিং স্টেশন সফর দিয়ে তারানা হালিম বলেছিলেন ক্যাবলটি চালু হলে বরিশাল, খুলনা, ফরিদপুর, পটুয়াখালী, যশোরসহ দক্ষিণাঞ্চলের ইন্টারনেট সেবা আরও স্বল্পমূল্যে দেওয়া যাবে।

এর আগে ২০১৬ সালের শেষ নাগাদ দ্বিতীয় সাবমেরিন ক্যাবলে যুক্ত হওয়ার কথা থাকলেও নানা কারণে তা চলতি বছরে গড়িয়ে যায়।

২০০৫ সালে বাংলাদেশ প্রথমবারের মতো সাবমেরিন ক্যাবল ‘সি-মি-ইউ-৪’ এ যুক্ত হয়, যার মাধ্যমে এখন প্রায় ৩০০ জিবিপিএস ব্যান্ডউইডথ পাওয়া যাচ্ছে।

আল-আমীন দেওয়ান

*

*

Related posts/